Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, जनवरी 19, 2019 | समय 19:40 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

নদিয়া জেলার নেতাদের কড়া বার্তা তৃণমূল সুপ্রিমোর

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 10 2019 7:44PM
নদিয়া জেলার নেতাদের কড়া বার্তা তৃণমূল সুপ্রিমোর
কৃষ্ণনগর, ১০ জানুয়ারি (হি.স.) : লোকসভা নির্বাচনের আগে দলের অন্দরে গোষ্ঠীকোন্দল কোনওভাবে বরদাস্ত করা হবে না বলে তৃণমূল কংগ্রেসের নদিয়া জেলার নেতাদের এমনই বার্তা দিলেন তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার কৃষ্ণনগরে কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিলান্যাস করতে এসে এক সভায় জেলার নেতাদের উদ্দেশ্যে কড়া বার্তা দিলেন তিনি। নদিয়ায় গিয়ে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। প্রশাসনিক থেকে দলীয় বৈঠক, সর্বত্র নেতাদের সতর্ক করে দিলেন তিনি। এর আগে শান্তিপুরের দুই যুযুধান নেতা, পুরসভার চেয়ারম্যান অজয় দে ও বিধায়ক অরিন্দম ভট্টাচার্যকে নাম করে বার্তা দেন তিনি। এদিন বার্তা দিয়ে বলেন, এখনই শুধরে না নিলে দলে সমস্যায় পড়তে হবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘তোমরা নিজেরা শোধরাও। আমি কিন্তু রাফ অ্যান্ড টাফ। আমি সব খবর পাই।’ জানা গিয়েছে, দলের জেলা সভাপতি গৌরীশংকর দত্তর কাজ নিয়ে এদিন ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। মন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাসের কথাও বাদ দেননি তিনি। যুব সভাপতি তথা বিধায়ক সত্যজিত্ বিশ্বাসের বিরুদ্ধে সরাসরি নেত্রী ক্ষোভ উগরে দেন। তাকে নির্দেশ দেন লক্ষ্মণ ঘোষকে ব্লক সভাপতি করার জন্য। নাকাশিপাড়ার বিধায়ক কল্লোল খানের এলাকায় বিজেপির বাড়বাড়ন্ত নিয়ে বিধায়ককে সতর্ক করে দেন। তাঁকে জনসংযোগ বাড়ানোর পরামর্শ দেন দলনেত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন স্পষ্ট জানিয়ে দেন, দলে কোনও গোষ্ঠীবাজি বরদাস্ত করবেন না। দলের পুরনো লোকজনকে সম্মান করতে হবে বলেও দলীয় বৈঠকে সাফ জানিয়ে দেন। একদিকে দলের সাংসদ সৌমিত্র খান বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, আর অন্যদিকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে আরেক সাংসদ অনুপম হাজরাকে। জানা গিয়েছে, অনুপম হাজরাও বিজেপির দিকে পা বাড়িয়ে আছেন। এরই মধ্যে দলের দুই নেতাকে হুঁশিয়ারি দিয়ে দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকারান্তে স্বীকার করে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন বৈঠকে ছিলেন বীরভূমের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল, সাংসদ তাপস মণ্ডল, জেলার বিধায়করা ছাড়াও অন্যান্য নেতৃত্ব। প্রায় পঞ্চাশ মিনিট দলীয় বৈঠক হয়।হিন্দুস্থান সমাচার/ সঞ্জয়
image