Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, फरवरी 23, 2019 | समय 16:39 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বিজেপির সমর্থনে বিজয়ী হাইলাকান্দি জেলা পরিষদের সভানেত্রী ফারহানা খানমের ডিগবাজি

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 8 2019 10:10PM
বিজেপির সমর্থনে বিজয়ী হাইলাকান্দি জেলা পরিষদের সভানেত্রী ফারহানা খানমের ডিগবাজি
হাইলাকান্দি (অসম), ৮ ফেব্রুয়ারি (হি.স.) : হাইলাকান্দি জেলা পরিষদের নবনির্বাচিত সভানেত্রী ফারহানা খানম চৌধুরীকে নিয়ে রীতিমতো দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছে। বিজেপি এবং এআইইউডিএফ, দুই দলই ফরহানাকে তাদের দলের বলে দাবি করায় রাজনৈতিক মহলে তীব্র চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। হাইলাকান্দি জেলা বিজেপি নেতাদের দাবি, ফারহানা খানম তাদেরই সমর্থনে নির্বাচিত জেলা পরিষদ সভাপতি এবং তিনি তাঁদেরই আছেন এবং থাকবেনও। অন্যদিকে ফারহানা খানমের সাফ কথা, ভারতীয় জনতা পার্টির সঙ্গে তাঁর কোনও সম্পর্ক নেই। শুক্রবার হাইলাকান্দি জেলা পরিষদে দাঁড়িয়ে ফারহানা জানিয়ে দেন, তিনি এআইইউডিএফ-এর সদস্য এবং প্রার্থী হিসাবে জেলা পরিষদ সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। তাই তিনি হাইলাকান্দি জেলা পরিষদে এআইইউডিএফ-এর সভাপতি। যদিও বাস্তব ঘটনা হচ্ছে, দুদিন আগে এই ফারহানা খানম এআইইউডিএফ-এর অপর সদস্য এবং জেলা পরিষদের সভানেত্রী পদ-প্রার্থী বিধায়ক সুজাম উদ্দিন লস্করের স্ত্রী ফারহানা বেগম লস্করকে হারিয়ে জেলা পরিষদের সভানেত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন। বিজেপির চার সদস্য এবং অগপ-র এক সদস্যের সমর্থন নিয়ে এআইইউডিএফ-ছুট ফারহানা খানম মোট ছয়টি ভোট পেয়ে এক ভোটের ব্যবধানে নিজের দলেরই ফারহানা বেগম লস্করকে হারিয়ে জেলা পরিষদের সভানেত্রী নির্বাচিত হয়েছিলেন। শুধু তা-ই নয়, তিনি বিজেপি কর্মকর্তাদের সঙ্গে নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথাও বলেছিলেন। গেরুয়া দলের নেতাদের সঙ্গে ক্যামেরার সামনে ছবিও তুলেছিলেন। কিন্ত সেই ফরহানা শুক্রবার ডিগবাজি খেয়ে জানান, বিজেপির সমর্থনে তাঁর জেলা পরিষদের সভানেত্রী হওয়ার প্রশ্নই ওঠে না। তিনি তাঁর দলের আরেকজন জেলা পরিষদ সদস্যের সঙ্গে সভানেত্রী পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছিলেন। গোপন ব্যালটে ভোট হয়েছিল। তিনি সর্বাধিক ভোট পেয়ে সভানেত্রী নির্বাচিত হয়েছেন। এক্ষেত্রে বিস্ময়করভাবে তাঁর সঙ্গে বিজেপির কোনও প্রকার সম্পর্কের কথাও তিনি অস্বীকার করেন। হিন্দুস্থান সমাচার / তুতন / এসকেডি
लोकप्रिय खबरें
चुनाव 2018
image