Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 21:05 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে লড়াকু রাজনৈতিক কর্মীর প্রতি আস্থা রাখল তৃণমূল

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 12 2019 9:32PM
বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে লড়াকু রাজনৈতিক কর্মীর প্রতি আস্থা রাখল তৃণমূল
বোলপুর, ১২ মার্চ (হি. স.) : "বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে লড়াকু রাজনৈতিক কর্মীর প্রতি আস্থা রাখল তৃণমূল কংগ্রেস দল। কারণ, এই লোকসভায় অরাজনৈতিক ব্যক্তিকে নির্বাচনে লড়িয়ে ফল ভুগতে হয়েছে দলকে। ফেসবুক, টুইটারে একের পর এক দলবিরোধী মন্তব্য করে দলকে বিব্রত করেছেন গত লোকসভার দলীয় সাংসদ অধ্যাপক অনুপম হাজরা। তাই এবার আর দ্বিতীয়বার ভুল করেনি দল। সেদিক থেকে দলের অনুগত সৈনিক হিসেবে পুরস্কার পেলেন অসিত মাল", এমনটাই ধারণা রাজনৈতিক মহলের। দীর্ঘদিন ধরে পোড় খাওয়া তরুণ তুর্কি নেতা এবার বীরভূমের বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী। জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী তিনি। তাঁর প্রতি আস্থা রাখার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন তিনি। অসিত মালের রাজনৈতিক জীবনে আত্মপ্রকাশ করেন ১৯৭৭ সালে। সেবার হাঁসন বিধানসভা কেন্দ্রে নির্দল হিসাবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন। ১৯৮২ সালে কংগ্রেসের টিকিটে লড়াই করলেও ফের পরাজিত হন। ১৯৮৭ সালে ফের কংগ্রেস টিকিটে লড়াই করে প্রথম বিধায়ক হন। পরের দুবার পরাজিত হন আর সি পি আইয়ের কাছে। ১৯৯৬ সালের পর তাঁর জয়ের আশ্বমেধের ঘোড়া থামানো যায়নি। ২০০৯ সালে বোলপুর লোকসভা কেন্দ্রে কংগ্রেসের টিকিটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে সিপিএমের রামচন্দ্র ডোমের কাছে ৯২৮৮২ ভোটে পরাজিত হন। ২০১১ সালে কংগ্রেস – তৃণমূল জোট গড়ে হাত প্রতীকে লড়াই করেন হাঁসনে। সেবারও জয়ী হন। এই জয়ের পর তৃণমূলের সাথে তাঁর সম্পর্ক ঘনিষ্ট হয়। রাজ্য খাদি ও গ্রামীণ শিল্প পর্ষদের চেয়ারম্যান করা হয়। ২০১২ সালের ২২ সেপ্টেম্বর কংগ্রেসের ছয় মন্ত্রী তৃণমূল সরকার থেকে বেরিয়ে এলেও অসিতবাবু চেয়ারম্যান পদ ছাড়েননি। এনিয়ে দলের মধ্যে বিতর্কের সৃষ্টি করেছিলেন। এরপরেই ২০১৪ সালে ২১ জুলাই শহিদ মঞ্চে তৃণমূলে যোগদান করেন। অবশ্য তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়ের সঙ্গে অসিত মালের সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। কারণ, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যখন যুব কংগ্রেসের রাজ্য সভা নেত্রী ছিলেন, সেই সময় অসিত মাল ছিলেন রাজ্য সহসভাপতি। ফলে মুখ্যমন্ত্রীর কাছের লোক ছিলেন অসিতবাবু। ২০১৬ সালে হাঁসন কেন্দ্রে তৃণমূলের টিকিটে প্রার্থী হিসেবে কংগ্রেস প্রার্থী মিল্টন রশিদের কাছে পরাজিত হন। সেই বোলপুরে দলনেত্রী আস্থা রেখেছে তাঁর প্রতি। নাম ঘোষণার পর মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি আস্থা জ্ঞাপন করেন অসিত মাল। বলেন, "মুখ্যমন্ত্রী দেশের এই সংকটময় মুহূর্তে নরেন্দ্র মোদীর অপশাসনের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য যে সুযোগ দিয়েছেন তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ।" এরপরেই কৃতজ্ঞতা স্বীকার করেন দলের বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের প্রতি। তিনি বলেন, "অনুব্রত মণ্ডলের কাছে আমি কৃতজ্ঞ। যেভাবে তিনি আমার প্রতি আস্থা রেখে প্রার্থী করে দায়িত্ব বাড়িয়ে দিয়েছেন সেই সম্মান আমি রাখব।" আশাবাদী অসিত মালের দাবি বোলপুর লোকসভা সব থেকে বেশি ব্যবধানে জয়ী হবে দল। হিন্দুস্থান সমাচার/ হেমাভ/ শ্রেয়সী
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image