क्षेत्रीय

Blog single photo

বাজি ফাটানো নিয়ে পাল্টা বিরোধীদের দিকে কটাক্ষ ছুড়ে দিল বিজেপি

06/04/2020

 মৌসুমী বসাক 
কলকাতা, ৬ এপ্রিল (হি.স.): রবিবার যেভাবে মানুষ মোমবাতি জ্বালিয়ে সংকল্প বার্তা দিয়েছে। তাতে স্পষ্ট গোটা দেশ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পাশে রয়েছে। সোমবার একান্ত সাক্ষাৎকারে 'হিন্দুস্থান সমাচার' কে এমনটাই জানালেন বিজেপির কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক রাহুল সিনহা। অন্যদিকে বাজি ফাটানো নিয়ে রাজনীতি করে বিরোধীরা নিচু মনের পরিচয় দিচ্ছেন বলেই মনে করছেন বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার।

রবিবার প্রধানমন্ত্রী রাত নটায়, ৯ মিনিটের জন্য সকল দেশবাসীর উদ্দেশ্যে আবেদন করেছিলেন মোম, প্রদীপ, টর্চ ও মোবাইলের ফ্লাশ লাইট জ্বালিয়ে সংকল্প বার্তা দিতে। সেই মতই গোটা দেশ জুড়ে দেখা গেছে এক অদ্ভুত আলোর রোশনাইয়ের ছবি। তবে শুধু যে দেশে নয় দেশের বাইরে ও যেখানে ভারতীয়রা ছড়িয়ে রয়েছেন সেখানেও তারা প্রধানমন্ত্রীর এই সংকল্প পালন করেছেন বলে দাবি করেন রাহুল বাবু। তিনি জানান, " সারা বিশ্বের ভারতীয়রা এই প্রদীপ জ্বালানোর কর্মসূচি পালন করেছেন। এটা কম কথা নয়। আমাদের দেশে যখন রাত নটা. তখন অন্যান্য দেশে কোথাও মাঝরাত আবার কোথাও ভোরবেলা
 সেসব জায়গায় মানুষ জেগে থেকে এ কর্মসূচি পালন করেছে ভারতের প্রতি সমবেদনা দেখিয়েছে।   
জয় প্রকাশ বাবু জানিয়েছেন," এতদিন মানুষ ঘরে বন্দী অবস্থায় রয়েছেন। তারা একাকিত্বে ভুগে হতাশাগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। গতকালের এই কর্মসূচির মাধ্যমে তারা বুঝতে পারল গোটা ভারত একসঙ্গে লড়ছে। কেউ একা নয়। এই প্রদীপ জ্বালানোর মাধ্যমে পুরো ভারতবাসী বুঝল এই দুর্দিনে তারা একা নয়। সকলে এক সঙ্গে লড়ছে।
একই সঙ্গে বিরোধীদের কটাক্ষ করেছেন এই দুই বিজেপি নেতা বলেন, " কিছু নিন্দুক এই বিষয়টা নিয়ে কুৎসা রটানো চেষ্টা করেছিল। কিন্তু তাদের মুখে ছাই দিয়ে দিয়েছে গোটা দেশবাসী। একটা শুভ জিনিস নিয়ে যেভাবে রাজনীতি করা হচ্ছে তাতে নিচু্ মনের পরিচয় দেওয়া হচ্ছে।
 ইউনাইটেড ভারতের কাছে করোনা পরাজিত হবে এমনটাই দাবি করেছেন রাহুল সিনহা। তাঁর কথায়, "এর আগেও বিশ্বে সোয়াইন ফ্লু, পোলিও, ত্রাস তৈরি করে ভারতে এসে থেমে গেছে. আমাদের বিশ্বাস ইউনাইটেড ভারতের কাছে এসে করোনাইজয়র থেমে যাবে।  প্রধানমন্ত্রী প্রদীপ জ্বালানোর সংকল্প সফল হলেও একই সঙ্গে দেখা গেছে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বাজি ফাটিয়ে উৎসবের আনন্দে মেতে উঠেছেন মানুষ। এই বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে বিভিন্ন মহলে। তবে বিষয়টিকে নেতিবাচক হিসেবে দেখতে নারাজ রাহুল সিনহা। বাজি পোড়ানোর বিষয়ে তিনি বলেন, " যেহেতু প্রদীপ জ্বালানো সাথে দীপাবলীর সম্পর্ক রয়েছে তাই সারা দেশের মানুষ বাজি ফাটিয়ে ফেলেছেন।দীপাবলিতে যেমন বাজি ফাটিয়ে অশুভর করা হয় তেমনভাবেই মানুষ বাজি ফাটিয়ে করোনারি অশুভ শক্তিকে হয়তো দূর করতে চেয়েছেন। "হিন্দুস্থান সমাচার /


 
Top