Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, मार्च 23, 2019 | समय 10:09 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

সারা দেশে অঘোষিত ‘সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে: মমতা

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 13 2019 9:00PM
সারা দেশে অঘোষিত ‘সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে: মমতা
কলকাতা, ১৩ মার্চ (হি.স) : বাংলায় অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা করছে বিজেপি বলে বুধবার তোপ দাগলেন তৃনমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । গতকালই রাজ্যের ৪২টি আসনে প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূলনেত্রী । এদিন কালীঘাটে নিজের বাড়িতে দলের সেই ৪২ জন প্রার্থীকে নিয়ে বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । আজকের বৈঠকে ছিলেন অসমের বিভিন্ন কেন্দ্রের তৃণমূলপ্রার্থীরাও । দুপুর থেকেই দলীয় প্রার্থীদের নিয়ে দীর্ঘক্ষণ বৈঠক করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । বৈঠকের পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বিজেপির সমালোচনা করেন । সেখানেই সারা দেশে অঘোষিত ‘সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে বলে বিজেপিকে তোপ দাগেন তিনি । বলেন, ‘বিজেপি বাংলার মানুষকে অপমান করছে । বিজেপির মাথা খারাপ হয়ে গিয়েছে । বিজেপি মিথ্যা কথা বলছে’। তৃণমূল প্রার্থীদের নিয়ে আজ কালীঘাটে সাংবাদিক সম্মেলন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । বুধবারই পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত বুথকে স্পর্শকাতর ঘোষণা করার দাবি জানিয়েছে বিজেপি । বুধবার জাতীয় নির্বাচন কমিশনের কাছে গিয়ে এই দাবি জানিয়েছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় ও রাজ্য নেতারা । পশ্চিমবঙ্গের সব বুথকে স্পর্শকাতর ঘোষণা করার বিজেপির দাবির প্রেক্ষিতে এবার মুখ খুললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । সেই প্রসঙ্গেই মুখ্যমন্ত্রীর প্রশ্ন, ’বাংলার সব বুথকে কেন অতিস্পর্শকাতর ঘোষণা করা হবে ? ওরা কী ভাবছে, আমাকে নিয়ন্ত্রণ করবে’? শান্তিপূর্ণ রাজ্য হওয়া সত্ত্বেও অহেতুক পশ্চিমবঙ্গকে অপমান করতে চাইছে বিজেপি, এই অভিযোগ করেন তিনি । এমনকী বিজেপির তরফে এদিন বাংলায় সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা নেই বলে অভিযোগ করা হয় । তাই নির্বাচন কমিশনের কাছে বিজেপির দাবি জানিয়েছে, বাংলায় ‘মিডিয়া অবজারভার’ নিয়োগ করার জন্য । এ নিয়েও বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন মুখ্যমন্ত্রী । জানিয়েছেন, ‘সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতাকে সম্মান করে বাংলা’ । তিনি সাংবাদিকদের প্রশ্ন করেন, ‘সাংবাদিকদের উপর এই অপমানকে আপনারা সমর্থন করেন’ ? বলেন, ‘যদি না হয় তাহলে আপনারা প্রতিবাদ করুন । আমি আপনাদের নৈতিকভাবে সব সাহায্য করব । বাংলায় সাংবাদিকদের ভয় দেখানো হচ্ছে । সংবাদ মাধ্যমের জন্য পরর্যবেক্ষক লাগবে ? প্রেস ক্লাবের উচিত তাঁদের প্রতি অসস্মানের প্রতিবাদ করা । আমি দিল্লি প্রেস ক্লাবকে বলছি । কলকাতা প্রেস ক্লাবকে বলছি এর প্রতিবাদ করুন’ । তিনি বলেন,’জাতীয় সংবাদ মাধ্যমকে তো বিজেপি নিয়ন্ত্রণ করেই রেখেছে । বাংলাকে চিরকাল ওরা অসম্মান করেছে । এখনও করছে । এই লাঞ্ছনা বাংলার মানুষ মেনে নেবে না । তাদের প্রতিবাদ ব্যালটে দেখা যাবে । তৃণমূল নেত্রী এদিন রাজস্থানে পঞ্চায়েত নির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন । জানিয়েছেন, সেখানে কীভাবে বিজেপির সরকার থাকাকালীন ৯৮ শতাংশ আসনে বিজেপি বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছিল । একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘ত্রিপুরায় পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৯৮ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় বিজেপি জয়ী হলে কিছু হয় না । বেছে বেছে বাংলাকেই টার্গেট করা হয় অপমান করার জন্য । মোদী-অমিত শাহের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্যই এই আক্রমণ চলছে । কিন্তু আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই । ওদের কোনও রাজনৈতিক দল বলেই মনে করি না’। পাশাপাশি, ‘সব কিছুরই একটা সীমা আছে’, এই মন্তব্য করে তৃণমূলনেত্রী জানান, ‘বাংলায় পেশীশক্তি দেখিয়ে বিজেপির কোনও লাভ হবে না । এই লাঞ্ছনা, গঞ্জনা, বাংলাকে অপমান করার জবাব রাজ্যের ৪২টি আসনেই বিজেপি পাবেন বলে মন্তব্য করেন তিনি । সাংবাদিক বৈঠকে একই সঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিজেপি তো এ বার নির্বাচন কমিশনকেও ভোট দিয়ে আসতে বলবে । আসলে বিজেপি আমাকে ভয় পাচ্ছে । পশ্চিমবঙ্গ আসলে শান্তিপূর্ণ রাজ্য । আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখা রাজ্যের দায়িত্ব । দেশে কোথাও গণতন্ত্র আছে ? গোরক্ষা-গণপিটুনিতে কত জন মারা গিয়েছে’? এই কথা বলার পরই সারা দেশে ‘অঘোষিত সুপার-ইমার্জেন্সি’ চলছে বলে দাবি করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । আসানসোলে মুনমুন সেনের তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে ভোটে দাঁড়ানো নিয়ে মমতার মন্তব্য, ‘ইতিমধ্যেই মুনমুনকে ভয় পেতে শুরু করেছে বিজেপি নেতা বাবুল সুপ্রিয়। সেই জন্যই মুনমুনকে নিয়ে আবোল-তাবোল বলার শুরু হয়েছে’। বাবুল সুপ্রিয় প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ওটাকে আমি মানুষ বলে মনে করি না । একই সঙ্গে তৃণমূলনেত্রীর হুঁশিয়ারি, আগামী লোকসভা নির্বাচনে মুনমুনের বিরুদ্ধে দাঁড়ালে বাবুলের জামানত বাজেয়াপ্ত হবে । মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, তৃণমূল কর্মীদের ওপর আস্থা আমার আছে । ‘দু’ এক জন প্রার্থী হওয়ার লোভ করেছিল । কারও কারও এজেন্সির ভয় আছে । তারা বেরিয়ে গেলে কিস্যু এসে যায় না । কারা তাঁদের প্রার্থী করল, সেই পরোয়া করি না’। একই সঙ্গে দেশে গণতান্ত্রিক সরকার আনার জন্যই মোদীকে সরতেই হবে বলে অভিমত তাঁর। হিন্দুস্থান সমাচার / হীরক/ সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image