Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, मार्च 25, 2019 | समय 08:04 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

হাইলাকান্দি কংগ্রেসে ধস নামিয়ে দলত্যাগ চার পুর সদস্যের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 11 2019 8:19PM
হাইলাকান্দি কংগ্রেসে ধস নামিয়ে দলত্যাগ চার পুর সদস্যের
হাইলাকান্দি (অসম), ১১ মার্চ (হি.স.) : নির্বাচনের মুখে হাইলাকান্দি কংগ্রেসে ধস নামিয়ে দলত্যাগ করলেন দলীয় চার পুর সদস্য। কংগ্রেসি দলত্যাগী পুর সদস্যরা হলেন, ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার চন্দন সেনগুপ্ত, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার তপন চৌধুরী, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার ববি মালাকার এবং ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার চিন্ময় দাস। সোমবার হাইলাকান্দি পুরসভা কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলনের আয়োজন করে পদত্যাগী চার কংগ্রেসি পুর সদস্য জানান, কংগ্রেসের বর্তমান জেলা নেতৃত্বের প্রতি তাঁদের কোনও আস্থা নেই। তাই তাঁরা দলত্যাগ করেছেন। গত পুর নির্বাচনে চিন্ময় দাস নির্দল প্রার্থী হিসেবে জয়ী পুরসদস্য নির্বাচিত হওয়ার পর কংগ্রেস দলে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দিয়েছিলেন। তিনিও কংগ্রেস ছেড়েছেন। পদত্যাগী সদস্যরা অভিযোগ করে বলেন, বর্তমান হাইলাকান্দি জেলা কংগ্রেসের নেতৃত্বের কাজেকর্মে তাঁরা সন্তুষ্ট নন, কোনও ভাবেই আস্থা রাখতে পারছেন না। এঁরা দল পরিচালনার যোগ্য নন। তাই তাঁরা নিরুপায় হয়ে এ ধরনের বড় সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছেন। পুরসদস্য তপন চৌধুরী বলেন, বর্তমানে যাঁরা হাইলাকান্দি জেলা কংগ্রেসের নেতৃত্বে রয়েছেন তাঁদের নির্দিষ্ট কোনও রাজনৈতিক আদর্শ নেই। এঁরা কখনও কংগ্রেস আবার কখনও এআইইউডিএফ হিসেবে কাজ করে থাকেন। বর্তমান জেলা কংগ্রেসের নেতাদের অনেকে গত বিধানসভা এবং পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিভিন্ন বিরোধী রাজনৈতিক দলের হয়ে কাজ করতে দেখা গেছে। সেই সঙ্গে জেলা কংগ্রেসের বর্তমান নেতৃত্ব দলকে একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের দল বানিয়ে ফেলেছেন। তাই এ ধরনের দলে থেকে তাঁদের পক্ষে সমাজের কাজ করা অসম্ভব। এজন্যই কংগ্রেস ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি নিয়েছেন। পুরসদস্য চন্দন সেনগুপ্ত অভিযোগ করে বলেন, কিছুদিন আগেও গৌতম রায়, আব্দুল মুহিব মজুমদার এবং রাহুল রায়ের আমলে হাইলাকান্দি কংগ্রেস সত্যিকার অর্থে ধর্মনিরপেক্ষ দল হিসেবে পরিচিত ছিল। কিন্তু বর্তমান নেতৃত্ব এই দলকে এআইইউডিফ-এর বি-টিম বানিয়ে ফেলেছেন। তাই তাঁদের মতো ধর্মনিরপেক্ষদের এই দলে থাকা সম্ভব হবে না। আজ তাঁরা তাঁদের পদত্যাগপত্র হাইলাকান্দি জেলা কংগ্রেসের সভাপতির কাছে পাঠিয়ে দিয়েছেন বলেও জানান। হিন্দুস্থান সমাচার / তুতন / এসকেডি / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image