Hindusthan Samachar
Banner 2 बुधवार, नवम्बर 14, 2018 | समय 15:20 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বিজেপির গেরুয়া নকল গেরুয়া, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর

By HindusthanSamachar | Publish Date: Nov 5 2018 8:46PM
বিজেপির গেরুয়া নকল গেরুয়া, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর
কলকাতা, ৫ নভেম্বর (হি.স.) : ‘গেরুয়া পড়লেই সাধু হয়না, মন থেকে সাধু হতে হবে। বিজেপির গেরুয়া নকল গেরুয়া’। সোমবার স্কাইওয়ার্কের উদ্বোধন করতে এসে সরাসরি নাম না উল্লেখ করে বিজেপিকে কটাক্ষ করলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বহু প্রতীক্ষার অবসান ঘটিয়ে এদিন স্কাইওয়ার্কের উদ্বোধন করেন তিনি। দক্ষিণেশ্বরে পথ চলা চলতি মানুষদের সুবিধার জন্য দেশের প্রথম স্কাইওয়াকটির উদ্বোধন হল কালীপুজোর আগের দিন। ৩৪০ মিটার দীর্ঘ, ১০.‌১৫ মিটার চওড়া রানি রাসমনি স্কাইওয়াক তৈরি করতে খরচ হয়েছে ৬০ কোটি টাকা। রয়েছে ১৪টি এসক্যালেটর, ৮টি সিঁড়ি এবং চারটি লিফট। এছাড়াও নতুন ‘আকাশপথ’-এ আছে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা, সিসিটিভি ক্যামেরা। ওপরেই পাওয়া যাবে পুজোর সামগ্রী। স্কাইওয়াক সেজেছে থ্রিডি আলোকসজ্জায়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন পুর ও নগরোন্নয়নমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সাংসদ সৌগত রায়, খাদ্য ও সরবরাহমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক, দক্ষিণেশ্বর কালীমন্দিরের অছি পরিষদের সম্পাদক কুশল চৌধুরি, বেলুড় মঠের রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুধীরানন্দজি মহারাজ, কামারহাটি মিউনিসিপ্যালিটির চেয়ারম্যান গোপাল সাহা, বরাহনগর মিউনিসিপ্যালিটির চেয়ারপার্সন অপর্ণা মৌলিক প্রমুখ। দক্ষিণেশ্বর কালীমন্দিরের অছি পরিষদের সম্পাদক কুশল চৌধুরি জানান, ২০১২ সালে স্বামী বিবেকানন্দের মূর্তি উন্মোচন করতে এসে মুখ্যমন্ত্রীর চোখে পড়ে সংকীর্ণ রাসমণি রোড। তখনই তিনি এই স্কাইওয়াক তৈরি করার সিদ্ধান্ত নেন। রানি রাসমনি স্কাইওয়াক নামকরণটি করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, এই নাম না হলে নবজাগরণের, ইতিহাসের, রেনেসাঁর, বীর মহিলা রাসমনির কাহিনী অধরা থেকে যাবে। এই স্কাইওয়াক হওয়ার পথে বিভিন্ন বাঁধার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তিনটি দল উঠে পড়ে লেগেছিল কাজ বন্ধ করার জন্য। হাইকোর্ট পর্যন্ত গড়িয়েছিল মামলা’। আগামী সাতদিনের মধ্যে হকারদের স্টল দেওয়া হবে স্কাইওয়াকের মধ্যে। নতুন পথ রক্ষনাবেক্ষন করার দায়িত্ব থাকবে দক্ষিণেশ্বর অছি পরিষদের হাতে। কামারহাটি পুরসভাকে একশ দিনের কাজের জন্য ৫০ জন লোককে নিযুক্ত করার নির্দেশ দেন মুখ্যমন্ত্রী। শুধু দক্ষিণেশ্বরে ঘুরতে গেলেই হবেনা, জানতে হবে এই স্থাপত্যের ইতিহাসও। সেই ব্যবস্থাও রয়েছে এখানে। লাইট এন্ড সাউন্ডের মাধ্যমে দেখানো হবে এই স্থাপত্য নির্মাণের ইতিহাস। শুধু দক্ষিণেশ্বরে নয় কাজ শুরু হয়েছে তারাপীঠ, সতীপীঠ, নলহাটেশ্বরী, কঙ্কালিতলায়। গঙ্গাসাগরেও তৈরি হয়েছে পুণ্যার্থীদের থাকার জন্য হস্টেল, কটেজ। তারকেশ্বরেও এগোচ্ছে কাজ বলে এদিন জানান মুখ্যমন্ত্রী। হিন্দুস্থান সমাচার / মৌসুমী /হীরক/ সঞ্জয়
image