Hindusthan Samachar
Banner 2 शनिवार, मार्च 23, 2019 | समय 10:41 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

করিমগঞ্জের জনবসতি এলাকায় জ্বালানি গ্যাসের গুদাম, আতঙ্কিত পুরবাসী

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 14 2019 5:42PM
করিমগঞ্জের জনবসতি এলাকায় জ্বালানি গ্যাসের গুদাম, আতঙ্কিত পুরবাসী
করিমগঞ্জ (অসম), ১৪ মার্চ (হি.স.) : করিমগঞ্জ শহরের পুর তথা ঘন জনবসতি এলাকায় জ্বালানি গ্যাাসের গুদাম ঘর তৈরির ঘটনায় আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। বিভাগীয় নিয়মনীতি লঙ্ঘন করে পুর এলাকার অভ্যন্তরে গ্যাসের গুদাম নির্মাণ করায় ক্ষুব্ধ মাইজডিহির এক নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দারা। অনতিবিলম্বে জনবহুল এলাকা থেকে ইন্ডেন কোম্পানির এই গ্যাসের গুদাম অন্যাত্র সরিয়ে নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে বলেছেন এলাকার নাগরিকরা। অন্যথা তাঁরা গুদামটি ভেঙে গুঁডিয়ে দেওয়ার পাশাপাশি আদালতে মামলা করতে বাধ্য হবেন বলে জানিয়ে দিয়েছেন। মাইজডিহি এক নম্বর ওয়ার্ডের হয়ে ফকরুল ইসলাম, তজম্মুল আলি, মইনুল হক চৌধুরীরা অভিযোগ তুলে বলেছেন, শহরের নেতাজিপল্লির জনৈক গোপাল দাস নামের শারীরিকভাবে বাধাগ্রস্ত ব্যক্তি হ্যান্ডিক্যাপের কোটায় ইন্ডেন গ্যাস কোম্পানির জ্বালানি গ্যাসের বরাত পেয়েছিলেন। তাঁরা বলেন, গরিব নিম্নবিত্ত শ্রেণির গোপাল দাস ভাড়া বাড়িতে থাকেন। আবেদনে নিজেকে বেকার বলে লিখেছিলেন গোপাল দাস। কিন্তু পরবর্তীতে টেট পরীক্ষা দিয়ে শিক্ষকতার চাকরি পেয়ে তা ছেড়ে দেন। তবে একজন শারীরিকভাবে বাধাগ্রস্ত নিম্নবিত্ত পরিবারের লোক গোপাল দাসের পেছনে রয়েছেন স্থানীয় হুমায়ুন আলমগীর চৌধুরী এবং জুবের আহমেদ নামের দুই ব্যক্তি। এঁরা আবার সামাজিক এবং আর্থিকভাবেও প্রতিষ্ঠিত। পেছন থেকে এঁদের মদতে গোপাল দাস এজেন্সির জন্য আবেদন করেছিলেন এবং পরবর্তীতে টেট শিক্ষকের চাকরিতে ইস্তফা দেওয়ারও সাহস পেয়েছিলেন বলে জানান অভিযোগকারীরা। তাঁরা বলেছেন, সে যা-ই হোক না-কেন, তাঁদের আপত্তি গ্যাসের গুদাম ঘর নির্মাণ করাকে কেন্দ্র করে। তাঁরা বলেছেন, ভারতীয় তেল নিগমের গাইড লাইনে শহর এলাকা থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে গ্যাস সিলিন্ডার মজুত রাখার জন্য ঘর নির্মাণ করার কথা স্পষ্ট লেখা রয়েছে। কিন্তু সরকারের সব ধরনের নীতি-নির্দেশিকা লঙ্ঘন করে ঘনবসতি এলাকায় এ ধরনের জ্বালানির গুদাম তৈরি করছেন এজেন্সির স্বত্বাধিকারী। তাঁদের বক্তব্য, ঘন জনবসতি এলাকায় তৈরি গুদামে রান্নার গ্যাস মজুত করলে সম্ভাব্য অঘটনজনিত ঘটনায় যদি নাগরিকদের প্রাণহানি বা অন্য দুর্ঘটনা ঘটে তা হলে এর দায় কে নেবেন? নাগরিকদের নিরাপত্তার কথা চিন্তা করে সরকারি নির্দেশিকা অনুসারে গ্যাস সিলিন্ডার মজুত রাখার ঘর নির্মাণ হলে তাঁদের কোনও আপত্তি নেই বলেও জানান অভিযোগকারীরা। হুমায়ুন আলমগীররা জানান, বিষয়টি ইতিমধ্যে তাঁরা জেলাশাসকের নজরে নিয়েছেন। তাছাড়া ডিস্ট্রিক্ট লিগ্যাল সার্ভিস অথরিটির কাছেও লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। হিন্দুস্থান সমাচার / জন্মজিৎ / এসকেডি / কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image