Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, मार्च 22, 2019 | समय 13:44 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

তৎপরতা চাইল্ড লাইনের, জীবনতলায় নাবালিকার বিয়ে রুখল পুলিশ-প্রশাসন

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 11 2019 11:46AM
তৎপরতা চাইল্ড লাইনের, জীবনতলায় নাবালিকার বিয়ে রুখল পুলিশ-প্রশাসন
জীবনতলা (দক্ষিণ ২৪ পরগনা), ১১ মার্চ (হি.স.): দক্ষিণ ২৪ পরগনার জীবনতলায় নাবালিকার বিয়ে রুখল পুলিশ-প্রশাসন। জীবনতলা থানার অন্তর্গত নেত্রা এলাকার ঘটনা। ১৭ বছর বয়সী নাবালিকার বিয়ে হচ্ছে, রবিবার রাতে এই খবর পেয়ে চাইল্ড লাইন, জীবনতলা থানার পুলিশ ও ক্যানিং ২ বিডিও অফিসের কর্মীরা ১৭ বছর বয়সী ওই নাবালিকার বাড়িতে গিয়ে দীর্ঘক্ষণ পরিবারের লোকেদের সঙ্গে কথা বলেন। দীর্ঘক্ষণ কথা বলার পর নাবালিকার পরিবারের সদস্যদের বোঝাতে সক্ষম হয় পুলিশ-প্রশাসন। শেষ পর্যন্ত মুচলেকা দিয়ে বিয়ে বন্ধ রাখেন নাবালিকার পরিবারের লোকেরা। বিয়ের যাবতীয় আয়োজন শেষ হয়ে গিয়েছিল। অতিথিরাও চলে এসেছিলেন। এসে পড়েছিল বরযাত্রীরাও। বিয়ে বাড়িতে চলছিল খাওয়া দাওয়া। ঠিক এমন সময়ই ঘটল ছন্দ পতন। হটাৎ বিয়ে বাড়িতে হাজির হন প্রশাসনের কর্তারা। তাদের দেখে প্রাথমিক ভাবে হুলুস্থুল পড়ে যায় বিয়ে বাড়িতে। পাত্রীর বয়স জানতে চান প্রশাসনের আধিকারিকরা। কনে সেজে বসে থাকা পাত্রীর জন্ম সার্টিফিকেটে দেখা যায় সতেরো বছর বয়স হয়েছে সবে। কেন অল্প বয়সে মেয়ের বিয়ে দিচ্ছেন? প্রশাসনের আধিকারিকদের এই প্রশ্নের জবাবে মুখে কুলুপ আঁটেন পরিবারের লোকেরা। নাবালিকা মেয়ের বিয়ে দিলে কি কি ক্ষতিকর দিক রয়েছে সেগুলি সেই সময় বিয়ে বাড়িতে হাজির সকলকেই বোঝান তাঁরা। পাত্র পক্ষ প্রশাসনের আধিকারিকদের কথা শুনে নাবালিকা মেয়ের সঙ্গে বিয়ের বিষয়ে অস্বীকার করেন। অবশেষে নাবালিকার পরিবারের লোকেরা মুচলেকা দেন, সাবালিকা অর্থাৎ ১৮ বছর বয়স না হওয়া পর্যন্ত কোনওভাবেই মেয়ের বিয়ে দেবেন না। এ বিষয়ে ক্যানিং ২ ব্লকের বিডিও দেবব্রত পাল বলেন, ''এদিন চাইল্ড লাইনের কাছ থেকে আমরা খবর পাই যে নেত্রা এলাকায় একটি নাবালিকার বিয়ে দেওয়া হচ্ছে। খবর পাওয়া মাত্রই পুলিশ ও চাইল্ড লাইনকে সঙ্গে নিয়ে আমরা ওই নাবালিকার বাড়িতে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি বিয়ের সমস্ত আয়োজন সম্পন্ন হয়েছে। বরযাত্রীরাও চলে এসেছিল। সকলকে বোঝাই নাবালিকা বিয়ের কুফল। এরপরেই ওনারা একটি মুচলেকা দেন। আঠেরো বছর না হলে মেয়ের বিয়ে দেবেন না বলেও কথা দেন তারা”। হিন্দুস্থান সমাচার/ প্রসেনজিৎ/ রাকেশ
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image