Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 20:37 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

জয়নগরে গৃহবধূর মৃত্যু, পলাতক শ্বশুরবাড়ির লোকজন

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 10 2019 10:34PM
জয়নগরে গৃহবধূর মৃত্যু,  পলাতক শ্বশুরবাড়ির লোকজন
জয়নগর, ১০ মার্চ (হি.স.): বিয়ের মাত্র চার বছরের মধ্যেই শ্বশুরবাড়িতে রহস্যজনকভাবে মৃত্যু হল এক গৃহবধূর| মৃত গৃহবধূর নাম ইয়াসমিনা মণ্ডল(১৯)| রবিবার এই মৃত্যুর ঘটনাটি ঘটেছে জয়নগর থানার বহড়ু - ক্ষেত্র গ্রাম পঞ্চায়েতের তাজপুর গ্রামে| জয়নগর থানার পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে| মাত্র চার বছর আগে বহড়ু-ক্ষেত্রে গ্রাম পঞ্চায়েতের তাজপুর গ্রামের বাসিন্দা শফিউল্লাহ মন্ডলের ছেলে নুর আলম মন্ডলের সঙ্গে একই থানা এলাকার উত্তর দুর্গাপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের লস্কর পাড়ার বাসিন্দা গোলাম হোসেন গায়েনের মেয়ে ইয়াসমিনার পরিণয় সূত্রে সম্পর্ক তৈরি হয়েছিল|তখন দুই পরিবারই তাড়াতাড়ি তাদের বিয়েও দেয়| দম্পতির একটি দু''বছরে কন্যা সন্তান রয়েছে| বিয়ের পর থেকে ইয়াসমিনার ওপরে ক্রমাগত পণের জন্য চাপ দিতে শুরু করে নুর আলম ও তার বাড়ির লোকজন| মেয়ের মুখের দিকে তাকিয়ে গোলাম হোসেন গায়েন গয়নাগাটি ছাড়াও তাই লক্ষাধিক টাকা ব্যয় করে বাড়িঘর করে দিয়েছিল শুধু তাই নয় দিয়েছিল নগদ দশ হাজার টাকাও| কিন্তু তাতেও অশান্তি বাড়ে বৈকি কমেনি| নুর আলম পেশায় দর্জি হলেও সে কর্মবিমুখ ছিল| যে কারণে সংসার চালাতে স্বামীকে কাজে যাওয়ার কথা বললে উল্টে ইয়াসমিনার কপালে জুটত নির্যাতন|তাই বাধ্য হয়ে বেশ কয়েকবার বাপের বাড়িতে চলে গিয়েছিল সে| কিন্তু নূর আলম প্রতিবারই শ্বশুর বাড়িতে গিয়ে স্ত্রীকে বুঝিয়ে সুজিয়ে নিজের বাড়িতে আবার নিয়ে আসত|এর মধ্যেই নূর আলম গভীর রাত পর্যন্ত ফোনে কথা বলতে শুরু করে| তা নিয়ে ইয়াসমীনার মনে সন্দেহ দানা বাঁধতে শুরু করে| বিষয়টি পর্যন্ত বাপের বাড়িতে ও জানায়| স্বামীকেও সেই কথা জিজ্ঞেস করলেও মেলেনি কোন উত্তর| এর মধ্যেই রবিবার সকালে দিকে ইয়াসমিনার বাপের বাড়ির লোকজন মেয়ের শ্বশুর বাড়ি লাগোয়া প্রতিবেশী মারফৎ খবর পায় যে মেয়ে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় পড়ে রয়েছে| শ্বশুর বাড়ির লোকজন সব পালিয়ে গিয়েছে| প্রতিবেশীরাই গৃহবধূটিকে উদ্ধার করে জয়নগরের পদ্ম্যেরহাট গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায়| ততক্ষনে হাসপাতালে পৌঁছে যায় বাপের বাড়ির লোকজন ও|চিকিৎসকরা ইয়াসমিনাকে মৃত বলে ঘোষনা করে দেয়|এদিকে এই মৃত্যুর খবর জয়নগর থানার পুলিশ গৃহবধূর মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে| এবিষয়ে ঐ গৃহবধূর কাকা ইউসুফ হালদার বলেন, "ভাইঝিকে স্বামী সহ শ্বশুর বাড়ির লোকজন নির্যাতন করত| আমরা চাই পুলিশ তদন্ত করে দোষীদের শাস্তি দিক|"-হিন্দুস্থান সমাচার /কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image