Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, अप्रैल 25, 2019 | समय 19:55 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

জমি ফিরে পাওয়ার দাবিতে অতিরিক্ত জেলা শাসককে স্মারকলিপি

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 6 2019 7:02PM
জমি ফিরে পাওয়ার দাবিতে অতিরিক্ত জেলা শাসককে  স্মারকলিপি
ঝাড়্গ্রাম, ৬ ফেব্রুয়ারি ( হি. স.) : জমি কেনার পরেও সেই জমি খাস করা হয়েছে। বুধবার সেই জমি ফিরে পাওয়ার দাবি নিয়ে ঝাড়গ্রামের অতিরিক্ত জেলা শাসকের কাছে স্মারকলিপি জমা দিল শহরের জঙ্গলখাস এলাকার বাসিন্দারা। বাসিন্দাদের অভিযোগ জঙ্গলখাস এলাকার মানুষজনদের ক্রয় করা জমি ১৯৮১ সালে খাস করন করা হয়েছে। ফলে পরিবার গুলি যথেষ্ট বিপদে পড়েছে গিয়েছে। তাদের দাবি অবিলম্বে তাদের জমির রায়তী সত্ত্বা ফিরয়ে দেওয়া হোক।এই দাবি নিয়ে “ জমির রায়ত সত্ত্বা পুনরুদ্ধার কমিটির পক্ষ থেকে এদিন ঝাড়গ্রামের অতিরিক্ত জেলা শাসকের কাছে স্মারক লিপি দেওয়া হয়।কমিটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে তারা এই দাবি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর কাছেও জানিয়েছন। কিন্তু তা সত্ত্বেও ঝাড়গ্রাম জেলা প্রশাসন রায়ত সত্ত্বা ফিরিয়ে দেওয়ার কোন উদ্যোগ নেয় নি।এদিন তাই আবারও প্রশাসনের কাছে তাদের দাবি জানালেন। ঝাড়গ্রাম শহরের জঙ্গল খাস মৌজার ১০,১২ নম্বর ওয়ার্ড এবং নতুন বাসস্ট্যান্ড এলাকায় প্রায় বিয়াল্লিশ একর জমির জমির উপর প্রায় এক হাজার পরিবার বসবাস করেন।এই সব বাসিন্দাদের অভিযোগ ১৯৬২ সাল এবং পরবর্তী সময়ে তারা টাকা দিয়ে জমি কিনিছেলেন।তাদের বৈধ কাগজ পত্র রয়েছে। কিন্তু ১৯৮১ সালে ওই জমি খাস ঘোষনা করা হয়।আর ফলে ওই সব পরিবার গুলি দরুন সমস্যায় পড়েছেন। তাদের জামি দেখিয়ে ব্যাঙ্ক লোন নিতে পারছেন না, জামি, বাড়ি বিক্রি করতে চাইলে দাম পাচ্ছে না সহ নানা ধরনের সমস্যায় পড়েছেন।জমির রায়তি সত্ত্বা ফিরে পেতে তাই এবার আন্দোলনের পথে নেমেছেন বাসিন্দারা।জমির রায়ত সত্ত্বা পুনরুদ্ধার কমিটির আহ্বায়ক কমল দত্ত বলেন“ আমারা দুবার এই দাবি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর যখন ঝাড়গ্রাম সফরে এসেছিলেন তাঁকে দিয়েছিলাম। ইনি জেলাশাসককে দেখতে বলেছিলেন।আমাদের কাছে জামির বৈধ কাগজ পত্র রয়েছে। কিন্তু প্রশাসন কোন পদক্ষেপ নিচ্ছে না।তাই এদিন স্মারক লিপি দিয়েছি। জামির রায়ত সত্ত্বা ফিরে না পেলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনে যাব।” এই আন্দোলনের অন্যতম অংশীদার সুমিতা বসাক বলেন“ আমরা জমিটি ক্রয় করেছিলেন রয়ত জমি হিসবেই।সেখানে বাড়ি করে আমরা আছি।হঠাৎ করে ১৯ ৮১ সালে খাস ঘোষনা করা হয়।আমারা হাই কোর্টে মামলা করেছিলাম।আমাদের পক্ষে রায় রয়েছে।আমাদের পক্ষে মাহামান্য হাইকোর্টের রায় থাকা সত্ত্বেও কেন আমাদের জমির অধিকার ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে না।আর এই জন্য আমাদের এই আন্দোলন।” হিন্দুস্থান সমাচার / গোপেশ
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image