Hindusthan Samachar
Banner 2 गुरुवार, अप्रैल 25, 2019 | समय 10:03 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

কাশিপুরে গোয়াল ঘরে ঢুকে পড়ল বেপরোয়া ডাম্পার : মৃত্যু একজন ব্যক্তির, গুরুতর আহত নাবালিকা

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 9 2019 10:47AM
কাশিপুরে গোয়াল ঘরে ঢুকে পড়ল বেপরোয়া ডাম্পার : মৃত্যু একজন ব্যক্তির, গুরুতর আহত নাবালিকা
কাশিপুর (দক্ষিণ ২৪ পরগনা), ৯ ফেব্রুয়ারি (হি.স.): ভোররাতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটল দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাশিপুরে। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গোয়াল ঘরে ঢুকে পড়ল বেপরোয়া একটি ডাম্পার, দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে একজন ব্যক্তির। এছাড়াও গুরুতর আহত হয়েছে ওই ব্যক্তির নাবালিকা মেয়ে। মৃত্যু হয়েছে একটি গোরুরও। দুর্ঘটনার পর আহত অবস্থায় দীর্ঘক্ষণ ডাম্পারটির নিচে চাপা পড়েছিল ওই নাবালিকা মেয়েটি। দু''টি ক্রেনের সাহায্যে নাবালিকাকে উদ্ধার করার পর কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শনিবার ভোররাতে দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কাশিপুর থানার অন্তর্গত শ্যামনগরে। মৃত ব্যক্তির নাম হল, মইদুল ইসলাম। গুরুতর আহত অবস্থায় কলকাতার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন মইদুল ইসলামের মেয়ে আসিফা খাতুন। ভোররাতে মর্মান্তিক দুর্ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কাশিপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনার পর থেকেই অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে হাড়োয়া রোড। পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, প্রতিদিনের মতো শনিবার ভোররাতেও গোয়াল ঘরে এসে গোরু বার করছিলেন মইদুল ইসলাম। তখন গোয়াল ঘরের বাইরে তাঁর মেয়ে আসিফ দাঁড়িয়েছিল। সেই সময় হাড়োয়ার একটি ইট ভাটা থেকে মাটি খালি করে একটি ডাম্পার লাউহাটির দিকে আসছিল। শ্যামনগর-এর কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মইদুলের বাড়িতে ঢুকে পড়ে ডাম্পারটি। নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ডাম্পারটি বাড়ির গোয়াল ঘরে ঢুকে গেলে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় মইদুল ইসলামের। মৃত্যু হয় একটি গরুরও। দুর্ঘটনার পর আহত অবস্থায় দীর্ঘক্ষণ ডাম্পারটির নিচে চাপা পড়েছিল ওই নাবালিকা মেয়েটি। দু''টি ক্রেনের সাহায্যে নাবালিকাকে উদ্ধার করার পর কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে তাঁকে। দুর্ঘটনার খবর ছড়িয়ে পড়তেই এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে কাশিপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে আসে। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনার পর থেকেই অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে হাড়োয়া রোড। পুলিশের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে স্থানীয় বাসিন্দাদের বক্তব্য, অবৈধভাবে পুলিশ এই ধরণের ডাম্পার চলার অনুমতি দেয়, তাই প্রায় দিনই ঘটছে দুর্ঘটনা। ঘটনার পর থেকে চালক ও খালাসি পলাতক। মামলা রুজু করে দুর্ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে কাশিপুর থানার পুলিশ। হিন্দুস্থান সমাচার/ প্রসেনজিৎ/ রাকেশ
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image