Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 20:58 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরতে দেওয়ার দাবীতে, নদীতে অবস্থান বিক্ষোভ মৎস্যজীবীদের

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 14 2019 7:18PM
সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরতে দেওয়ার দাবীতে, নদীতে অবস্থান বিক্ষোভ মৎস্যজীবীদের
সুন্দরবন, ১৪ মার্চ (হি. স.) : ২০১৭ সালে কেন্দ্রীয় সরকার সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মৎস্যজীবীদের প্রবেশের উপর বেশ কিছু ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। আর সেই কারণেই সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বন দফতরের বাঁধার সম্মুখীন হচ্ছেন মৎস্যজীবীরা। বন দফতর মৎস্যজীবীদের নৌকা, জাল সহ মাছ কাঁকড়া ধরার সামগ্রী কেঁড়ে নিচ্ছে বলে ও অভিযোগ। এই ঘটনার জেরে চরম সমস্যার মধ্যে পড়েছেন মৎস্যজীবীরা। মৎস্যজীবীদের অভিযোগ তাদের কাছ থেকে জল, জঙ্গলের অধিকার কেঁড়ে নেওয়া হয়েছে। খর্ব কড়া হয়েছে তাদের মাছ ধরার অধিকার। আর সেই কারণে সুন্দরবনের নদী ও খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরার অধিকার ফেরতের দাবীতে বৃহস্পতিবার দক্ষিণ ২৪ পরগণা জেলার সুন্দরবনের একাধিক জায়গায় নদীতে নৌকা নিয়ে অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করলেন মৎস্যজীবীরা। ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনাইটেড ফিসারম্যান এসোসিয়েশানের ডাকে এদিনের এই অবস্থান কর্মসূচী পালিত হয়। বিকল্প কর্ম সংস্থানের ব্যবস্থা না করে কিছুতেই সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মৎস্যজীবীদের মাছ ধরার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি কড়া যাবে না। মৎস্যজীবীদের উপর বন দফতরের অত্যাচার বন্ধ করা ও কথায় কথায় মৎস্যজীবীদের নৌকা, জাল সহ মাছ ধরার অন্যান্য জিনিষপত্র কেঁড়ে নেওয়া, বন দফতর দ্বারা বাজেয়াপ্ত করা মৎস্যজীবীদের নৌকা, জাল ফেরতের দাবী সহ মৎস্যজীবী বিরোধী ফরেস্ট আইন বাতিলের দাবীতে এদিন নদীবক্ষে অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেন মৎস্যজীবীরা। দক্ষিণ ২৪ পরগণার সুন্দরবনের গোসাবা, ঝড়খালী, চিতুরি, পাথরপ্রতিমা, কুয়েমারী সহ ব্যঘ্র প্রকল্পের আওতাভুক্ত বিভিন্ন এলাকায় নদীতে শ’য়ে শ’য়ে নৌকা, ট্রলার নিয়ে এদিন অবস্থান বিক্ষোভ করেন কয়েক হাজার মৎস্যজীবী। মৎস্যজীবীদের দাবী সুন্দরবন এলাকায় অন্তত তিন লক্ষের বেশী মাছ কাঁকড়া ধরার নৌকা, ট্রলার রয়েছে। আর এই পেশার উপর নির্ভর করে অন্তত কুড়ি লক্ষের বেশী মানুষ জীবনযাপন করছেন। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের ফরেস্ট আইনের ফলে সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরার জন্য প্রবেশাধিকার হারাচ্ছেন মৎস্যজীবীরা। কিন্তু তবুও পেটের টানে সুন্দরবনের নদী, খাঁড়িতে মাছ কাঁকড়া ধরতে গেলে বন দফতরের অত্যাচারের মুখে পড়তে হচ্ছে। ফলে মৎস্যজীবীদের অস্তিত্ব বিপন্ন। বিকল্প কর্ম সংস্থান না করে মৎস্যজীবী বিরোধী আইন করা যাবে না বলে দাবী তুলেছেন সুন্দরবনের মৎস্যজীবীরা। আর সেই কারণেই এদিন নদীবক্ষে অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচী পালন করেন তারা। এ বিষয়ে ওয়েস্ট বেঙ্গল ইউনাটেড ফিসারম্যান এসোশিয়েশানের অন্যতম নেতা জয়কৃষ্ণ হালদার বলেন, “ সুন্দরবনের মৎস্যজীবীরা নিজেদের অস্তিত্ব বাঁচানোর লড়াইয়ে নেমেছে। দিনের পর দিন বিভিন্ন ধরনের কালা নিয়ম করে মৎস্যজীবীদের কাছ থেকে জল জঙ্গলের অধিকার কেঁড়ে নেওয়া হচ্ছে। দিনের পর দিন বন দফতরের অত্যাচারের সম্মুখীন হতে হচ্ছে মৎস্যজীবীদের। ২০১৭ সালে কেন্দ্রের তৈরি ফরেস্ট আইন অবিলম্বে বাতিল করে সুন্দরবনের নদী খাঁড়িতে মৎস্যজীবীদের মাছ কাঁকড়া ধরার অধিকার ফেরত দিতে হবে”। হিন্দুস্থান সমাচার / প্রসেনজিত
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image