Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 00:00 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ভোটে ‘ভিভিপ্যাট’ নিয়ে জনমানসে নিশ্চয়তা আনতে জেলায় জেলায় শুরু হবে শিবির

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 10 2019 5:35PM
ভোটে ‘ভিভিপ্যাট’ নিয়ে জনমানসে নিশ্চয়তা আনতে জেলায় জেলায় শুরু হবে শিবির
কলকাতা, ১০ জানুয়ারি (হি. স.): ভোটে স্বচ্ছতার ব্যাপারে জনমানসে নিশ্চয়তা আনতে প্রচার অভিযানে নামছে নির্বাচন কমিশন। জেলায় জেলায়, এমনকি বিভিন্ন এলাকায় চলবে এই অভিযান। কারচুপির আশঙ্কা রুখতে এবার ১০০ শতাংশ ভোট হবে ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট সহযোগে। ইভিএম (ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন) বা বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্র হল বোতাম টিপে ভোটদানের যন্ত্র। আর ভিভিপ্যাট (ভোটার ভেরিফায়েব্‌ল পেপার অ়ডিট ট্রেল) হল সেই যন্ত্র, যা দিয়ে ভোটদাতার ভোট নির্দিষ্ট প্রার্থীর ঘরে গেল কি না, তা যাচাই করা যায়। ইভিএম মেশিনের সঙ্গে এই ট্রেইলিং মেশিনকে জুড়ে দেওয়া হবে। এই মেশিন থেকে একটি ছোট কাগজের স্লিপ বার হয়ে ব্যালট বাক্সের মত একটি বাক্সে জমা হয়ে যাবে বলে জানানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার আরিজ আফতাব এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ খবর জানিয়ে বলেন, “ভোটদাতার রায় ঠিকমত যন্ত্রে পড়ল কি না, তা তিনি ভিভিপ্যাটে সাত সেকেন্ড দেখার সুযোগ পাবেন। পরে প্রশ্ন বা তর্ক হলে এই কাগজের স্লিপ দিয়ে প্রমাণ করা যাবে কাকে তিনি ভোট দিলেন।’’ রাজ্যের প্রায় ৭৮,৮০০ ভোটকেন্দ্রের প্রতিটিতেই থাকবে ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট। এ দিন তিনি হাতেকলমে সাংবাদিকদের এর প্রক্রিয়া দেখান। বলেন, “এর পর বিভিন্ন অঞ্চলে বিশেষ শিবির করে মানুষকে এর কার্যকারিতা বোঝানো হবে।" কমিশনের কর্তাদের মতে, লোকসভা নির্বাচনে সব বুথেই ইভিএমের সঙ্গে থাকবে ভিভিপ্যাট। তাই আগেই জেলাশাসকদের হাতেকলমে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ভোট হওয়ার কথা নতুন ‘ভার্সন’-এর ‘এম-থ্রি’ ইভিএমে। ভোট পরিচালকদের তার খুঁটিনাটি জানা প্রয়োজন। রাজ্যের বিভিন্ন জেলার জন্য ‘এম-থ্রি’ ভার্সানের ইভিএম এসে গিয়েছে। কাগজের ব্যালট ফেরানোর দাবিতে সরব হয়েছে বিরোধী শিবির। তারই মধ্যে ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট যন্ত্রের ব্যাপারে জেলাশাসকদের হাতেকলমে প্রশিক্ষণ দেওয়ার ব্যবস্থা করে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। কমিশনের বহু কর্তার মতে, ইভিএম নিয়ে প্রশিক্ষক হিসেবে কমিশন-কর্তাদের রাজ্য সফর এবং জেলাশাসকদের প্রশিক্ষণের আয়োজন এই প্রথম হয়েছে। বিভিন্ন সময়ে ইভিএম নিয়ে কারচুপির অভিযোগ করেছেন বিরোধীরা। সেই অভিযোগও নস্যাৎ করে দিয়েছেন দেশের মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। তবে তিনি জানান, ইভিএমের পরিচালকদের কখনও কখনও মনঃসংযোগে ঘাটতি দেখা দেয়। এই ঘাটতির মোকাবিলা করতে নানা প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা হয়েছে। এত দিন ইভিএম আসার পরে রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসারের দফতরের কর্তারা তা পরীক্ষা করতেন। বৈদ্যুতিন ভোটযন্ত্রগুলি পাঠিয়ে দেওয়া হত জেলায়। সেখানেই প্রশিক্ষণ হত। এ রাজ্যে গত সেপ্টেম্বর মাসে জেলাশাসকদের ইভিএমের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। প্রশিক্ষণ দিতে আসেন কমিশনের আন্ডার সেক্রেটারি স্তরের কর্তারা। ছিলেন ইভিএম এবং ভিভিপ্যাট প্রস্তুতকারক সংস্থা ইলেকট্রনিক্স কর্পোরেশন অব ইন্ডিয়া লিমিটেড (ইসিআইএল) এবং ভারত ইলেকট্রনিক্স লিমিটেড (বেল)-এর ইঞ্জিনিয়াররাও। প্রশিক্ষণের পাশাপাশি একে ‘ফার্স্ট লেভেল অব চেকিং’ বলে কমিশন। হিন্দুস্থান সমাচার/ অশোক / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image