Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, जनवरी 19, 2019 | समय 14:24 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ডায়াবিটিস নিয়ে ভাববে ঋতুপর্ণের জীবন নিয়ে তৈরি 'সন্ধের পাখি'

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 10 2019 9:16PM
ডায়াবিটিস নিয়ে ভাববে ঋতুপর্ণের জীবন নিয়ে তৈরি 'সন্ধের পাখি'
কলকাতা, ১০ জানুয়ারি (হি.স.) : ২০১৩-র ৩০ মে দিনটিতে নক্ষত্র পতন ঘটেছিল টলি পাড়ার । সেই নক্ষত্র ছিলেন একাধারে পরিচালক আবার অভিনেতাও । তিনি হলেন ঋতুপর্ণ ঘোষ । তবে তাঁর মৃত্যুর কারণ নিয়ে কাটাছেঁড়া হয়েছে প্রচুর । কিন্তু তার নেপথ্য ছিল ডায়াবিটিস । এই মিষ্টি অসুখই কুরে কুরে খেয়েছিল ঋতুপর্ণের শরীরকে । পরিণতি ঘটল অকালমৃত্যু । তবে, তা-ও কি মানুষ ডায়াবিটিস নিয়ে যথেষ্ট সচেতন হয়েছেন । তাই দর্শকদের সচেতনতার জন্য ঋতুপর্ণের জীবন নিয়ে তৈরি হল ফিচারধর্মী ছবি ''সন্ধের পাখি''(বার্ড অফ ডাস্ক)। ছবির পরিচালনা করেছেন ঋতুপর্ণের এক সময়ের সহযোগী সঙ্গীতা দত্ত । বৃহস্পতিবার নন্দনে প্রিমিয়ার শো হল ''বার্ড অফ ডাস্ক'' -এর । মূলত ছবিটির প্রচারকে কাজে লাগিয়ে এই অসুখের বিষয়ে মানুষকে সচেতন করতে চাইছে ডায়াবিটিস অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড ইউ নামের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা । চিকিৎসকরা আমজনতাকে মনে করিয়ে দিতে চাইছেন ডায়াবিটিস অসুখের পরিনতি কি । প্রয়াত পরিচালকের জীবন নিয়ে তৈরি এই দ্বিভাষিক তথ্যচিত্রের সঙ্গে তাই চ্যারিটেবল পার্টনার হিসেবে বেনজির গাঁটছড়া বেঁধেছে ডায়াবিটিস অ্যাওয়ারনেস অ্যান্ড ইউ নামের এক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা । ''সন্ধের পাখি'' নামের এই ছবি ইতিমধ্যেই জিতে নিয়েছে একাধিক আন্তর্জাতিক পুরস্কার । শিকাগো ফিল্ম ফেস্টিভালে দ্বিতীয় সেরার পুরস্কার এবং নিউ ইয়র্ক ফিল্ম ফেস্টিভালে সেরা তিন ছবির মধ্যে ঠাঁই পাওয়া এ ছবি আগামীকাল মুক্তি পাচ্ছে এই দেশে । বৃহস্পতিবার ''সন্ধের পাখি'' (বার্ড অফ ডাস্ক)-র প্রিমিয়ার শো হল । আর আগামীকাল শুক্রবার থেকে নন্দন-২ প্রেক্ষাগৃহে ছবিটি দেখতে পাবেন দর্শকরা । ছবির পরিচালক সঙ্গীতা বলেন, ''এই ছবি দেখলে ঋতুকে নতুন করে আবিষ্কার করবে মানুষ''। তিনি অবশ্য ঋতুপর্ণকে দেখেছেন খুব কাছ থেকে । কী ভাবে নিজের শরীর-স্বাস্থ্যকে অবহেলা করে ধীরে ধীরে ঋতুপর্ণ এগিয়ে গিয়েছেন শেষের পথে, তাও চাক্ষুষ করেছেন সঙ্গীতা । তাই পরিচালকের মাথায় ঋতুপর্ণকে নিয়ে ডকু-ফিচার লেখা ও পরিচালনার কথা স্বাভাবিক ভাবেই এসেছে । ঋতুপর্ণের চিকিৎসক দেবাশিস বসু অবশ্য এই ছবির মাধ্যমে ডায়াবিটিস সচেতনতার বিষয়টি উস্কে দিতেই বেশি আগ্রহী । তাঁর কথায়, ''আর কোনও ঋতুপর্ণকে যেন অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবিটিসের জন্য না-হারাতে হয়''। ''ডে'' নামের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সভাপতি তিনিই । তাই এ ছবিকে সচেতনতার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করায় খামতি রাখতে চায় না ওই সংস্থা । ডে-র সম্পাদক ইন্দ্রজিৎ মজুমদার বলছেন, ''দেশে সাত কোটির বেশি মানুষ ডায়াবিটিসের শিকার । কলকাতাতেও অ্যাডাল্ট পপুলেশনের ১২ শতাংশ এ অসুখে ভোগেন । অথচ অর্ধেকের বেশি মানুষ জানেই না যে তার রোগটা রয়েছে । সচেতনতাই বাঁচাতে পারে’। দেবাশিসের আক্ষেপ, ''কত কী বলেছি । কোনও কথা শুনত না ঋতুদা । লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য যে হরমোন থেরাপি করতে হত, তার ধকলও ডায়াবিটিসের উপর পড়েছ মারাত্মক ভাবে । অথচ শেষের দিকে প্রবল ভাবে বাঁচতে চেয়েছিল । কিন্তু তখন অনেক দেরি হয়ে গিয়েছ’। তাই তিনি চান, ''সন্ধের পাখি''-র মাধ্যমে লোকে বুঝুক, গুরুত্ব না-দিলে জীবনের থেকে কী নির্মম মাসুল নেয় ডায়াবিটিস । ইন্দ্রজিৎ জানাচ্ছেন, প্রয়াত পরিচালকের মৃত্যুর নেপথ্যে সবচেয়ে বড় ভূমিকা ছিল অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবিটিসের । তাই তাঁর আক্ষেপ, ঋতুপর্ণ সচেতন হলে এ ভাবে ঘুমের মধ্যে যন্ত্রণাহীন হার্ট অ্যাটাকে প্রাণ হারাতেন না । দেবাশিসের আক্ষেপ, ''কত কী বলেছি। কোনও কথা শুনত না ঋতুদা । লিঙ্গ পরিবর্তনের জন্য যে হরমোন থেরাপি করতে হত, তার ধকলও ডায়াবিটিসের উপর পড়েছে মারাত্মক ভাবে । অথচ শেষের দিকে প্রবল ভাবে বাঁচতে চেয়েছিল । কিন্তু তখন অনেক দেরি হয়ে গিয়েছ।'' তাই তিনি চান, ''সন্ধের পাখি''র মাধ্যমে লোকে বুঝুক, গুরুত্ব না-দিলে জীবনের থেকে কী নির্মম মাসুল নেয় ডায়াবিটিস । হিন্দুস্থান সমাচার / পায়েল / হীরক
image