Hindusthan Samachar
Banner 2 बुधवार, नवम्बर 14, 2018 | समय 14:58 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

নাবালিকার বিয়ে রুখল গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ ও প্যারা লিগাল ভলান্টিয়াররা

By HindusthanSamachar | Publish Date: Nov 7 2018 8:27PM
নাবালিকার বিয়ে রুখল গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ ও প্যারা লিগাল ভলান্টিয়াররা
বালুরঘাট, ৭ নভেম্বর (হি.স.) : মঙ্গলবার রাতে এক নাবালিকার বিয়ে রুখল গঙ্গারামপুর থানার পুলিশ ও প্যারা লিগাল ভলান্টিয়াররা। এদিন রাতে গঙ্গারামপুরের অশোকগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের দুমুঠো ফরিদপুর গ্রামের বাসিন্দা এক নাবালিকার সঙ্গে বিয়ে ঠিক হয়েছিল ওই গ্রামেরই বাসিন্দা সুবোধ রায় নামে এক যুবকের। ঘটনার খবর পাওয়ার পর রাতেই ওই এলাকায় পৌছায় পুলিশ ও প্যারা লিগাল ভলেন্টিয়াররা। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, চালুন উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এবছর মাধ্যমিকে অকৃতকার্য্য হয়েছিল ওই নাবালিকা। নাবালিকার বাবা বুধু রায় ও সুবোধ রায়ের বাবা রবি রায় দুজনেই স্থানীয় ইট ভাটার শ্রমিক। দুজনেই তাদের ছেলেমেয়েদের বিয়ে দেবার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল এদিন। গোপন সু্ত্রে খবর পেয়ে পুলিশ ও জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের লোকজন সেখানে গিয়ে মেয়ের বাবাকে বুঝিয়ে এই বিয়ে বন্ধ করে দেয়। এলাকার প্যারা লিগাল ভলান্টিয়ার গোলাম রব্বানী জানায়, এদিনই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা চাইল্ড লাইনের মাধ্যমে তার এখবর পান। এরপরেই গঙ্গারামপুর থানার সঙ্গে যোগাযোগ করেন। গোলাম জানায়, জেলা আইনি পরিষেবা কতৃপক্ষের তরফ থেকে নাবালিকা ওই মেয়ের পরিবারকে বোঝানোই তাদের দায়িত্ব। সেকারণেই তিনি গঙ্গারামপুর থানার পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। গঙ্গারামপুর থানার পুলিসের সাব-‌ইন্সপেক্টর ওয়াইজুল হককে নিয়ে সেখানে যান। ওয়াইজুল হক জানান, মেয়ের বাবা বুধু রায়কে প্রথমে বাল্য বিবাহের কুফল বোঝানো হয়। নাবালিকা মেয়ের বিয়ে দিলে মেয়ের বাবার জেল ও জরিমানা দুটোই হতে পারে। এছাড়াও মেয়ে রুপশ্রীর টাকা থেকেও বঞ্চিত হবে বলে বোঝানো হয়। এরপরেই তারা বিয়ে না দেবার সিদ্ধান্ত নেন। সেইমতো মেয়ের বাবাকে দিয়ে ১৮ বছরের কম বয়সি মেয়ের বিয়ে না দেবার মুচলেকা লিখিয়ে নেওয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। নাবালিকা মেয়ের বিয়ে রুখে দেওয়ায় প্রশাসন খুশি।হিন্দুস্থান সমাচার/অজয়/সঞ্জয়
image