Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, मार्च 22, 2019 | समय 13:27 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বাংলাদেশে পাচারের আগেই উদ্ধার প্রচুর কাপড়, সুন্দরবনে ধৃত সতেরো

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 13 2019 2:09PM
বাংলাদেশে পাচারের আগেই উদ্ধার প্রচুর কাপড়, সুন্দরবনে ধৃত সতেরো
কুলতলি, ১৩ মার্চ (হি. স.) : বাংলাদেশে পাচার হওয়ার আগেই সুন্দরবনের নদী থেকে কাপড় বোঝাই দুটি ট্রলার উদ্ধার করলো পুলিশ। উদ্ধার হয়েছে আটান্নটি কাপড়ের গাঁট। এই ঘটনায় মোট সতেরোজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ধৃত সকলেরই বাড়ি দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার রায়দীঘি ও ঢোলাহাট থানা এলাকায়। যদিও বাংলাদেশী কাউকেই এই ঘটনায় গ্রেফতার বা আটক করতে পারেনি পুলিশ। মঙ্গলবার রাতে ঘটনাটি ঘটে দক্ষিণ ২৪ পরগণার সুন্দরবনের মৈপীঠ কোস্টাল থানার অন্তর্গত ঢুলিভাসানি নদীতে। এর পিছনে কারা কারা জড়িত রয়েছে সে বিষয়ে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। ধৃতদের বৃহস্পতিবার বারুইপুর মহকুমা আদালতে তুলবে পুলিশ। দীর্ঘদিন ধরেই সুন্দরবনের এই জলপথ ব্যবহার করে বিভিন্ন ধরনের জিনিষপত্র স্মাগ্লিং এর কাজকর্ম চলে আসছে। এই চোরাচালান বন্ধ করতে বারে বারে উদ্যোগী হয়েছে পুলিশ প্রশাসন। কিন্তু সেই চোরাচালান যে এখনও বন্ধ হয়নি তার আরও একবার প্রমান মিলল। মঙ্গলবার রাতে, গোপনসূত্রে খবর পেয়ে বারুইপুর পুলিশ জেলার মৈপীঠ কোস্টাল থানার পুলিশ সুন্দরবন এলাকার নদী ও খাঁড়িতে স্পীডবোট নিয়ে তল্লাশি অভিযানে নামে। ঢুলিভাসানি নদীর কাছে গিয়ে পুলিশের চোখে পরে দুটি ট্রলার সেখানে দাঁড়িয়ে রয়েছে। পুলিশের স্পীডবোট দেখেই সেগুলি পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ তাদেরকে ধরে ফেলে। দুটি ট্রলার থেকে মোট সতেরোজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। ধৃতদের কাছ থেকে দুটি আগ্নেয়াস্ত্র ও দু রাউন্ড গুলি উদ্ধার করেছে পুলিশ। উদ্ধার হয়েছে ৫৮টি কাপড়ের গাঁট। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে এই কাপড়গুলি বাংলাদেশে পাচার হচ্ছিল। দক্ষিণ ২৪ পরগণার রায়দীঘি এলাকা থেকে এগুলি ওই ট্রলারে তোলা হয়েছিল। সুন্দরবন এলাকার নদীর মাঝেই এগুলি বাংলাদেশের পাচারকারীদের হাতে তুলে দেওয়ার কথা ছিল বলে পুলিশ জানতে পেরেছে। তবে পুলিশ আসার খবর পেয়েই পালিয়ে যায় বাংলাদেশী জলযানগুলি। মাঝে মধ্যেই এই নদিপথ ব্যবহার করে লক্ষ লক্ষ টাকার সামগ্রী এইভাবেই একদেশ থেকে অন্যদেশে বেআইনি ভাবে পাচার করে চলেছে পাচারকারীরা। ধৃতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে এই বিষয়ে আরও তথ্য জগারের চেষ্টা করছে মৈপীঠ কোস্টাল থানার পুলিশ। হিন্দুস্থান সমাচার / প্রসেনজিত
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image