Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, मार्च 22, 2019 | समय 14:18 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

মহেশতলায় বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ, মৃত্যু এক শ্রমিকের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 10 2019 10:36PM
মহেশতলায় বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ, মৃত্যু এক শ্রমিকের
মহেশতলা, ১০ মার্চ(হি.স.): মহেশতলার বলরাম পুরে বাজির কারখানায় বিস্ফোরণ। বিধ্বংসী আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত আশপাশের বেশ কিছুটা এলাকা। এই ঘটনায় অনুপ দলুই নামে এক শ্রমিকের মৃত্যু হয়। ঘটনায় গুরুতর জখম হন আরও দুই শ্রমিক। এই ঘটনায় একজনকে পুলিশ আপাতত আটক করেছে। কারখানার মালিকের খোঁজে শুরু হয়েছে তল্লাশি। কিভাবে এই বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ ঘটলো তা ক্ষতিয়ে দেখছে মহেশতলা থানার পুলিশ। পাশাপাশি এই এলাকায় বাজি তৈরির কারখানা করার কোন বৈধ অনুমতি পত্র ছিল কিনা তাও ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে। ঘটনার জেরে এলাকার মানুষজনের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়েছে। বিস্ফোরণের পর এলাকায় সংবাদ সংগ্রহ করতে গিয়ে কারখানা কতৃপক্ষের কাছে সংবাদ মাধ্যমের বেশ কয়েকজন কর্মী আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের কাজে বাঁধা দেওয়ার ও অভিযোগ উঠেছে। ‌ রবিবার দুপুর দেড়টা নাগাদ এই ঘটনা ঘটে মহেশতলার একটি বাজি তৈরির কারখানাতে। এদিন দুপুরে বিকট আওয়াজ করে বাজি কারখানায় বিস্ফোরণ হয়। সেই সময় কারখানাতে কাজ করছিলেন কয়েকজন কারিগর। তাঁরা আহত হন। তাঁদের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনায় এলাকায় প্রবল আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। দমকলের ৩ টি ইঞ্জিন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। যদিও বিস্ফোরক ভর্তি দুটি ড্রামের পাশে একজন দীর্ঘক্ষণ আহত অবস্থায় পড়েছিলেন। তাকে উদ্ধার করতে পুলিশ ও দমকলকে বেশ বেগ পেতে হয়েছে। তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষনা করেন। বাকি আহতদের এম আর বাঙুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানেই তাদের চিকিৎসা চলছে। পুলিশ জানিয়েছে, আহতরা হলেন নিমাই বর্মন (‌৪৫)‌ ও খোকন বর্মন (‌৩৮)‌। মৃতের নাম অনুপ দলুই (‌৩৩)‌। মৃত ও আহত ৩ জনেরই বাড়ি পশ্চিম মেদিনীপুর এলাকায়। তাদের মধ্যে নিমাই ও খোকন সম্পর্কে দুই ভাই। স্থানীয় মানুষের অভিযোগ, এই কারখানার মালিক রমেশ সাউ। তিনিও পশ্চিম মেদিনীপুরের বাসিন্দা। তবে তাঁর শ্বশুর বাড়ি পুঁটখালিতে। সেখানেই তিনি থাকেন। এদিন ঘটনার সময় সেখানে ৬ টি ড্রাম বিষ্ফোরক ভর্তি অবস্থায় ছিল। দুই ড্রামে বিস্ফোরণ হলেও বাকি ৪ টি ড্রাম সেখানে রাখা ছিল। তবে পুলিশ ওই বাজি কারখানার মালিককে আটক করেছে বলে খবর। প্রতি বছর এই ধরনের ঘটনা ঘটে এলাকায়। দুর্ঘটনা আটকানোর মতো কোন ব্যবস্থা না থাকার কারনেই এই ঘটনাগুলি ঘটে বলে অভিযোগ এলাকার মানুষের। তবু বেআইনি বাজি তৈরির কারখানা গজিয়ে উঠেছে এই এলাকায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মহেশতলা থানার পুলিশ। -হিন্দুস্থান সমাচার /প্রসেনজিত /কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image