Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, मार्च 21, 2019 | समय 16:09 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

খুব শীঘ্রই রাজ্যের আগুন নিভে যাবে, দাবি বিটিসি-প্রধান হাগ্রামার

By HindusthanSamachar | Publish Date: Jan 10 2019 9:54PM
খুব শীঘ্রই রাজ্যের আগুন নিভে যাবে, দাবি বিটিসি-প্রধান হাগ্রামার
ওদালগুড়ি (অসম), ১০ জানুয়ারি, (হি.স.) : অখিল গগৈয়ের হাতে কোনও কাজ নেই, তাই রাজ্যে আগুন লাগানোর কাজ করছেন। এই আগুন খুব শীঘ্রই নিভে যাবে। মন্তব্য বডোল্যান্ড টেরিটরিয়াল কাউন্সিল (বিটিসি)-এর প্রধান তথা রাজ্যে বিজেপিশরিক বডোল্যান্ড পিপলস ফ্রন্ট (বিপিএফ)-সভাপতি হাগ্ৰামা মহিলারির। আজ বৃহস্পতিবার এখানে সাহিত্য সভা চত্বরে সুধাকণ্ঠ ভূপেন হাজরিকার পূৰ্ণ অবয়ব প্ৰতিমূৰ্তি উন্মোচন করতে এসেছিলেন হাগ্রামা মহিলারি। সে সময় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল সম্পর্কিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে স্বভাবসুলভ ভাষায় এভাবে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিটিসি-প্রধান। এ উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বক্তব্য পেশ করতে গিয়ে হাগ্রামা বলেন, ‘বিটিসি-র অন্তর্গত তিন জেলা যথাক্ৰমে কোকরাঝাড়, চিরাং এবং বাকসায় পরিষদের তহবিল থেকে স্থাপন করা হবে ড. ভূপেন হাজরিকার একটি করে পূৰ্ণ অবয়ব প্ৰতিমূৰ্তি। ভূপেন হাজরিকা তাঁর রচিত সংগীতের মাধ্যমে অসমিয়াদের বিশ্ববাসীর সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন।’ রাজ্য সরকারকে অসমের প্ৰতিটি সাহিত্য সভায় আগের চেয়ে আরও বেশি অবদান রাখার আহ্বান জানান হাগ্ৰামা মহিলারি। প্রদত্ত ভষণেই হাগ্রামা বলেন, নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল-এর বিরুদ্ধে রাজ্য ব্যাপী যে আগুন লেগেছে, সেই আগুন খুব কমদিনের মধ্যে আগামী ১৫ দিনের মধ্যে নির্বাপিত হয়ে যাবে। মানুষ বুঝতে পারবেন এই বিল-এ আসলে কী আছে। অসমকে রক্ষা করতেই যে বিল পাশ করা হচ্ছে তা বোঝবেন জনসাধারণ। তিনি বলেন, প্ৰতিবাদী দল-সংগঠনের সঙ্গে সরকার ইতিবাচক আলোচনা করছে না। সেজন্য এই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। এই সমস্যা সমাধানের রাস্তা আছে। তাই খুব শীঘ্রই তা সমাধান হয়ে যাবে বলে দাবি করেছেন হাগ্রামা। তিনি বলেন, বিষয়টি রাজনীতির মারপ্যাঁচে ঢোকে গেছে। এ থেকে বের করে আনতে হবে সম্মিলিতভাবে। এ প্রসঙ্গে, সব দল-সংগঠনকে শান্তিপূৰ্ণভাবে তাঁদের প্ৰতিবাদ সাব্যস্ত করার আহ্বান জানিয়ে তিনি আন্দোলনকারীদের ওপর বীরত্ব প্রদর্শন না করতে পুলিশ প্রশাসনের কাছে অনুরোধ জানান তিনি। হাগ্ৰামা মহিলারি কৃষক মুক্তি সংগ্ৰাম সমিতির নেতা অখিল গগৈয়ের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘অখিল গগৈয়ের কোনও কাজ নেই। সব ব্যাপারে মিছামিছি মাথা গলিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়েন তিনি। এটা তাঁর অভ্যাসে পরিণত হয়েছে। হিন্দুস্থান সমাচার / অমল / এসকেডি / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image