Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, मार्च 19, 2019 | समय 20:23 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

আপডেট : ময়নায় খাল থেকে উদ্ধার নিখোঁজ যুবকের মৃতদেহ, বিক্ষোভের মুখে পুলিশ

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 10 2019 5:22PM
আপডেট : ময়নায় খাল থেকে উদ্ধার নিখোঁজ যুবকের মৃতদেহ, বিক্ষোভের মুখে পুলিশ
তমলুক, ১০ জানুয়ারি (হি.স.): পূর্ব মেদিনীপুরের ময়না থানার অন্তর্গত গড় ময়নায় খাল থেকে উদ্ধার হল নিখোঁজ যুবকের মৃতদেহ| মৃত যুবকের নাম হল, সোমনাথ বেরা (২৬)| চলতি মাসের ২ তারিখ কলকাতা থেকে গড় ময়নার বাড়িতে ফিরছিলেন পেশায় ছাপাখানার কর্মী সোমনাথ বেরা| শ্রীরামপুর বাস থেকে নেমে টোটোয় চড়ে বাড়ি ফেরার পথে, রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যান সোমনাথ| সেই দিন থেকেই তাঁর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না| অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ি থেকে কিছুটা দূরে খাল থেকে উদ্ধার হয় সোমনাথের দেহ| সোমনাথ নিখোঁজ হওয়ার পর থেকেই পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ উঠছিল। রহস্যজনক ভাবে এলাকার যুবক সোমনাথ বেরা নিখোঁজ হয়ে যাওয়ার পর তদন্তে পুলিশের মাত্রা ছাড়া গড়িমশিতে হতবাক হয়ে পড়েন ময়নার বাসিন্দারা। বৃহস্পতিবার সকালে গড় ময়নায় সোমনাথের বাড়ি থেকে কিছু দূরের একটি পানা ভর্তি খালে ভেসে ওঠে তাঁর মৃতদেহটি। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, দেহটিকে সদ্য কেউ টেনে হিঁচড়ে এই জায়গায় ফেলে গিয়েছে। যা শ্রীকন্ঠার কাঁসাই নদী থেকে অনেকটাই দূরে। এলাকার বাসিন্দাদের অভিযোগ, এই ঘটনায় অপরাধীদের শুধু আড়াল করার চেষ্টাই নয়, পুরো তদন্তে চূড়ান্ত ঢিলেমি দিচ্ছে ময়না থানা। কারণ, অপরাধী যদি দাবি করে থাকে দেহটি কাঁসাইয়ে ভাসিয়ে দিয়েছে, সেই ভিত্তিতে যদি পুলিশ দিনভর ডুবুরি ও স্পিড বোট নিয়ে নদীতে তল্লাশি করল, তাহলে দেহটি গড় ময়নার খালে এসে পৌঁছল কিভাবে। গ্রামবাসীরা এলাকায় মাইকিং করে জানিয়ে দিয়েছিল, মৃতদেহ উদ্ধার না হলে তাঁরা ময়নাকে বৃহস্পতিবার থেকে স্তব্ধ করে দেওয়া হবে। অবশেষে দেহটি খালে উদ্ধার হওয়ায় এলাকাবাসীরা পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন। স্থানীয় বাসিন্দারা সাফ জানাচ্ছেন, পুলিশ অপরাধীদের সঙ্গে অত্যন্ত নমনীয় ভাবে ব্যবহার করেছে। তা নাহলে কেন তাঁরা সত্য প্রকাশ করছে না দিনের পর দিন। গত প্রায় এক সপ্তাহ ধরেই এলাকার বাসিন্দারা দাবি জানিয়ে এসেছিলেন, এলাকার টোটো চালক শেখ আনসার ও তাঁর সঙ্গী এই খুনের ঘটনায় জড়িত। কিন্তু পুলিশ কখনওই তাঁদের জিজ্ঞাসাবাদ করার প্রয়োজন বোধ করেননি। একটি তরতাজা যুবকের খুনে কেন পুলিশের এমন গড়িমশি তা নিয়েই ক্ষোভে ফুঁসছে এলাকার বাসিন্দারা। তাই খালে দেহ উদ্ধারের পরেই ক্ষোভের ফেটে পড়েন। এদিন সকাল থেকে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে অবরুদ্ধ করে দেওয়া হয় ময়নার যোগাযোগ ব্যবস্থা। পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধারে গেলে গ্রামবাসীরা বাধা দেয়। মহিলা, পুরুষরা তাঁদের ঝাঁটা, লাঠি হাতে তেড়ে যান। গ্রামবাসীদের দাবি, মৃতদেহটিকে গত রাতেই কেউ টেনে এনে খালে ফেলেছে, যার চিহ্ন খাল পাড়ে স্পষ্ট দেখা যাচ্ছে বলে এলাকাবাসীর দাবী। পদস্থ এক পুলিশ কর্তা জানিয়েছেন, গত ২ জানুয়ারি কলকাতা থেকে ময়না থানার অন্তর্গত গড় ময়নার বাড়িতে ফিরছিলেন পেশায় ছাপাখানার কর্মী সোমনাথ বেরা| শ্রীরামপুর বাস থেকে নেমে টোটোয় চড়ে বাড়ি ফেরার পথে, রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ হয়ে যান সোমনাথ| সেই দিন থেকেই তাঁর কোনও খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না| পরিবারের অভিযোগ, টোটো চালক শেখ আনসারের সঙ্গে শেষবার দেখা যায় সোমনাথকে| এই ঘটনার তদন্তে নেমে গত ৬ জানুয়ারি গ্রেফতার করা হয় শেখ আনসারকে| আনসারকে জেরা করে তদন্তকারীরা জানতে পারেন, শ্বাসরোধ করে খুনের পর সোমনাথের দেহ শ্রীকণ্ঠার কাছে কংসাবতী নদীতে ফেলে দেওয়া হয়| ডুবুরি দিয়ে নদীতে তল্লাশি চালিয়েও সোমনাথের দেহের কোনও খোঁজ পাওয়া যায়নি| অবশেষে বৃহস্পতিবার সকালে বাড়ির পাশেই খাল থেকে উদ্ধার হয় সোমনাথের দেহ| প্রাথমিক তদন্তের পর পুলিশের অনুমান, এই হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আরও কয়েকজন জড়িত রয়েছে| এদিকে, এদিন দেহ উদ্ধার করতে গেলে বিক্ষোভের মুখে পড়তে হয় পুলিশকে| স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য শোনার পর, পুলিশ তদন্তের আশ্বাস দিলে ক্ষুব্ধ জনতা শান্ত হয়| হিন্দুস্থান সমাচার/ রাকেশ/ অসিত /সোনালি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image