Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, अप्रैल 23, 2019 | समय 12:17 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

মেলার আড়ালে বিষাদ, প্রদীপের নিচেই বুঝি অন্ধকার

By HindusthanSamachar | Publish Date: Feb 11 2019 5:45PM
মেলার আড়ালে বিষাদ, প্রদীপের নিচেই বুঝি অন্ধকার
কলকাতা, ১১ ফেব্রুয়ায়ি (হি. স.) : শেষ দিনের বইমেলা। দুপুরের চড়া রোদ্দুরে ফটকের সামনে মনোরঞ্জনের চেষ্টা করছে এক জোকার। কেউ হাসছেন। কেউ ছবি তুলছেন। গুটিকয় সামান্য সমবেত কিছু পয়সা বা ছোট নোট গুঁজে দিচ্ছেন জোকারের হাতে। পাশে দাঁড়িয়ে লক্ষ্য করছিলাম। না, কোনও প্রচারপত্র বিলি নয়, গায়ে নেই কোনও পন্য বা সংস্থার বিজ্ঞাপন। এক ফাঁকে রীতিমত সাক্ষাৎকারে বেড়িয়ে এল বাংলার চরম দারিদ্র্যের একটা রূঢ় ছবি।লক্ষ লক্ষ চাকরি হয়েছে বা হচ্ছে বলে প্রচার করছে সরকার। কে আনুপাতিকভারে বেশি কর্মসংস্থানের সুযোগ দিয়েছে তা নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য চলছে দাবির লড়াই। কিন্তু হুগলির জিরাটের নীলকন্ঠ বিশ্বাস কারও কাছে প্রশ্ন করতে পারছে না, এসবের পরেও কেন ওর ঘরে তিনটি প্রাণীর অন্নসংস্থান দায় হয়ে উঠেছে। রোজ সকালে নীলকন্ঠ চলে আসছে বইমেলায়। বাবা দুর্ঘটনায় আহত, শয্যাশায়ী। মেলায় হরেক রূপ নিয়ে ও উপার্জনের চেষ্টা করে। হাত পাততে দ্বিধা হয়। বাধ্য হয়ে এক-আধ সময়ে বাড়িয়েও দেয় যুবাটি। ইতস্তত করে কেউ কেউ কিছু দেয়। চেনা লোক দেখে ফেলার, মানে লোকলজ্জার ব্যাপারটা নেই। কারণ, মুখ তো অন্য রকম। এভাবে কতদিন চলবে, উত্তর নেই নীলকন্ঠর কাছে। দিনে কত আয় হচ্ছে? জবাব, তা কমবেশি আড়াইশ টাকা হবে। একটাই আশা, এ রকম মেলায় মনোরঞ্জন করলে কোনও অনুষ্ঠানে ডাক পড়তে পারে। তা সে কোনও বাড়িতে হোক বা ক্লাবে। সেখানে দৈনিক ৬০০-৭০০ টাকা আয়ের অবকাশ থাকে। নবদ্বীপ কলেজে স্নাতকের তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা দেওয়ার আগে পা ভেঙে টানা শয্যাশায়ী। এর পর পড়াশোনার ইতি। এই তথ্যটা জানা গেল বাড়িতে স্ত্রী ফুলমালাকে ফোন করে। বছর দুই আগে বিয়ে হয়েছে ওঁদের। ২০১১ থেকে মেলায় এ রকম মনোরঞ্জনের কাজ করে উপার্জনের চেষ্টা করছেন নীলকন্ঠ। ফি বছর বইমেলায় এক একটি ছোট স্টলের অনুমতির মাসুল, তৈরির খরচ, দেখভালের ব্যয়— এ সব খাতে খরচ হয় লক্ষাধিক টাকা। ভিতর-বাইর দেখনাই করলে খরচ বাড়তে থাকে আনুপাতিক হারে। সব মিলিয়ে নানা ভাবে বহু কোটি টাকা উড়ছে বইমেলায়। কিন্তু প্রদীপের নিচেই থাকে অন্ধকার।বইমেলার আশায় দিন গোনেন ওঁরা। শহরের ভাষণ-উল্লাশ-আলোর রোশনাইয়ের আড়ালে বেঁচে থাকার রসদ খোঁজে গ্রামের নীলকন্ঠরা। হিন্দুস্থান সমাচার / অশোক
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image