Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 21:55 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহার করতে কমিশনকে দায়িত্ব নিতে হবে : বিজেপি

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 13 2019 9:23PM
কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহার করতে কমিশনকে দায়িত্ব নিতে হবে : বিজেপি
কলকাতা, ১৩ মার্চ (হি.স.) : কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সঠিকভাবে ব্যবহার করার ব্যাপারে কমিশনকেই দায়িত্ব নেওয়ার দাবি জানাল বিজেপি। বুধবার নয়াদিল্লির নির্বাচন সদনে যান কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশঙ্কর প্রসাদ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন, বিজেপি নেতা মুকুল রায় ও কেন্দ্রীয় বিজেপি-র তরফে পশ্চিমবঙ্গের পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয়। কমিশনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে দেখা করে বাইরে এসে সাংবাদিকদের রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ‘আমরা কমিশনকে জানিয়েছি, পশ্চিমবঙ্গের পুলিশের উপর ভরসা করে সুষ্ঠুভাবে ভোট করা সম্ভব নয়। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ব্যবহার করার ক্ষেত্রে যেন কমিশন রাজ্য পুলিশের উপর ভরসা না করে’। এদিন বিজেপি নেতারা জানান, কমিশনের কাছে পঞ্চায়েত নির্বাচনের সমস্ত ঘটনার কথা তুলে ধরা হয়েছে। এত হিংসা, এত রক্ত দেশের কোনও রাজ্যে হয় না। রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ‘পঞ্চায়েত নির্বাচনে বাংলায় কী হয়েছে গোটা দেশ দেখেছে। ১০০ জন মানুষের মৃত্যু, গণনার দিন কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট পেপার জ্বালিয়ে দেওয়া, কোনো গণতান্ত্রিক পরিবেশের নমুনা নয়। গণনার টেবিলে পর্যন্ত ছাপ্পা দিয়েছে তৃণমূল। বিরোধী দলগুলির জয়ী প্রার্থীরা পশ্চিমবঙ্গে ঢুকতে পারছেন না। পশ্চিমবঙ্গের মাটিতে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহের কপ্টার অবতরণের অনুমতি পাচ্ছে না’। বিজেপি নেতাদের কথায়, ‘বাংলায় সাংবিধানিক পরিকাঠামো ভেঙে পড়েছে। যে রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রী ধরনায় সে রাজ্যের আইপিএস অফিসাররা বসে পড়েন সেখানকার প্রশাসন কেমন তা সে দিনই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল’। বিজেপির দাবি, গোটা বাংলাটাই স্পর্শকাতর। এই পরিস্থিতিতে বিজেপির দাবি, গোটা পশ্চিমবঙ্গকে স্পর্শকাতর ঘোষণা করে সমস্ত বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করতে হবে। এদিন রবিশঙ্কর প্রসাদ বলেন, ''আমরা কমিশনের কাছে গোটা পশ্চিমবঙ্গকে স্পর্শকাতর ঘোষণার দাবি জানিয়েছি। সঙ্গে নিরপেক্ষ নির্বাচনের স্বার্থে প্রতিটি বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছি কমিশনের কাছে’। শুধু তাই নয়, বিজেপির দাবি, রাজ্য সরকারের পাঠানো রং মাখানো রিপোর্ট নয়, কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষকদের রিপোর্টের ভিত্তিতে পদক্ষেপ করতে হবে কমিশনকে । এমনকী আধাসেনা মোতায়েন করতে হবে পর্যবেক্ষকদের নির্দেশে । স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের আধিকারিকদের তাতে কোনও হস্তক্ষেপ চলবে না । এছাড়া রাজ্যে যে সমস্ত আধিকারিকদের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বের অভিযোগ রয়েছে তাদের নির্বাচন প্রক্রিয়ার বাইরে রাখতে আবেদন জানিয়েছে বিজেপি । এছাড়া পশ্চিমবঙ্গে আলাদা করে মিডিয়া পর্যবেক্ষক নিয়োগের দাবি করেছে বিজেপি। বিজেপির অভিযোগ, ‘শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কাছে লাউড স্পিকার বাজানোয় নিষেধাজ্ঞা জারি করে আইন বানিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। এমন কোনও আইন দেশে নেই। বিরোধীদের কণ্ঠরোধ করতে একাজ করেছে সরকার। পরীক্ষার সময় লাউড স্পিকার না বাজানোর পিছনে যুক্তি আছে। কিন্তু মার্চে পরীক্ষা শেষ হয়ে যাচ্ছে তার পর লাউড স্পিকার বাজিয়ে প্রচারে সমস্যা কী’ ? আজ নির্বাচন কমিশনে রাহুল গান্ধীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করে বিজেপি। এ প্রসঙ্গে রবিশংকর প্রসাদ বলেন, ‘ভোটের আদর্শ আচরণবিধি লাগু হয়েছে। অথচ গতকাল আহমেদাবাদে প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করেছেন রাহুল গান্ধী। রাহুলের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে আর্জি জানিয়েছে কমিশনকে’। রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে,নির্বাচন ঘোষণার আগে থেকেই কমিশনের উপর চাপ বাড়াতে শুরু করেছে বিজেপি । গত সপ্তাহে রাজ্য নির্বাচন কমিশনের মুখ্য আধিকারিক আরিজ আফতাবের সঙ্গে দেখা করেছিলেন মুকুল রায়, শমীক ভট্টাচার্যরা । সেদিন নিয়মানুযায়ী কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে ওই পদ থেকে সরতেই হতো । কারণ কমিশনের নিয়মানুযায়ী কোনও পুলিশ কর্তার এক পদে তিন বছর হয়ে গেলে তাঁকে আর সেই পদে রাখা যায় না। তাই তাঁকে সরিয়ে ডিআইজি সিআইডি-র দায়িত্ব দেওয়া হয় । কিন্তু নির্বাচন কমিশনের আইনকানুন গুলে খাওয়া মুকুল রায় বলেন, কলকাতার কমিশনার পদ থেকে রাজীব কুমারকে সরালেও কায়দা করে তাঁকে ইকোনামিক অফেন্সের অতিরিক্ত দায়িত্বে রেখে দেওয়া হয় । যা কলকাতা পুলিশেরই অধীনস্ত সংস্থা । এটাকে নবান্নের কারসাজি বলেও উল্লেখ করেন মুকুল রায় । কাকতালীয় ভাবে তারপরেই দেখা যায়, নবান্ন থেকে বিজ্ঞপ্তি জারি করে রাজীবকে অতিরিক্ত দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয় । হিন্দুস্থান সমাচার / হীরক/ সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image