Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, नवम्बर 19, 2018 | समय 20:48 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বিসর্জনেও শব্দবাজি রক্ষার চ্যালেঞ্জ পুলিশের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Nov 8 2018 9:19PM
বিসর্জনেও শব্দবাজি রক্ষার চ্যালেঞ্জ পুলিশের
কলকাতা, ৮ নভেম্বর (হি.স.): কালীপুজো ও দেওয়ালির রাতে শব্দবাজির তাণ্ডব রুখতে হার মেনেছে কলকাতা পুলিশ । তাই বিসর্জনের সময়ও যাতে শব্দবাজি না ফাটানো হয়, এবার সেটাই পুলিশের কাছে চ্যালেঞ্জ । বুধবার রাত থেকেই শুরু হয়েছে বিসর্জন । বাড়ির কিছু ঠাকুর বিসর্জন হলেও বেশিরভাগ বারোয়ারি পুজোর বিসর্জনই হয়নি । বৃহস্পতিবার থেকে বারোয়ারি পুজো উদ্যোক্তারা কালীঠাকুর বিসর্জন দিতে শুরু করবেন । শনিবার পর্যন্ত বিসর্জন দেওয়া যাবে । বিসর্জনকে কেন্দ্র করে যাতে আইন ও শৃঙ্খলার সমস্যা না হয়,তার জন্য শহরের গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায় থাকছে পুলিশের ২৫৫টি পিকেট । মূলত তারা শোভাযাত্রা গুলোর ওপর নজরদারি চালাবে । বিসর্জনের জন্য গঙ্গার প্রত্যেকটি ঘাটেও রাখা হয়েছে বিশেষ ব্যবস্থা । ২৯টি ঘাটে থাকছে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট গ্রুপের বিশেষ টিম । থাকছে ডুবুরিও । বিসর্জনের সময় কেউ যদি স্রোতে ভেসে যান, তাঁকে যাতে সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধার করা যায়, সেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ । কালীপুজোর বিসর্জনেও পুলিশের মূল নজর শব্দবাজির দিকে । শোভাযাত্রায় ডিজে দেখলেই আটকাবে পুলিশ । ইতিমধ্যেই যাঁরা ডিজে ভাড়া দেন, তাঁদের প্রত্যেককে সতর্ক করেছেন সংশ্লিষ্ট থানার অফিসাররা । তাঁরা যাতে কালীপুজোর বিসর্জনের সময় কোনও পুজো উদ্যোক্তাকে ডিজে ভাড়া না দেন, সেই বিষয়টি তাঁদের জানানো হয়েছে । বিসর্জনের শোভাযাত্রায় ডিজে থাকলে সেই পুজো উদ্যোক্তার বিরুদ্ধেই আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে । বিসর্জনের সময় কোনওমতেই ৯০ ডেসিবেলের উপর বাজি ফাটাতে দেওয়া হবে না । সেই ক্ষেত্রে আলোর বাজির উপর বিশেষ রাশ থাকছে না । এর আগেও দেখা গেছে, কিছু পুজো উদ্যোক্তারা বিসর্জনের শোভাযাত্রায় সঙ্গে লুকিয়ে শব্দবাজি নিয়ে আসেন । সুযোগ পেলে ফাটাতে শুরু করে চকোলেট বোমা, কালীপটকা, দোদমা । বৃহস্পতিবার লালবাজারের এক পদস্থ কর্তা জানান,বিসর্জনের সময় শব্দবাজি বরদাস্ত করা হবে না । তাই প্রত্যেকটি শোভাযাত্রার ওপরই রাখা হবে নজর । অনেক সময় বড় রাস্তায় শব্দবাজি ফাটানো না হলেও ভিতরের রাস্তাগুলোতে শব্দবাজি ফাটানোর চেষ্টা হয় । তাই প্রত্যেকটি থানার টহলদার গাড়ির নজর থাকবে সেদিকে । দীপাবলিতে রাত আটটা থেকে দশটার বাইরে আতশবাজি ফাটানো নিষিদ্ধ করেছিল সুপ্রিমকোর্ট । যদিও বিসর্জনের ক্ষেত্রে সেই ধরনের কোনও নির্দেশ নেই । কিন্তু শোভাযাত্রায় আতশবাজি পোড়ানো ঘিরে যাতে কোনও সমস্যা সৃষ্টি না হয়, পুলিশের নজর থাকছে সেদিকেও । হিন্দুস্থান সমাচার / হীরক/সঞ্জয়
image