क्षेत्रीय

Blog single photo

কেরোসিনের দাম কমলেও বিক্রি হচ্ছে বেশি দামেই

04/04/2020

কলকাতা, ৪ এপ্রিল (হি. স.) :  এপ্রিলে লিটারে দশ টাকা কমেছে কেরোসিনের দাম। কিন্তু রেশন দোকানে বিক্রি হচ্ছে আগের দামেই। এতে গ্রাহকদের মধ্যে ক্ষোভ ও প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। 

রাজ্য খাদ্য দফতরের বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী, এপ্রিল মাসের বরাদ্দ কেরোসিন রেশন ডিলার কলকাতায় লিটার প্রতি ২৭ টাকা ৮৪ পয়সা দরে বিক্রি করবেন। আগের মাসে এই বিক্রয়মূল্য ছিল ৩৮ টাকা ৫৮ পয়সা। জেলাগুলিতেও কেরোসিনের বিক্রয়মূল্য আগের তুলনায় লিটারে ১০ টাকার আশপাশে কমবে বলে দফতর সূত্রে জানা গেছে। 

রান্নার গ্যাসের দাম কমার পর রেশনের মাধ্যমে সরবরাহ করা কেরোসিনের দাম লিটারে প্রায় ১০ টাকা কমিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এপ্রিল মাস থেকে বরাদ্দ হওয়া কেরোসিনের ক্ষেত্রে এই নতুন দাম কার্যকর হওয়ার কথা। ওয়েস্ট বেঙ্গল কেরোসিন ডিলার অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অশোক গুপ্ত ‘হিন্দুস্থান সমাচার’-কে জানিয়েছেন, তাঁরা চান রাজ্য সরকার এ ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করুক। গ্রাহকদের কাছে পরিষ্কারভাবে এই দামের পার্থক্যের ব্যাপারটা জানিয়ে দেওয়া হোক। আন্তর্জাতিক বাজারে অশোধিত তেলের দাম ব্যাপকভাবে পড়ে যাওয়ায় আগেই কেন্দ্রীয় সরকারের কেরোসিনের দাম কমানো উচিত ছিল বলে ডিলারদের সংগঠন মনে করে। 
অশোকবাবু বলেন, পরিবহণ খরচের ক্ষেত্রে পার্থক্য থাকার জন্য জেলাভিত্তিতে কেরোসিনের দাম কম-বেশি হয়। তবে দাম কমানোর জেরে একটা সমস্যা তৈরি হয়েছে। গত  মার্চ  পর্যন্ত থাকা আর্থিক বছরের চতুর্থ কোয়ার্টারের বরাদ্দ কেরোসিনের একটা অংশ একেবারে শেষ লগ্নে তোলা হয়েছে।কলকাতা সহ রাজ্যের ২৩টি জেলায় বেশ কিছু হোলসেলার এজেন্টকে মার্চ মাসের শেষ সপ্তাহে প্রায় ৬১০০  কিলোলিটার কেরোসিন বরাদ্দ করে খাদ্য দফতর। কারণ তখন না তোলা হলে ওই পরিমাণ কেরোসিনের বরাদ্দ নষ্ট হয়ে যেত। তিনমাসের ভিত্তিতে রাজ্যগুলিকে  কেরোসিনের বরাদ্দ দেয় কেন্দ্র। হোলসেল এজেন্টরা ওই পরিমাণ তেল মার্চ মাসের শেষদিকে  রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বিভিন্ন ডিপো থেকে তুলেছেন। এবার এপ্রিল মাসে তা ডিলারদের সরবরাহ করা হবে বিক্রির জন্য। ওই তেল আগের মাসের বর্ধিত দামে কেনা হয়েছে। ফলে তা বেশি দামেই বিক্রি করতে হবে। হিন্দুস্থান সমাচার/ অশোক


 
Top