Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, फरवरी 19, 2019 | समय 22:12 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ব্যাঙ্ক জালায়াতির শিকার বারাসাতের প্রাক্তন শিক্ষক

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 7 2019 3:20PM
ব্যাঙ্ক জালায়াতির শিকার বারাসাতের প্রাক্তন শিক্ষক
বসিরহাট, ৭ ফেব্রুয়ারি (হি.স) : এটিএম জালায়াতির শিকার হন বারাসাতের বিনোদ প্রার্কের বাসিন্দা ধীরেন্দ্রনাথ ঘোষ। বারাসাত থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন তিনি। আবারও একটি রাষ্ট্রায়াত্ত ব্যাঙ্কের এটিএম প্রতারণার শিকার বারাসাতের এক প্রাক্তন শিক্ষক। তবে কোন ফোন কল করে পিন নম্বর বা অন্যান্য গুরুত্বপূর্ন নথি জেনে নয়, ডুপ্লিকেট কার্ড বানিয়ে এটিএম থেকে একবারে ৪০ হাজার টাকা প্রতারকেরা তুলে নেয় নাগপুরের ওই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কেরই একটি এটিএম থেকে। মোবাইলে এসএমএস অ্যালার্ট থাকা সত্ত্বেও আশ্চর্য জনক ভাবে ৪০ হাজার টাকা প্রতারকেরা তুলে নেবার পরেও ব্যাঙ্কের পক্ষথেকে ওই শিক্ষকের মোবাইলে কোন সূচনা দেওয়া হয়নি বলেও অভিযোগ। পরবর্তীতে পাস বই আপটুডেট করে জানতে পারেন তিনি প্রতারনার শিকার হয়েছেন। প্রতারিত প্রাক্তন ওই শিক্ষকের নাম ধীরেন্দ্রনাথ ঘোষ। তিনি বারাসাত বিধানপার্কের বাসীন্দা। প্রতারিত হয়েছেন বুঝতে পেরেই বারাসাত থানায় অভিযোগ দায়েরের পাশাপাশি তিনি ব্যাঙ্কের বিরুদ্ধেও কর্তব্যে গাফিলতির দাবি করে অভিযোগ দায়ের করেছেন। বছর ৭৫ এর ওই শিক্ষক জানান, বারাসাতের চাঁপাডালি মোড়ের কাছে অবস্থিত স্টেট ব্যাঙ্কের শাখায় তার একটি সেভিংস একাউন্ট আছে। একাউন্টটি তেমন ব্যবহার হয়না। সেই একাউন্টে ৪১,৯৭৩ টাকা ছিল। রান্নার গ্যাসের সাবসিডির টাকা ঢুকেছে কিনা সেটি দেখতে গিয়ে গত সোমবার পাস বইটি আপটুডেট করান। পাসবই আপটুডেট করিয়েই তিনি দেখেন তার একাউন্ট থেকে গত ১ ফেব্রুয়ারি ৪০ হাজার টাকা তুলে নেওয়া হয়েছে মহারাষ্ট্রের এসবিআই মেন নাগপুর ব্রাঞ্চের অধীনস্থ একটি এটিএম থেকে। ধীরেন বাবু জানান খবরের কাগজে মাঝেমধ্যেই দেখি ফোনকরে নানান অছিলায় প্রতারকেরা এটিএম কার্ডের পিন সহ অন্যান্য তথ্য জেনে নিয়ে ব্যাঙ্কথেকে টাকা তুলে নিচ্ছে। তাই সর্বদাই সজাগ থাকতাম। তাছাড়া কখনও অমন ফোন আমার কাছে বা আমার পরিবারের সদস্যদের কাছে আসেনি। তারপরেও কিকরে প্রতারনার শিকার হলাম বুঝতে পারছি না। এসএমএস অ্যালার্ট থাকা সত্ত্বেও টাকা তুলেনেওযার পরেও কিছু জানতে পারেনি। পাসবই আপটুডেট না করালেতো জানতেই পারতাম না। তবে প্রতারিত প্রাক্তন শিক্ষক ধীরেন বাবু দাবি করেন ব্যাঙ্ক ও পুলিশ মারফত তিনি জানতে পেরেছেন প্রতারকেরা অন লাইন ট্রানজেকশন করেনি, ডুপ্লিকেট কার্ড বানিয়ে এটিএম থেকে টাকা তুলেছে। সেক্ষেত্রে তিনি ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের গাফিলতিকেই দায়ী করেছেন। তবে ব্যাঙ্কের পক্ষ থেকে কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। পুলিশ সুত্রে জানানো হয়েছে মামলাটি সাইবার ক্রাইম বিভাগে পাঠানো হয়েছে, তারা ঘটনার তদন্ত করছে।হিন্দুস্থান সমাচার /পরিমল দে ।
लोकप्रिय खबरें
चुनाव 2018
image