Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, अप्रैल 23, 2019 | समय 11:38 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ভাঙড়ে ডাম্পারের ধাক্কায় মৃত্যু বাবা ও মেয়ের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 9 2019 5:50PM
ভাঙড়ে ডাম্পারের ধাক্কায় মৃত্যু বাবা ও মেয়ের
ভাঙড়, ৯ ফেব্রুয়ারি (হি. স.) : নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গোয়ালঘরে ঢুকে পড়ল ডাম্পার। ডাম্পারের ধাক্কায় পিষ্ট হন বাবা ও মেয়ে। ঘটনাস্থলেই বাবা মহিদুল ইসলাম(৫৩) এর মৃত্যু হয়। গুরুতর জখম অবস্থায় আহত ছোট মেয়ে আসরিফা খাতুনকে (৭) উদ্ধার করে কলকাতার হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানেই মৃত্যু হয় তার। শনিবার সাতসকালে এই পথ দুর্ঘটনায় দুই জনের মৃত্যু কে কেন্দ্র করে তুমুল উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে ভাঙড়ের কাশিপুর থানার অন্তর্গত শ্যামনগর গ্রামে। হারোয়া রোডের শ্যামনগর মোড়ে স্থানীয় উত্তেজিত মানুষজন রাস্তায় মহিদুল ইসলামের মৃতদেহ রেখে বিক্ষোভ দেখান। ভাঙচুর করা হয় ঘাতক ডাম্পারটিকে। শনিবার সাতসকালে ভাঙড়ের কাশীপুর থানা এলাকার হাড়োয়া রোডে একটি বেপরোয়া ডাম্পার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার ডান পাশের একটি গোয়াল ঘরে হুড়মুড়িয়ে ঢুকে পড়ে। সেই সময় গোয়াল ঘরের ভিতরে ছিলেন মহিদুল ইসলাম ও তার মেয়ে আসরিফা খাতুন। কোন কিছু বোঝার আগে ডাম্পারের ধাক্কায় রক্তাক্ত অবস্থায় মাঠিতে লুটিয়ে পড়েন ওই ব্যক্তি। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় তার। এর পাশাপাশি তার মেয়ে আসরিফা খাতুনও ডাম্পারের ধাক্কায় গুরুতর জখম হয়। রক্তাক্ত অবস্থায় স্থানীয়রা তড়িঘড়ি কলকাতার এক হাসপাতালে আসরিফাকে নিয়ে যায় চিকিৎসার জন্য। সেখানে তাঁর মৃত্যু হয়। বাবা এবং মেয়ের মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়তেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন স্হানীয়রা। রাস্তায় মহিদুলের মৃতদেহ রেখে চলে পথ অবরোধ ও বিক্ষোভ। খবর পেয়ে কাশীপুর থানার পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করতে গেলে স্থানীয়রা পুলিশকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। রাস্তা অবরোধ করে রাস্তার উপরে মৃতদেহ নিয়ে বিক্ষোভে সামিল হন গ্রামের মানুষ। সকাল থেকে শুরু হওয়া বিক্ষোভ ও অবরোধ দুপুর পর্যন্ত গড়িয়ে যায়। পরিস্থিতি বেগতিক দেখে কাশীপুর থানার পাশাপাশি জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত বাহিনী ঘটনাস্থলে যায়। দুপুর একটা নাগাদ পুলিশ বিক্ষোভকারীদের বুঝিয়ে অবরোধ তুলে দিয়ে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যায় পুলিশ। এর পাশাপাশি ঘাতক ডাম্পার টিকে উদ্ধার করছে পুলিস। অবশ্য ঘটনার পর থেকেই পলাতক ঐ ডাম্পারের চালক এবং খালাসি। স্থানীয়দের অভিযোগ, পুলিশ এবং মাটি মাফিয়াদের যোগসাজসে মাঠের জমি থেকে বেআইনি ভাবে মাটি কেটে এই ডাম্পারে করে মাটি পাচার হয়। এই বেপরোয়া বেআইনি মাটি বহনকারী ডাম্পারের ধাক্কায় এর আগেও ওই রাস্তায় পথ দুর্ঘটনা একাধিকবার ঘটেছে। তারপরে ও পুলিশ কোন ব্যাবস্থা নেয়নি বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। হিন্দুস্থান সমাচার / প্রসেনজিত
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image