Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, मार्च 25, 2019 | समय 07:55 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বাসন্তী ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিককে জুতো দিয়ে পেটালেন আশাকর্মী

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 11 2019 4:24PM
বাসন্তী ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিককে জুতো দিয়ে পেটালেন আশাকর্মী
বাসন্তী, ১১ মার্চ (হি. স.) : বাসন্তী ব্লকের স্বাস্থ্য আধিকারিককে জুতো দিয়ে পেটালেন এক মহিলা। শিপ্রা দাস নামে ওই মহিলা নিজে একজন বাসন্তী ব্লকের আশাকর্মী। ওই মহিলার সাথে তার স্বামী শৈলেন চন্দ্র দাস ও আরও কয়েকজন মিলে বেধড়ক মারধোর করেন বাসন্তী ব্লকের স্বাস্থ্য আধিকারিক ডাঃ রামকৃষ্ণ ঘোষকে। ওই আশাকর্মীকে কুপ্রস্তাব দেওয়ার অভিযোগে সোমবার নিজের অফিস থেকে বের করে রামকৃষ্ণবাবুকে বেধড়ক মারধোর শুরু করেন শিপ্রা দাস, স্বামী শৈলেন দাস সহ তার অনুগামীরা। ঘটনায় গুরুতর জখম হন রামকৃষ্ণ ঘোষ। যদিও রামকৃষ্ণবাবুর অভিযোগ ওই আশাকর্মীই তাকে বারে বারে কুপ্রস্তাব দিতেন। তিনি রাজী না হওয়ায় এদিন তাকে অফিস থেকে বের করে হেনস্থা করা হয় ও বেধড়ক মারধোর করা হয়। ঘটনার খবর পেয়ে বাসন্তী থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে উদ্ধার করেন ওই চিকিৎসককে। অভিযুক্ত আশাকর্মী ও তার স্বামীকে আটক করেছে পুলিশ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসপাতাল চত্বরে উত্তেজনা ছড়ায়। এই ঘটনার জেরে এদিন হাসপাতালের চিকিৎসা পরিষেবা বিঘ্নিত হয়। বাসন্তীর বিএমওএইচ ডাঃ রামকৃষ্ণ ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি আশাকর্মী শিপ্রা দাসের সাথে খারাপ ব্যবহার করেছেন। দিনের পর দিন তাকে কুপ্রস্তাব দিয়েছেন। কুপ্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় তাকে কর্মক্ষেত্রে বিভিন্ন ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে বলে ও অভিযোগ। এই ঘটনার জেরে শিপ্রাদেবীর সংসারে অশান্তি শুরু হয়েছে। ঘটনার জেরে মানসিক চাপে ছিলেন তিনি। সেই মানসিক চাপের কারণেই সোমবার বেলা বারোটা নাগাদ নিজের স্বামী শৈলেন দাস ও বহিরাগত কিছু মানুষজন নিয়ে এসে চড়াও হন রামকৃষ্ণ ঘোষের উপর। অফিস থেকে বের করে তাকে জুতো দিয়ে বেধড়ক মারধোর করেন শিপ্রা দাস নামে ওই আশাকর্মী। তার স্বামী ও অন্যান্য সঙ্গীরাও বেধড়ক মারধর করেন বিএমওএইচকে। মাটিতে ফেলে পেটানো হয় তাকে। ঘটনার খবর পেয়ে বাসন্তী থানার পুলিশ এসে গুরুতর জখম অবস্থায় উদ্ধার করেন ওই চিকিৎসককে। বাসন্তী হাসপাতালে তাকে প্রথমে ভর্তি করা হলেও পরে তাকে ক্যানিং মহকুমা হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় চিকিৎসার জন্য। এই ঘটনায় বাসন্তী থানার পুলিশ অভিযুক্ত আশা কর্মী ও তার স্বামীকে আটক করেছে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। যদিও এ বিষয়ে রামকৃষ্ণবাবুর পাল্টা অভিযোগ, “ ওই আশা কর্মী আমাকে বারে বারে কুপ্রস্তাব দিতো। আমার সাথে সম্পর্ক তৈরির চেষ্টা ও করে। মাঝে মধ্যেই আমার অফিসে এসে বিভিন্ন ধরনের অঙ্গভঙ্গী করতো। আমার বাড়িতে বাবা, মা ও স্ত্রী অসুস্থ। আমি ওই মহিলার ফাঁদে পা না দেওয়ার কারণেই আমার উপর চড়াও হয়ে মারধোর করা হয়েছে”। এই বিষয়ে বিএমওএইচের তরফ থেকে বাসন্তী থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বাসন্তী থানার পুলিশ। হিন্দুস্থান সমাচার / প্রসেনজিত
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image