Hindusthan Samachar
Banner 2 बुधवार, मार्च 27, 2019 | समय 02:56 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

নাগরিকত্ব সং বিল পাশ হওয়ার পর এনআরসি দফতরে তালা সাঁটার সুপারিশ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী গগৈয়ের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 9 2019 8:39PM
নাগরিকত্ব সং বিল পাশ হওয়ার পর এনআরসি দফতরে তালা সাঁটার সুপারিশ প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী গগৈয়ের
গুয়াহাটি, ৯ জানুয়ারি, (হি.স.) : নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ হওয়ার পর গুয়াহাটিতে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) দফতরে তালা সাঁটার সুপারিশ করেছেন প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তথা বরিষ্ঠ কংগ্রেস নেতা তরুণ গগৈ। আজ এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে এভাবেই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতা করেছেন সাবেক মুখ্যমন্ত্রী গগৈ। স্বভাবসুলভ ভাষায় গগৈ বলেন, বিজেপি দল এখন বাংলাদেশিদের দল হয়ে গেছে। দুমুখি নীতি নিয়েছে বিজেপি। লোকসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পাশ করিয়ে বিভেদের সৃষ্টি করেছে কেন্দ্ৰের মোদী সরকার। ধৰ্মের নামে অসমকে ভাগ করেছে বিজেপি। অসম চুক্তিতে ধৰ্মের নামে বিদেশি চিহ্নিত করার কথা উল্লেখ নেই। এই ভারত এখনও ধৰ্মনিরপেক্ষ দেশ। সাবেক মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেন, এই বিল অসমকে সামাজিক, অৰ্থনৈতিকভাবে ধ্বংস করে দেবে। রাজ্যসভায় বিলের বিরুদ্ধে সর্বশক্তি দিয়ে লড়াই করবে কংগ্রেস। বিল যাতে রাজ্যসভায় পাশ না হয় সে জন্য যতরকম বিরোধিতা করা দরকার তা তাঁর দল কংগ্রেস করবে বলে জানান প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী। বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলকে কেন্দ্র করে অসম অশান্ত হয়ে উঠছে। অসম অশান্ত হলে বিদেশি রাষ্ট্ৰ এর সুবিধা নেবে। কতিপয় বুদ্ধিজীবী কর্তৃক উত্থাপিত স্বাধীন অসম দাবি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে তিনি এর বিরোধিতা করেন বলে জানান। বলেন, স্বাধীন অসম রাজ্যের ভালো করবে না। এককালের চোখের মণি তাঁর মন্ত্রিসভার প্রভাবশালী মন্ত্রী তথা বর্তমান বিজেপি নেতা ও মন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মাকে বরাবরের মতো আজও কটাক্ষ করেছেন তরুণ গগৈ। তিনি বলেন, হিমন্তবিশ্ব আগে ছিলেন মুসলমান প্ৰিয়, এখন আচমকা তাঁর হিন্দু-প্রীতি হয়েছে। তিনি ফের যে কোনও সময় কংগ্রেসে প্রত্যাবর্তন করতে পারেন বলেও তাৎপৰ্যপূৰ্ণ চুটকি কেটেছেন তরুণ গগৈ। মুখ্যমন্ত্রী সৰ্বানন্দ সনোয়াল সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে বলেন, তাঁকে জাতীয় নায়ক উপাধি দেওয়া ভুল হয়েছিল। এই উপাধির যোগ্য নন সর্বানন্দ। এআইইউডিএফ-প্রধান বদরউদ্দিন আজমলকেও ছাড়েননি প্রবীণ কংগ্রেস নেতা গগৈ। বলেন, আজমলকে তো বিজেপিই জল দিয়ে জীবিত রেখেছে। নইলে কোনদিন উড়ে যেতেন বদরউদ্দিন এদিকে অসম চুক্তি সম্পর্কে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, ৬ নম্বর দফা কাৰ্যকর করতে কোনও সমিতির প্রয়োজন নেই। এমনিতেই তা কার্যকর করতে পারে সরকার। সমিতি গঠন করে অসমিয়াদের মন গলানোর চেষ্টা করছেন নরেন্দ্র মোদী। তাছাড়া, অসমের ছয় জনগোষ্ঠীকে জনজাতির স্বীকৃতি দেওয়ার আগে সংবিধান সংশোধনের দরকার বলেও জানান তিনি। হিন্দুস্থান সমাচার / এসকেডি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image