Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 21:23 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

নির্বাচন কমিশনে নতুন চমক, দূষণ ঠেকাতে প্লাস্টিক মুক্ত নির্বাচন

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 12 2019 5:58PM
নির্বাচন কমিশনে নতুন চমক, দূষণ ঠেকাতে প্লাস্টিক মুক্ত নির্বাচন
দুর্গাপুর, ১২ মার্চ (হি. স.) : গোটা বিশ্ব দূষণে জেরবার। শুরু হয়েছে দূষন ঠেকাতে জোর তৎপরতা। কাজে যেমন লাগানো হচ্ছে পরিবেশ বান্ধবকে। তেমনই প্লাস্টিকের ব্যাবহার কম করতে একাধিক উদ্যোগ নিয়েছে, বিভিন্ন প্রথম সারির দেশের সঙ্গে কেন্দ্র রাজ্য সরকার। এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচন প্লাস্টিক মুক্ত করার উদ্যোগ নিল নির্বাচন কমিশন। এক সাংবাদিক বৈঠক সেই নির্দেশিকা জানালেন পশ্চিম বর্ধমানের দুর্গাপুর মহকুমাশাসক অনির্বান কোলে। বিগত একদশকের নির্বাচন প্রচার স্মরন করলে দেখা যাবে, প্লাস্টিক জাত ব্যানার ফেস্টুন, পতাকা বেশী ব্যাবহার হয়েছে। দেখতে যেমন চমকপ্রদ, তেমনই কম সময়ে, কম পরিশ্রমের সহজ প্রচার। আর তার মাশুল পরিবেশকে দূষিত করত। সারা বিশ্ব প্ল্যাস্টিক যন্ত্রনায় আক্রান্ত। যদিও বেশ কিছু দেশ কড়া উদ্যোগ নিয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে প্ল্যাস্টিক ব্যাবহারে। তবে প্ল্যাস্টিক মুক্ত নির্বাচনই নতুন চমক বলে মনে করছে আম জনতা। দুর্গাপুর মহকুমাশাসক অনির্বান কোলে জানান," গত ২৬ ফেব্রুয়ারি নির্দেশিকা জারি করেছে। প্লাস্টিক মুক্ত ''ইকো ফ্রেন্ডলি নির্বাচন''। ইতিমধ্যে সমস্ত রাজনৈতিক দলগুলিকে জানানো হয়েছে। কোনরকম প্লাস্টিকের ব্যানার, ফেস্টুর্ন, যা একবারে বেশী ব্যাবহার করা যায় না। সেগুলি ব্যাবহার করা যাবে না। পরিবেশ বান্ধব বস্তু ব্যাবহার করতে হবে। প্রয়োজনে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।" কমিশনের নির্দেশিকায় কপাল পুড়েছে প্লাস্টিকের ফ্ল্যাগ, ফ্লেক্স উৎপাদনকারীদের। তবে হাসি ফুটেছে পরিবেশপ্রেমীদের। দুর্গাপুর মৃত্তিকা সেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে কৌশিকি ঘটক জানান,"প্ল্যাস্টিক বর্তমানে পরিবেশকে ভয়ঙ্করভাবে ক্ষতি করছে। তার কুফল ইতিমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। তাই প্ল্যাস্টিকের ব্যাবহার বন্ধ করার জন্য কেন্দ্র সরকারের কাছে দাবি জানিয়েছি। নির্বাচনে এধরনের উদ্যোগ নেওয়ায় খুবই খুশী। নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ।" তৃণমূলের পশ্চিম বর্ধমান জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন জানান," সুস্থ পরিবেশ বজায় রাখতে অব্যশ্যই প্ল্যাস্টিক বর্জন করা দরকার। কমিশনের উদ্যোগকে স্বাগত।" একইরকম সিপিএমের পঙ্কজ রায় সরকার বলেন,"শুধু নির্দেশিকা জারি করলেই হবে না। কড়া নজরদারি দরকার। প্রয়োজনে মোবাইল ভ্যান এলাকায় টহলের ব্যাবস্থা রাখতে হবে।" আবার বিজেপির গুনীজন সেলের অমিতাভ বন্দ্যোপাধ্যায় জানান," লোকসভা নির্বাচনে কমিশনের এই উদ্যোগকে সাধুবাদ। তবে আরও প্রচার ও সচেতনতা দরকার।" হিন্দুস্থান সমাচার / জয়দেব
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image