Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, फरवरी 19, 2019 | समय 22:11 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

প্রাক্তন মন্ত্রী যোগেশ বর্মনের জীবনাবসান

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 10 2019 3:43PM
প্রাক্তন মন্ত্রী যোগেশ বর্মনের জীবনাবসান
কলকাতা, ১০ ফেব্রুয়ারি (হি.স.): জীবনাবসান হল রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী যোগেশ বর্মনের । মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৭১ বছর । বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি অসুস্থ ছিলেন । ব্যাঙ্গালোর মণিপাল হাসপাতালে তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি । শনিবার তাঁর শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছিল । রবিবার সকাল ১১টা ১৫ মিনিট নাগাদ চিকিৎসকরা জানান, তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন । প্রয়াত যোগেশ বর্মনের স্ত্রী, এক ছেলে ও এক মেয়ে বর্তমান । যোগেশ বর্মণ ১৯৮৭ সালে আলিপুরদুয়ার জেলার ( অবিভক্ত জলপাইগুড়ি জেলা ) ফালাকাটা কেন্দ্র থেকে প্রথমবার বিধায়ক নির্বাচিত হন । ১৯৯১ সালে তিনি রাজ্যের বনমন্ত্রীর দায়িত্ব পান । ২০০৬ সালে তিনি তফসিলী জাতি, আদিবাসী ও অনগ্রসর কল্যাণ দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী হন । বিধায়ক ও মন্ত্রী হিসেবে তাঁর ভূমিকা ছিল উল্লেখযোগ্য । প্রয়াত যোগেশ বর্মন ফালাকাটার বাসিন্দা ছিলেন । এখানে একটি স্কুলের প্রধান শিক্ষক হিসেবেও তিনি দীর্ঘদিন দায়িত্ব পালন করেছেন । বাম নেতা ও রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী যোগেশ বর্মন দীর্ঘদিন ধরে লিভার জনীত রোগে আক্রান্ত ছিলেন । সম্প্রতি বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে খবর ছড়িয়েছিল, বাম আমলের এই মন্ত্রীর চিকিত্‍সার সমস্ত ভার মমতা বন্দোপাধ্যায়ের নির্দেশে বহন করছে রাজ্য সরকার । কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তা হয় নি । তৃণমূল সরকার তার চিকিৎসার সমস্ত খরচ বহন করবে জানালেও যোগেশ বর্মনের নিকটস্থদের অভিযোগ, ‘৩৭ লক্ষ টাকা অনেক দূরে থাক ৩৭ টাকাও দেয়নি সরকার । পুরোটাই মিথ্যা প্রতিশ্রুতি’। একজন প্রাক্তন মন্ত্রীর যে গুরুত্ব বা মর্যাদা পাওয়ার কথা তা রাজ্য সরকারের কাছ থেকে পাননি যোগেশ বর্মন । এসএসকেএম হাসপাতালের জেনারেল বেডে ফেলে রাখা হয়েছিল তাঁকে । আর্থিক দুর্নীতি কাণ্ডে অভিযুক্ত শাসক দলের নেতাদের মতো উডবার্ণ ওয়ার্ডের সুবিধা তো অনেক দূর সামান্য কেবিনও বরাদ্দ করা হয়নি তার জন্যে । গতরাত থেকে আজ পর্যন্ত দুবার রক্ত বমি করেন যোগেশ বর্মন । উল্লেখ্য, ব্যাঙ্গালোরের বেসরকারি হাসপাতাল থেকে তাঁর বাড়ির লোকের কাছে খবর এসে পৌঁছায় ''লিভার পাওয়া গেছে প্রতিস্থাপনের জন্যে''। যোগেশ বর্মনের নিকটস্থ আত্মীয় পরিজন এবং সিপিএমের সতীর্থরা তাই রাজ্য সরকারের ভরসায় পিজি হাসপাতালের জেনারেল বেডে ফেলে না রেখে ব্যাঙ্গালোরের মনিপাল হাসপাতালে যোগেশ বর্মনকে নিয়ে চলে যান গত শুক্রবার । লাইফ সাপোর্ট সিস্টেমে রাখা হয়েছিল রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রীকে। শেষ চেষ্টা চালাচ্ছিলেন ডাক্তাররা । মৃত্যুর সাথে লড়ছিলেন তিনি । কিন্তু তবুও শেষ রক্ষা হলনা । আজ ১১টা ১৫ মিনিট নাগাত শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি । যোগেশ বর্মণের জীবনাবসানে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু ও সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্য মিশ্র । সিপিএমের আলিপুরদুয়ার জেলা কমিটির সম্পাদক মৃণাল কান্তি রায় জানিয়েছেন, যোগেশ বর্মন সিপিএমের জেলা সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য ছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে জেলা পার্টি ক্ষতিগ্রস্ত হলো । যোগেশ বর্মনের মরদেহ সোমবার ব্যাঙ্গালোর থেকে নিয়ে আসা হবে । বিমানে বাগডোগরায় নিয়ে আসার পর ফালাকাটায় শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে । তাঁর বাড়ি ছাড়াও তিনি যে স্কুলের প্রধান শিক্ষক ছিলেন,সেখানে তাঁর মরদেহ শ্রদ্ধা জানানোর জন্য নিয়ে যাওয়া হবে । হিন্দুস্থান সমাচার / হীরক / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
चुनाव 2018
image