Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, फरवरी 19, 2019 | समय 22:34 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

আপডেট...উত্তরপূর্বের উন্নয়নে পূর্ববর্তী সরকারগুলির সদিচ্ছা ছিল না, ইটানগরে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 9 2019 4:52PM
আপডেট...উত্তরপূর্বের উন্নয়নে পূর্ববর্তী সরকারগুলির সদিচ্ছা ছিল না, ইটানগরে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী
ইটানগর, ৮ ফেব্রুয়ারি (হি.স.) : নয়া ভারত গড়তে উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে বিকশিত করতেই হবে। এবং এই পণ নিয়েই দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলেছে দেশের বর্তমান এনডিএ সরকার। আজ ইটানগরের ইন্দিরা গান্ধী পার্ক ময়দান থেকে ফের অরুণোদয়ের দেশ অরুণচলের উন্নয়ন মানে ভারতের বিকাশ বলে তাঁর স্বপ্নের কথা উদাত্ত ভাষণে বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আজ শনিবার সকালে গুয়াহাটির লোকপ্রিয় গোপীনাথ বরদলৈ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিশেষ বিমানে ডিব্রুগড়ের লীলাবতী বিমানবন্দরে অবতরণ করেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। সেখান থেকে বায়েসেনার হেলিকপ্টারে আসেন ইটানগর। এখানে বিশাল জনতার সমাবেশমঞ্চ থেকে তিনি বোতাম টিপে প্রথমে উদ্ঘাটন করেন দূরদর্শনের বহু প্রতীক্ষিত নয়া চ্যানেল ‘অরুণপ্রভা’-র। এর পর যথাক্রমে সেলা সুরঙ্গের শিলান্যাস করার পাশাপাশি অরুণাচল প্রদেশের হোলেঙি গ্ৰিনফিল্ড বিমানবন্দর এবং জটেতে নিৰ্মীয়মাণ ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন ইনস্টিটিউট (এফটিআইআই)-এর স্থায়ী ভবনের শিলান্যাস এবং ৫০টি স্বাস্থ্যকেন্দ্ৰের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। শিলান্যাস কার্যক্রমের পর সমবেত বিশাল জনতার উদ্দেশ্যে উদাত্ত ভাষণ শুরু করেন রাজ্যের নিইশি উপভাষায় সম্বোধনের মাধ্যমে। এর পরই প্রধানমন্ত্রী বলেন, আধুনিক অরুণাচল গঠন করতে সুষ্ঠু পরিকাঠামোর প্রয়োজন। এর জন্য গুচ্ছ পরিকল্পনা নিয়েছে কেন্দ্রে তাঁর এবং রাজ্যের পেমা খান্ডু সরকার। প্রধানমন্ত্রী বলেন, নিউ ইন্ডিয়া স্বপ্নের বলে উত্তরপূ্র্বে উন্নতি দ্ৰুতগতিতে চলছে। বলেন, ‘অরুণাচল প্ৰদেশ দেশের স্বাভিমান, সুরক্ষার গেটওয়ে। অরুণাচল আমার বিশ্বাসকে শক্তি দেয়, আমার সংকল্পকে অধিক শক্তিশালী করে অরুণাচল।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত পঞ্চান্ন সালে তদানীন্তন সরকারের গাফিলতির কারণে উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নয়ন হয়নি। এই অঞ্চলকে উন্নত করতে কোনও সদিচ্ছাই ছিল না বিগত সরকারগুলির। অন্ধকারের গহ্বরে ঠেলে ফেলা হয়েছিল গোটা উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে। এবার গহ্বর থেকে তুলে এই অঞ্চলকে আলোর পথে নিয়ে যেতে কেন্দ্ৰের বর্তমান সরকার তহবিল আবণ্টন এবং ইচ্ছাশক্তির কোনও ঘাটতি হতে দিচ্ছে না। ইতিমধ্যে ৪৪ হাজার কোটি টাকার অর্থসাহায্য অরুণাচল প্রদেশকে প্ৰদান করা হয়েছে, বলেন প্রধানমন্ত্রী মোদী। এছাড়া ১৩ হাজার কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্য দ্রুতগতিতে চলছে। তিনি বলেন, গত ৫৫ বছরে অরুণাচল প্রদেশকে যে অনুদান তদানীন্তন কেন্দ্রীয় সরকারগুলি দিয়েছে, গত ৫৫ মাসে সে-থেকে দ্বিগুণ তহবিল প্রদান করেছে কেন্দ্রে তাঁর সরকার। তিনি বলেন, অরুণাচলের যোগাযোগ ক্ষেত্রে আমূল পরবিৰ্তন করা হবে এবং এর কাজ ইতিমধ্যে দ্রুতগতিতে চলছে, তা রাজ্যের জনতা স্বচক্ষে দেখছেন। এখানকার নির্মীয়মাণ বিমানবন্দর থেকে এখন সরাসরি দেশের বিভিন্ন প্রান্তে স্থানীয় জনতা যাতায়াত করতে পারবেন। বাড়বে পর্যটকদের আনাগোনা। এতে অর্থনৈতিক বুনিয়াদ শক্রিশালী হবে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিগত ৫০ বছর আগে শুরু হয়েছিল এই বিমানবন্দর। পাঁচ দশক ধরে তা অব্যবহৃত হয়ে পড়েছিল। আজ যে হোলেঙি বিমানবন্দরের শিলান্যাস স্থাপন করা হয়েছে তা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের দ্বিতীয় গ্ৰিনফিল্ড বিমানবন্দর হবে। তাওয়াংকে রেল মানচিত্ৰে অন্তৰ্ভুক্ত করা হবে বলেও ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। দূরদর্শনের অরুণপ্রভা নামক চ্যানেলের শুরুয়াত করে তিনি বলেন, এই চ্যানেল অরুণাচলের জনতার জন্য ২৪ ঘণ্টা উপলব্ধ হবে। এর মাধ্যমে দুৰ্গম অঞ্চলের খবর ইত্যাদি খুব কম সময়ের মধ্যে গোটা দেশে সম্প্রচারিত হবে। এর মাধ্যমে অরুণাচলের পরম্পরা, নান্দনিক সৌন্দৰ্য্যের সঙ্গে সকলে পরিচিত হবেন। এছাড়া এফটিআইআই-এর বলে চলচ্চিত্ৰ এবং টিভি ক্ষেত্ৰে বহু মানুষ দক্ষ হবেন, এর দ্বারা দলে দলে প্ৰতিভার সৃষ্টি হবে। অরুণাচলের বিভিন্ন স্থানে যে ৫০টি স্বাস্থ্যকেন্দ্র আজ উদ্বোধন করা হয়েছে এর দ্বারা বহু মানুষ লাভবান হবেন বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, উত্তর-পূর্বাঞ্চলকে দুহাত ভরে উজার করে সম্পদ দিয়েছে প্রকৃতি। এর সদব্যবহার আমাদের করতে হবে। পূর্ববর্তী সরকারগুলি কেন প্রকৃতি প্রদত্ত সম্পদের ব্যবহার করতে পারেনি তা তাঁর মাথায় ঢুকছে না। প্রকৃতি প্রদত্ত অরুণাচলের ফুলের প্রশংসা করে এর সম্ভাবনার কথা ফের বলেছেন মোদী। বলেছেন, অরুণাচলের ফুল দেশের বাজার দখল করার যোগ্যতা রাখে। বলেন, জলের অভাব নেই অরুণাচলে। ভরপুর জল ব্যবহার করে বিদ্যুৎ তৈরি করার বিশাল প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। আজ ১১০ মেগাওয়াট জলবিদ্যুৎ প্ৰকল্পের উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। এর ট্ৰেন্সমিশন কার্য বিকাশের জন্য তিন হাজার কোটি টাকা অনুদানের কথা ঘোষণা করেছেন মোদী। এর মাধ্যমে অরুণাচলের পাশাপাশি গোটা উত্তরপূর্ব লাভ করবে পর্যাপ্ত বিদ্যুৎ পরিষেবা। তাছাড়া সৌভাগ্য প্রকল্প বলে অরুণাচলের প্ৰায় সব গ্রামে ইতিমধ্যে বিদ্যুৎ প্রদান করা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী। ভাষণে তিনি তাঁর ম্যাগনিফিকেন্ট নর্থইস্ট (Magnificent Northeast) শীৰ্ষক ট্যুইট সম্পর্কেও মন্তব্য করেছেন মোদী। বলেন, এই ট্যুইট-আহ্বানের ফলে তাঁর সহস্ৰাধিক ফলোয়ার্স রিট্যুইট করেছেন। বিভিন্ন সময়ে উত্তরপূর্ব ভ্ৰমণের আকৰ্ষণীয় ফটো তাঁর সঙ্গে শেয়ার করেছেন অসংখ্যজন। ভাষণে তিনি আয়ুষ্মান ভারত, প্ৰধানমন্ত্ৰী কৃষাণ সম্মান নিধি এবং জৈবিক কৃষিখেতের জন্য কেন্দ্ৰ পর্যাপ্ত সাহায্য প্রদান করার আশ্বাস দিয়েছেন মোদী। তিনি বলেন, ‘আমি যেখানে যে প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করি, তার উদ্বোধনও আমি করি। তাই এ-কথা বলার অবকাশ নেই যে, বিকাশের পঞ্চধারাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াই বিজেপি সরকারের মূল লক্ষ্য।’ আজকের অনুষ্ঠানে সভামঞ্চে ছিলেন রাজ্যপাল অবসরপ্ৰাপ্ত ব্ৰিগেডিয়ার ড. বিডি মিশ্ৰ, কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী কিরেন রিজিজু, মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডু, উপ-মুখ্যমন্ত্রী চাওনা মেইন বিজেপি-র রাজ্য সভাপতি তাপির গাও প্রমুখ। অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী পেমা খান্ডু। হিন্দুস্থান সমাচার / এসকেডি / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
चुनाव 2018
image