Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, अप्रैल 22, 2019 | समय 19:35 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

প্রধান শিক্ষকের বদলি রুখতে স্কুলে তালা লাগিয়ে দিনভর বিক্ষোভ পড়ুয়া ও অভিভাবকদের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 7 2019 7:06PM
প্রধান শিক্ষকের বদলি রুখতে স্কুলে তালা লাগিয়ে দিনভর বিক্ষোভ পড়ুয়া ও অভিভাবকদের
ক্যানিং, ৭ ফেব্রুয়ারি (হি.স.) : স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বদলি রুখতে দিনভর স্কুলের দরজায় তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন স্কুলের পড়ুয়া ও তাদের অভিভাবকরা। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিং থানার মধুখালি গ্রামে। এই গ্রামে অবস্থিত মধুখালি জুনিয়র হাইস্কুল ও মধুখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক নিতাই কুমার মণ্ডলকে বদলির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলা শিক্ষা সংসদ থেকে। কিন্তু নিতাই বাবুর এই বদলির নির্দেশ মানতে নারাজ স্কুলের পড়ুয়ারা। নারাজ তাদের অভিভাবকরাও। আর সেই কারণে বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই এই স্কুলের সমস্ত ঘরের দরজায় তালা ঝুলিয়ে বিক্ষোভ দেখালেন তারা। বাধ্য হয়ে স্কুলের বাইরে সারাদিন বসে রইলেন স্কুলের সমস্ত শিক্ষকরাও। তবে আবেগের তুলনায় সরকারী নির্দেশকেই গুরুত্ব দিতে চান শিক্ষক নিতাই কুমার মণ্ডল। বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই স্কুলের প্রধান শিক্ষক নিতাই কুমার মণ্ডলের বদলি রুখতে পোস্টার, প্ল্যাকার্ড হাতে নিয়ে স্কুল প্রাঙ্গনে হাজির হয় পড়ুয়ারা। প্রিয় শিক্ষককে কিছুতেই এখান থেকে অন্যত্র যেতে দেবেন না বলে দাবী তুলে স্কুলের সমস্ত ঘরের দরজায় তালা ঝুলিয়ে দেন অভিভাবকরা। ফলে এদিন স্কুলে এসে নিতাই বাবু সহ অন্যান্য শিক্ষকরা সকলেই সারাদিন কার্যত বাইরে বসে থাকেন। বছর তেরো আগে নিতাইবাবু মধুখালী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে আসেন শিক্ষকতা করতে। কয়েক বছরের মধ্যেই তিনি এই স্কুলের প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব পান। পাশাপাশি এই প্রাইমারি স্কুল লাগোয়া তৈরি হওয়া জুনিয়র হাইস্কুলের ও ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্ব দেওয়া হয় নিতাই বাবুকে। এই স্কুলে চাকরি জীবনের প্রথম থেকেই পড়ুয়াদের মন জয় করেছেন এই শিক্ষক। মন জয় করেছেন এলাকার মানুষের। মূলত সুন্দরবনের প্রত্যন্ত এলাকার এই স্কুলে দরিদ্র পরিবারের ছেলে মেয়েরাই পড়াশুনা করে। তাদের অনেকেই বইখাতা, জামাকাপড়, জুতো কিনতে পারেন না। এমন পড়ুয়া দেখলে নিজেই তাদের জিনিষপত্র কিনে দেন এই শিক্ষক। স্কুলটির উন্নয়নের কাজ ও তিনি করেছেন কার্যত নিজের হাতে। স্কুলে পড়তে আসা পড়ুয়াদের তিনি সন্তান স্নেহে লালন পালন করেন। এ হেন শিক্ষককে তাই এই স্কুল ছেড়ে কেউই যেতে দিতে চান না। আর সেই কারণেই এই শিক্ষকের সরকারী নির্দেশিকা বদলির দাবীতে স্কুলে অনির্দিষ্ট কালের জন্য তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন পড়ুয়া ও অভিভাবকরা। এ বিষয়ে এক অভিভাবক সনাতন সরদার বলেন, “ নিতাই বাবুর মত শিক্ষক এই স্কুল থেকে চলে গেলে স্কুল বন্ধ হয়ে যাবে। ওনার ব্যবহারের জন্যই দূর দূর থেকে বাচ্চাদের এই স্কুলে পাঠান অভিভাবকরা। ওনার মত মানুষ বা শিক্ষক আমরা আগে দেখিনি। সকল পড়ুয়াদেরকেই সন্তান স্নেহে উনি ভালবাসেন। তাই ওনার বদলির অর্ডার বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আমরা স্কুলের যাবতীয় কাজ বন্ধ রাখবো”। পড়ুয়া ও অভিভাবকদের ভালবাসায় মুগ্ধ স্কুলের এই শিক্ষক নিতাই কুমার মণ্ডল। তিনি বলেন, “ ওদের সাথে অনেকদিন কাটিয়েছি। ওদের ভালবাসায় আমি মুগ্ধ, অভিভূত। তবে আমি আবেগ প্রবন হয়ে পড়লেও সরকারী নির্দেশকেই গুরুত্ব দিতে চাই”। যদিও বৃহস্পতিবার সারাদিন এই স্কুলে অচলবস্থা থাকলেও জেলা শিক্ষা সংসদ থেকে কোন ঊর্ধ্বতন আধিকারিক এদিন স্কুলে এসে এই সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করেন নি। এই সমস্যা মিটিয়ে কবে এই স্কুল স্বাভাবিক ছন্দে ফিরবে সেটাই প্রশ্ন? হিন্দুস্থান সমাচার / প্রসেনজিত
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image