Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, मार्च 23, 2019 | समय 09:47 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ভোটে এবার কড়া নজর, রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের জানিয়ে দিলেন নির্বাচনী আধিকারিকরা

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 11 2019 5:08PM
ভোটে এবার কড়া নজর, রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিদের জানিয়ে দিলেন নির্বাচনী আধিকারিকরা
কলকাতা, ১১ মার্চ (হি. স.): প্রচারের নামে ইচ্ছেমত খরচ করা যাবে না| কড়া নজর রাখছে নির্বাচন কমিশন| সোমবার বিভিন্ন দলের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে এ কথা জানিয়ে দিলেন রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার আরিজ আফতাব। নির্বাচন ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে চালু হয়ে গিয়েছে আদর্শ আচরণবিধি| অভিজ্ঞ রাজনীতিকরা বিষয়টি জানেন| তা সত্বেও কমিশনের তরফে দলগুলিকে বিধি মেনে এর বিশদ জানিয়ে দিতে হয় | যেমন চেয়ার-মাইক প্রভৃতির ভাড়ার হার, ফ্লেক্স –পোস্টার-ব্যানার প্রভৃতির খরচ প্রভৃতির নির্ধারিত হার| ভোট পর্বের করনীয় এবং কোন কোন বিষয় থেকে দূরে থাকতে হবে- এ সব নিয়ে দলগুলিকে অবগত করেন মুখ্য নির্বাচনী অফিসার ও সহকারী মুখ্য নির্বাচনী অফিসারেরা| সামাজিক মাধ্যমে প্রচারের ব্যাপারেও দলগুলিকে সাবধানতা ও সতর্কতা অবলম্বন করতে আবেদন জানান নির্বাচনী আধিকারিকরা| এ দিনের বৈঠকে তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে উপস্থিত ছিলেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায় এবং রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী, বিজেপি-র জয়প্রকাশ মজুমদার, সিপিএম-এর রবিন দেব প্রমুখ| উত্তর কলকাতার ভোটের ব্যবস্থাপক রিটার্নিং অফিসার দিব্যেন্দু সরকার এ দিন সাংবাদিকদের জানান, “নিয়ম অনুযায়ী দলগুলিকে ভোট ঘোষণার তিন দিনের মধ্যে দলগুলোর সঙ্গে আলোচনায় বসতে হয় আধিকারিকদের| ন্যাশনাল গ্রিভেনস পোর্টাল, নিরাপত্তাব্যবস্থা প্রভৃতি নিয়ে দলগুলোরও নানা প্রশ্ন থাকে| আগামীকাল আমার দফতরে এ নিয়ে অপর একটি বৈঠক হবে|” নির্বাচন দফতর সূত্রের খবর, এবারের ভোটে কমিশনের তরফে বাড়তি নজরদারির ব্যবস্থা করা হয়েছে| আসন্ন লোকসভা ভোটের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে গত ৩০ জানুয়ারি তিন দিনের রাজ্য সফরে কলকাতায় আসে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার সুনীল অরোরার নেতৃত্বাধীন সদস্যরা বৈঠক করেন বিভিন্ন দলের প্রতিনিধি, রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী অফিসার (সিইও) দফতরে কর্তাদের সঙ্গে। লোকসভা ভোটের আগে কমিশনের ‘চোখরাঙানির’ মুখে পড়তে হয় রাজ্য সরকারকে। ভোট প্রস্তুতি নিয়ে শহরে কমিশনের ফুল বেঞ্চের বৈঠকে যোগ না দিয়ে মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের রোষের মুখে পড়েন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার। নগরপালের অনুপস্থিতি নিয়ে রাজ্য সরকারের কাছ থেকে জবাব চায় কমিশন। নগরপালের তিন বছরের মেয়াদ শেষ, তাই ছুটিতে থাকায় বৈঠকে যোগ দিতে পারেন নি বলে সাফাই দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পরে মমতা প্রচারমাধ্যমকে বলেন, “ওঁর (রাজীব কুমার) তিন বছরের মেয়াদ শেষ হয়েছে। উনি ছুটিতে থাকায় বৈঠকে যোগ দিতে পারেন নি। এজন্য আমরা কমিশনের কাছে ক্ষমা চাইছি। কমিশনের খারাপ লেগে থাকলে, আমরা দুঃখিত।” হিন্দুস্থান সমাচার/ অশোক / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image