Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 20:55 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

আপডেট : মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে ফের আগুন-আতঙ্ক, পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু মহিলার, আহত ৩০

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 13 2019 2:36PM
আপডেট : মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজে ফের আগুন-আতঙ্ক, পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু মহিলার, আহত ৩০
বহরমপুর, ১৩ মার্চ (হি.স.): ফিরে এল তিন বছর আগের স্মৃতি| আবারও আগুন-আতঙ্ক মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে| আগুন-আতঙ্কে ও প্রাণভয়ে হাসপাতালের পাঁচতলা থেকে নিচে নামতে গিয়ে পদপিষ্ট ও হুড়োহুড়িতে কমবেশি আহত হয়েছেন অন্ততপক্ষে ৩০ জন| অকালেই প্রাণ হারিয়েছেন একজন মহিলা| মৃত মহিলার নাম হল, অনিমা মণ্ডল| আহতদের মধ্যে হাসপাতালে চিকিত্সাধীন রোগীরাও রয়েছেন| পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রের খবর, বুধবার সকালে মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালের পাঁচতলায় বর্হিবিভাগের ১১৮ নম্বর রুমে (মনোরোগ বিভাগ) পাখায় আগুন লাগে| পাখা থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা মাত্রই আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করে দেন রোগী ও তাঁদের পরিজনরা| হাসপাতালের সিঁড়ি থেকে নিচে নামার সময় হুড়োহুড়ি ও ধাক্কায় কমবেশি আহত হয়েছেন অন্ততপক্ষে ৩০ জন| পদপিষ্ট হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন একজন মহিলা| আহতরা বর্তমানে হাসপাতালে চিকিত্সাধীন| তবে, ঠিক কতজন হাসপাতালে চিকিত্সাধীন রয়েছেন, সে বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এখনও পর্যন্ত বিশদে কিছু জানায়নি| হাসপাতালের সুপার জানিয়েছেন, আগুন লাগেনি, ফ্যান থেকে ধোঁয়া বের হয়| তাতেই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে হাসপাতালের পাঁচতলা থেকে একতলা পর্যন্ত| ফ্যানে আগুন লাগার কথা স্বীকার করেছেন হাসপাতালের কর্মীরাও| প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বুধবার সকালে পাঁচতলার বর্হিবিভাগে প্রচুর ভিড় ছিল| আচমকাই বর্হিবিভাগের ১১৮ নম্বর রুমে পাখা থেকে ধোঁয়া বেরোতে দেখা যায়| প্রথমে বেশ কয়েকজন আতঙ্কে ছোটাছুটি শুরু করে দেন| তাঁদের দেখাদেখি অন্যরাও হুড়োহুড়ি শুরু করে দেন| ক্রমেই পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যায়| হুড়োহুড়ি ও সিঁড়ি থেকে নামার সময় অন্ততপক্ষে ৩১ জন আহত হয়েছেন| আহতদের মধ্যে কয়েকজনের আঘাত গুরুতর| পরে একজন মহিলার মৃত্যু হয়| খবর পাওয়ার পর হাসপাতালে চত্বরে এসে পৌঁছয় পুলিশ ও দমকলের দু’টি ইঞ্জিন| ধীরে ধীরে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে| হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, কিছুদিন আগেই পাখাটি লাগানো হয়েছিল| নতুন ফ্যানে কিভাবে আগুন লাগল তা নিয়ে রহস্য তৈরি হয়েছে| প্রাথমিকভাবে বিদ্যুৎ দফতরের গাফিলতিকেই দায়ী করা হচ্ছে| তাছাড়া নিরাপত্তা ও রক্ষণাবেক্ষণের অভাব রয়েছে বলেও মনে করা হচ্ছে| মৃত অনিমা মণ্ডলের মেয়ে শেফালি মণ্ডল জানিয়েছেন, ‘মেয়েকে নিয়ে আমি ও মা ডাক্তার দেখাতে এসেছিলাম| ডাক্তার দেখানোর জন্য লাইনে দাঁড়িয়েছিলাম আমরা| তিনতলায় গিয়ে শুনতে পারি সবাই বলছে আগুন লেগেছে| তারপর সবাই ছোটাছুটি শুরু করে| আমি নেমে বেরিয়ে আসি| মা বেরোতে পারেনি| পরে জানতে পারি পদপিষ্ট হয়ে মায়ের মৃত্যু হয়েছে|’ প্রসঙ্গত, প্রায় তিন বছর আগে (২৭.০৮.২০১৬) একইভাবে আগুন-আতঙ্কে হুড়োহুড়ি পড়ে গিয়েছিল মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে| বুধবার আবারও ফিরে এল তিন বছর আগের ভয়াবহ স্মৃতি| তাছাড়া ২০১৮ সালের ২০ এপ্রিল মুর্শিদাবাদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের এসি মেশিনে আগুন ঘিরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে| হিন্দুস্থান সমাচার/ রাকেশ
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image