Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, नवम्बर 16, 2018 | समय 10:39 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

অসমে পৃথক দুই স্থানে বুনো হাতির হামলায় হতাহত চার

By HindusthanSamachar | Publish Date: Nov 5 2018 6:10PM
অসমে পৃথক দুই স্থানে বুনো হাতির হামলায় হতাহত চার
গুয়াহাটি, ৫ নভেম্বর (হি.স.) : রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে আজ সোমবার বুনো হাতির হামলায় দুই ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। তাছাড়া আহত হয়েছেন আরও দুজন। মর্মান্তিক এ সব ঘটনা ঘটেছে উজান অসমের যোরহাট জেলার তিতাবর এবং নিম্ন অসমের বিটিএডি-র বাকসা জেলার অন্তর্গত ভারত-ভুটান সীমান্তবর্তী গ্রামে। গুয়াহাটিতে রাজ্যের সদর বন দফতরের এক আধিকারিক সূ্ত্রে প্রাপ্ত খবরে জানা গেছে, আজ ভোরে তিতাবরের লেটেকুজান চা বাগানের শ্রমিক লাইনে এক দল বুনো হাতির হামলায় এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে। নিহতের নাম জানাতে পারেননি তিনি। তবে একই বাগানে জনৈক রমেশ পাত্ৰ নামের অন্য ব্যক্তি হাতির আক্রমণে আহত হয়েছেন। তাঁকে তিতাবরের সরকারি হাসপাতালে নিয়ে ভরতি করা হয়েছে, জানান আধিকারিক। তিনি জানিয়েছেন, গত প্রায় দুই সপ্তাহ থেকে পার্শ্ববর্তী মরিয়নির হুলুঙাপাড় গিবন অভরায়ণ্য থেকে খাদ্যের সন্ধানে জনপদে নেমে প্রায় ৪০/৫০ বুনো হাতির এক দল ব্যাপক উপদ্ৰব চালিয়েছে। অন্য ঘটনা ঘটেছে বিটিএডি-র বাকসা জেলার অন্তর্গত ভারত-ভুটান সীমান্তবর্তী গ্রামে। সেখানে বুনো হাতির হামলায় সুকুমারসিং নাৰ্জারি নামের এক কৃষকের মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় অপর এক কৃষক কামাখ্যা বসুমতারি আহত হয়েছেন। বন আধিকারিক জানান, আজ সোমবার সকালে সুকুমারসিঙের ধান ক্ষেতে বুনো হাতির এক দল পড়েছিল। তাদের তাড়াতে গিয়েছিলেন সুকুমারসিং নার্জারি এবং কামাখ্যা বসুমতারি নামের দুই কৃষক। সে সময় দুজনকেই শূঁড় দিয়ে আছড়ে মারে দলের এক হাতি। এ ঘটনায় সুকুমারসিং এবং কামাখ্যা গুরুতরভাবে আহত হন। হাতির দল সরে যাওয়ার পর গ্রামের মানুষ তাঁদের উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালে কর্তব্যরত ডাক্তাররা সুকুমারসিং নার্জারিকে মৃত বলে জানিয়ে অন্য আহত কামাখ্যা বসুমতারিকে রেখে চিকিৎসা করছেন। ডাক্তারের উদ্ধৃতি দিয়ে আধিকারিকটি জানিয়েছেন, সুকুমারসিঙের বুকের পাঁজর গুঁড়ো হয়ে গেছে। হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হওয়ায় তাঁর মৃত্যু হয়েছে। এদিকে আহত কামাখ্য বসুমতারির অবস্থাও আশঙ্কামুক্ত নয় বলে নাকি ডাক্তাররা জানিয়েছেন। তাঁর কলার বোন এবং কোমরে আঘাত লেগেছে। হিন্দুস্থান সমাচার / মোনালি / এসকেডি / কাকলি
image