Hindusthan Samachar
Banner 2 सोमवार, मार्च 25, 2019 | समय 07:39 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

১ নম্বর করিমগঞ্জ লোকসভা আসনে কাকে প্রার্থী করা হবে, বিভ্রান্ত কংগ্রেস

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 12 2019 12:51PM
১ নম্বর করিমগঞ্জ লোকসভা আসনে কাকে প্রার্থী করা হবে, বিভ্রান্ত কংগ্রেস
করিমগঞ্জ (অসম), ১২ মার্চ (হি.স.) : বহুচর্চিত করিমগঞ্জ লোকসভা আসনে কংগ্রেস কাকে প্রার্থী করতে পারে এ-নিয়ে চর্চার বাজার গরম। আসন্ন নির্বাচনে কংগ্রেস-এআইইউডিএফ দলের মধ্যে যে বোঝাপড়ার আভাস পাওয়া যাচ্ছে তাতে অনেকটা রাজনৈতিক চিত্র রাতারাতি পাল্টে যাওয়ার আশঙ্কা করছে বিজ্ঞ মহল। এখন পর্যন্ত যে পরিস্থিতি উৎপন্ন হয়েছে এতে অনেকের ধারণা, এআইইউডিএফ তাদের দখলীকৃত আসন করিমগঞ্জ ছেড়ে দিতে পারে কংগ্রেসের জন্য। যার বিনিময়ে কংগ্রেস ডিব্রুগড় ও ধুবড়ি ছেড়ে দিতে পারে বলে চর্চা চলছে। অন্য আসনগুলিতে দুই দলের মধ্যে বন্ধুত্বপূর্ণ নির্বাচনি লড়াই হতেও পারে। হয়তো-বা সেদিকে লক্ষ্য রেখে বর্তমান করিমগঞ্জের সাংসদ এআইইউডিএফ-এর রাধেশ্যাম বিশ্বাস আগে থেকেই কংগ্রেসের প্রতি ঝুঁকতে চাইছেন। রাধেশ্যামের কংগ্রেসে যোগ দেওয়ার খবরে রাজনৈতিক বাজার একদিকে যেমন সরগরম তেমনি দুই রাজনৈতিক দলীয় কর্মীদের মধ্যে অস্বস্তিকর বাতাবরণের ক্ষেত্রও তৈরি হয়েছে। রাধেশ্যাম কংগ্রেসে ভিড়তে পারেন, এই খবরের পরিপ্রেক্ষিপ্তে সবচেয়ে অস্বস্তিতে রয়েছেন করিমগঞ্জের প্রাক্তন সাংসদ ললিতমোহন শুক্লবৈদ্য। কারণ, যদি দুই দলের মধ্যে সমঝোতা হয়, আর কংগ্রেসের জন্য আসনটি এআইইউডিএফ দল ছেড়ে দেয় তা-হলে গোটা রাজনৈতিক চিত্রপট মুহূর্তে বদলে যেতে পারে। কেননা, কংগ্রেস ও এআইইউডিএফ, এই দুই দলের মধ্যে এক দল তাদের প্রার্থী দাঁড় করাতে পারবে। এরই মধ্যে বর্তমান সাংসদ রাধেশ্যাম বিশ্বাস কংগ্রেসের প্রতি অধিক আকৃষ্ট হওয়ায় একদিকে যেমন দু-বারের সাংসদ ললিতবাবুর (কংগ্রেস) অস্বস্তি বাড়িয়েছে ঠিক তেমনি কপালে ভাঁজ পড়েছে বাকি যাঁরা কংগ্রেস টিকিটের জন্য দাবি করছেন তাঁদেরও। এই পরিস্থিতিতে ললিতমোহন শুক্লবৈদ্যের পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছেন রাধেশ্যাম। কারণ এ-মুহূর্তে করিমগঞ্জ কংগ্রেসের জেলা সভাপতি সতু রায়ের কাছে টিকিট দাবিদারদের কারো ওপর ভরসা নেই। যাঁরা টিকিটের দাবি করেছেন তাঁদের প্রার্থী করে করিমগঞ্জ আসনে বিজয়ী হওয়া সম্ভব নয়। বিষয়টি তিনি স্পষ্ট ভাষায় দলীয় হাইকমান্ডকেও অবগত করেছেন। সম্প্রতি করিমগঞ্জ জেলা কংগ্রেস সভাপতি সতু রায় গোপন এক চিঠিতে অসমে কংগ্রেসের পর্যবেক্ষক কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক হরিশ রাওয়াতকে অনুরোধও জানিয়েছিলেন, টিকিট প্রত্যাশী স্বরূপ দাসকে দলীয় মনোনয়ন না দিয়ে বর্তমান সাংসদ রাধেশ্যামকে মনোনয়ন দেওয়ার জন্য। কারণ হিসেবে বিভিন্ন অভিযোগের উদ্ধৃতি দিয়ে তিনি স্বরূপ দাসের তফশিল জাতি সার্টিফিকেটকে ভেজাল বলে জানিয়ছেন রাওয়াতকে। এই চিঠির কপি বরাক-ব্রহ্মপুত্র উপত্যকায় চাউর হতেই হুলুস্থুল শুরু হয় কংগ্রেস এবং এআইইউডিএফ-এরর মধ্যে। করিমগঞ্জ আসনের অন্যতম নির্বাচন ক্ষেত্র হাইলাকান্দি জেলায় এর বিরূপ প্রভাব সবচেয়ে বেশি পড়েছে। প্রকাশ্যে বিরোধিতা করে মাঠে নেমেছে হাইলাকান্দি জেলা কংগ্রেস। এখানেই শেষ নয়, হাইলাকান্দি কংগ্রেসে ধস নামিয়ে সোমবার দলত্যাগ করেছেন চার কংগ্রেসি পুরসদস্য। কংগ্রেসের দলত্যাগী পুরসদস্যরা হলেন ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কমিশনার চন্দন সেনগুপ্ত, ৮ নম্বর ওয়ার্ডের তপন চৌধুরী, ১৪ নম্বর ওয়ার্ডের ববি মালাকার এবং ১৩ নম্বর ওয়ার্ডের চিন্ময় দাস। সোমবার হাইলাকান্দি পুরসভা কার্যালয়ে এক সাংবাদিক সম্মেলন করে তাঁদের দল ত্যাগের কথা জানিয়ে, কংগ্রেসের বর্তমান জেলা নেতৃত্বের প্রতি তাঁদের আস্থা না থাকার কথা জানান। এদিকে, লোকসভা নির্বাচনে প্রার্থিত্বের জন্য চারজনের প্যানেল আগেই পাঠিয়ে দিয়েছিল করিমগঞ্জ জেলা কংগ্রেস কমিটি। এঁরা স্বরূপ দাস, নবদ্বীপ দাস, সুরুচি রায় এবং ললিতমোহন শুক্লবৈদ্য। দলীয় টিকিটের জন্য ১১ জন আবেদন করেছিলেন বলে জানা গেছে। এই চারজন ছাড়া বাকিরা হলেন, বিশ্বজিত দাস, পুলক মালাকার, রাণুভূষণ রায়, রাজা দাস, অশোক বৈদ্য, প্রণবকুমার দাস এবং রথীন্দ্রনাথ লস্কর। জানা গেছে, করিমগঞ্জ জেলা সভাপতির চিঠির পর প্রদেশ তথা দলের কেব্দ্রীয় কমিটিতে নতুন করে চিন্তাভাবনা শুরু হয়েছে। এদিকে ললিতমোহন শুক্লবৈদ্য এবং প্রাক্তন মন্ত্রী গৌতম রায়ের মধ্যে দলীয় টিকিট নিয়ে আলোচনাও হয়েছে। লোকসভা নির্বাচনে অসমে কংগ্রেস-এআইউডিএফ বোঝাপড়া নিয়ে অনেক বিশ্লেষণ এবার গুয়াহাটির রাজীব ভবনের ছেড়ে দিল্লিতে চলছে। না-দুবারের সাংসদ কংগ্রেসের ললিতমোহন শুক্লবৈদ্যকে ছাপিয়ে রাধেশ্যাম বিশ্বাস এআইইউডিএফ ছেড়ে কংগ্রেসের টিকিট পাবেন? না-নতুন মুখ সামনে আনা হবে তা দু-একদিনের মধ্যেই পরিষ্কার হয়ে যাবে বলে ধারণা রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞ মহলের। উল্লেখ্য, অসমে দ্বিতীয় স্তরের নির্বাচনে বরাক উপত্যকার দুই আসন ১ নম্বর করিমগঞ্জ এবং ২ নম্বর শিলচরে নির্বাচন হবে ১৮ এপ্রিল। এর জন্য মনোনয়নপত্র দাখিল করার শেষ দিন ২৬ মার্চ। ২৭ মার্চ মনোনয়নপত্র পরীক্ষা করে দেখা হবে। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে ২৯ মার্চ পর্যন্ত। হিন্দুস্থান সমাচার / পুলক / এসকেডি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image