Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, नवम्बर 22, 2018 | समय 15:57 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বিপ্লবীদের আস্তানায় ১০৯ বছর ধরে পূজিত মা কালী

By HindusthanSamachar | Publish Date: Nov 5 2018 9:50PM
বিপ্লবীদের আস্তানায় ১০৯ বছর ধরে পূজিত মা কালী
কলকাতা, ৫ নভেম্বর (হি.স.) : উত্তর কলকাতার প্রাচীন কালীপুজো গুলোর মধ্যে অন্যতম মুখোপাধ্যায় বাড়ির পুজো। একসময় বিপ্লবীদের আস্তানা ছিল এই কালী বাড়ীতে। কষ্ঠি পাথরের তৈরি কালী মূর্তি পূজিত হয় এই মন্দিরে। ১৯৩৯ সালে কংগ্রসের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পর সুভাষচন্দ্র বসুকে এই কালীমন্দিরের প্রাঙ্গনেই স্থানীয় বিপ্লবীরা সংবর্ধনা দিয়েছিলেন। সেই পুজো হল উত্তর কলকাতায় মুখোপাধ্যায় বাড়ির পুজো। কাশীপুর উদ্যানবাটির অদূরেই ৮৫ কাশীপুর রোডে শ্রীকৃপাময়ী কালিকা ঠাকুরানি বাড়ি। ১০৯ বছরের পুরোনো এই পুজো। এই মন্দিরেই বিপ্লবীরা গোপনে দেখা করতেন। সেই সময় বিপ্লবীদের একপ্রকার আস্তানা ছিল এই মন্দির। মদনমোহন মালব্য, শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, বিধানচন্দ্র রায় সহ অনেক স্বাধীনতা সংগ্রামীদের এই মন্দির ছিল তাঁদের আস্তানা। ১৮৯৪ সালে জনহার্ট নামে এক ইংরেজের থেকে কাশীপুরে এই বাগানবাড়ি কেনেন বামনদাস মুখোপাধ্যায় নামে এক ব্যক্তি। তিনি ছিলেন সেই সময়কার উত্তর কলকাতার নামী ব্যবসায়ী। ১৯০৪ সালে প্রায় ৩৫ বিঘা জমির একটি অংশে তিনি প্রতিষ্ঠা করেন এই কালী মন্দির। ১৯০৪ সালে বামন মুখোপাধ্যায় কাশীপুরে একটি বাড়ি তৈরি করেন। বামনবাবুর ইচ্ছা ছিল তিনি বড় কালীবাড়ি তৈরি করবেন। সেখানে বাগান, পুকুর সব থাকবে। ব্রিটিশদের আমলে এই মন্দির তৈরি করতে ব্রিটেন থেকে লোহার থাম আনা হয়েছিল। তখন কলকাতায় মার্বেল পাথর পাওয়া যেত না। তাই মন্দিরের জন্য ইতালি থেকে মার্বেল পাথর নিয়ে আসা হয়। এই মন্দিরের সমস্ত কাঠের জিনিস এসেছে। মন্দির তৈরির জন্য বিদেশ থেকে আনা হয়েছিল শ্রমিক। আগে এই মন্দিরে টেরাকোটার কাজও ছিল। বামনদাস মুখোপাধ্যায়ের নাতি অসীম কুমার মুখোপাধ্যায় জানান, আগে এই কালীপুজোর সময় ৫দিন ধরে যাত্রা হত। তুবড়ি ফাটানোর প্রতিযোগিতা হত। এলাকার বাসিন্দারা এখানেই খাওয়া-দাওয়া করতেন। কাঙালি ভোজনও হত। তবে এই পুজোতে কোনওদিনই বলি প্রথা ছিল না আজও নেই। প্রথা মেনে মাকে নিরামিষ ভোগ দেওয়া হত। এখনও একইভাবে পুজো চলে আসছে। কিন্তু, এখন আর বড় করে নয় তুলনামূলকভাবে কমেছে পুজোর জাঁকজমক। কারণ, যেহেতু এই মন্দিরটি খুবই প্রাচীন, এই বাড়ি রক্ষণাবেক্ষণ করতেই অনেক খরচ। উত্তর কলকাতায় এই পুজো মুখোপাধ্যায় বাড়ির কালীপুজো নামেই বিখ্যাত। সেই থেকে এখনও পর্যন্ত ওই বাড়িতে কালীপুজো হয়ে আসছে। ২০০২ সালে কেন্দ্রীয় সরকার এই মন্দিরটিকে হেরিটেজ হিসেবে ঘোষণা করেছে। তাই আর্কিওলজিক্যাল সার্ভে অব ইন্ডিয়ার নিয়ম মেনেই এই মন্দিরের সংস্কার করা হয়।হিন্দুস্থান সমাচার / পায়েল / হীরক/ সঞ্জয়
image