Hindusthan Samachar
Banner 2 रविवार, मार्च 24, 2019 | समय 20:37 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

নির্বাচনী লড়াইয়ে হ্যাট্রিক করার লক্ষ্যে তারাপীঠে পুজো দিলেন শতাব্দী

By HindusthanSamachar | Publish Date: Mar 14 2019 7:38PM
নির্বাচনী লড়াইয়ে হ্যাট্রিক করার লক্ষ্যে তারাপীঠে পুজো দিলেন শতাব্দী
তারাপীঠ, ১৪ মার্চ (হি. স.) : নির্বাচনী লড়াইয়ে হ্যাট্রিক করার লক্ষ্যে তারাপীঠে ষোড়শ উপাচারে পুজো দিয়ে প্রচার শুরু করলেন তৃনমুলের তারকা প্রার্থী শতাব্দী রায়। সমন্নয় রক্ষায় ফুলি ডাঙ্গা মাজারে ও মাথা ঠুকে দোয়া করলেন তিনি। তবে বিরোধীরা তার লেভেলে তারকা প্রার্থী দাড় করলেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী শতাব্দী। লোকসভা নির্বাচনে নির্ঘণ্ট প্রকাশের সাথে সাথেই রাজনৈতিক দলগুলি তাদের মনোনীত প্রার্থীদের বাছাই ইতিমধ্যেই শুরু করে দিয়েছে। তবে সবার থেকে এগিয়ে পশ্চিমবঙ্গে শাসনে থাকা রাজনৈতিক দল তৃণমূল কংগ্রেস গত সোমবারই রাজ্যের বিভিন্ন লোকসভা কেন্দ্রে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করেছে। এই প্রার্থী তালিকায় বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রে স্থান পেয়েছে অভিনেত্রী শতাব্দী রায়। তবে তিনি এবারই প্রথম নয় এর আগেও দু দুবার এই কেন্দ্রে লড়াই করেছেন এবং জয় হাসিল করেছেন। আর এবার তৃণমূলের তরফ থেকে দলীয় ভাবে তাকে লোকসভা নির্বাচনে লড়ার জন্য বেছে নেওয়াই তৃতীয়বারের জন্য তিনি লড়াইয়ের ময়দানে। বৃহস্পতিবার ভোর বেলা ট্রেন ধরে রওনা দিয়েছেন রামপুরহাট উদ্দেশ্য। স্টেশনে নেমে সোজা গন্তব্য তারাপীঠ। পরনে লালপাড সাদা শাড়ি। মাথায় লাল টিপ। গাড়ি থেকে নেমে পায়ে হেঁটে পৌঁছে যান সোজা তারাপীঠ মন্দিরে। সঙ্গে এসেছেন কন্যা সামিযানা কে। মায়ের হাত ধরে গুটি গুটি পায়ে সেও পৌঁছানো মন্দিরে। তারাপীঠ মন্দিরে তখন তিলধারনের জায়গা নেই। নিরাপত্তা রক্ষী রা ভিড় সামলাতে নাজেহাল। বেলা সাড়ে ১১ নাগাদ মন্দিরে পৌঁছে ষডশ উপাচারে দেবী বন্দনা করলেন শতাব্দী রায়। ১০৮ জবা ফুলের মালা, আলতা, সিঁদুর, কাপড়, মায়ের ভোগে প্যারা, বহু বিধ উপাচারে দেবী বন্দনা করলেন দুই বারের বীরভূমের সাংসদ। পুরোহিত সজল চ্যাটার্জি মন্ত্র উচ্চারণ মাধ্যমে পুজো দেন শতাব্দী। পুজো দিযে বেরিয়ে এসে শতাব্দী বলেন, "শুধু নিজের জয লাভ করার জন্য পুজো দি নি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জন্য পুজো দিয়েছি। তিনি সুস্থ ভালো থাকলে আমাদের রাজ্য টা ও ভালো থাকবে।" এদিন তারা মায়ের কাছে পুজো দিযে দলীয় কার্যালয়ে কর্মী দের সঙ্গে মিলিত হন শতাব্দী পরে লাগোয়া ফুলি ডাঙ্গা মাজারে দোয়া করে প্রচার শুরু করে শতাব্দী। লোকসভা ভোটের লড়াইয়ে নেমে তিনি এদিন তারাপীঠ মন্দিরের তারা মায়ের পুজো দিয়ে নতুন করে প্রচার শুরু করলেন। তারা মায়ের কাছে পুজো দেওয়ার পর তিনি বলেন, "মায়ের কাছে আমার মনোবাঞ্ছা জানিয়েছি। আমার বিশ্বাস এবারের লোকসভা নির্বাচনে অন্যান্য বছরের তুলনায় ভোটের ব্যবধান অর্থাৎ আমার জয়ের ব্যবধান আরও বাড়বে। সেখানেই বিরোধী বলতে তো কাউকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে না। কংগ্রেস সিপিএম নিজেদের মধ্যেই সমঝোতা নিয়ে ব্যস্ত।" অন্যদিকে তিনি সাংবাদিকের সামনে এক প্রকার স্বীকার করে নেন, ফল ঘোষণার পর হয়তো বিজেপিই দ্বিতীয় স্থানে থাকতে পারে। তবে জয়ের ব্যবধানে বিশাল ফারাক থাকবে।এদিন তাকে প্রশ্ন করা হলে শতাব্দী বিজেপি যদি তার সমতুল্য কোন সেলিব্রিটি কে দাঁড়ালেও জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী শতাব্দী ! "বিজেপি এবার হেভিওয়েট সেলিব্রিটি প্রার্থী দেবে ? জিততে অসুবিধা হবে না ?" সাংবাদিকদের প্রশ্ন শুনেই শতাব্দী বললেন, " আমি অহংকার করে বলছি না। গত দুবছরে এখনও পর্যন্ত যারা প্রার্থী হয়েছেন তারা কেউই আমার সমকক্ষ নয়। যারা আমার সম কক্ষ তারাও যদি ভোট দাঁড়ায় তবু আমি জিতব। কারন এখন শুধু আমি সেলিব্রিটি প্রার্থী নই। গত দশ বছরের কাজ আমার সঙ্গে আছে।" এক সময় বীরভূমের জেলা সভাপতি সঙ্গে সম্পর্ক একটু হলেও চিড ধরেছিল।কিন্তু সেই সম্পর্ক যে এখন দলনেত্রী মধ্যস্থতায অনেকখানি মেরামত হযে গেছে তা শতাব্দী কথা থেকেই পরিস্কার। দলনেত্রী ভরসা রেখেছেন, প্রার্থী হয়ে কেমন লাগছে ? এই বিষয়ে শতাব্দী বলেন, "মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই নিয়ে তিনবার আমার উপর ভরসা রাখলেন। আমি দলনেত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞ। ২০০৯ সালে যে সংগঠন ছিল তার থেকে এবার অনেক মজবুত হয়েছে। এবার ভোট আরও বাড়বে।।" অনুব্রত মন্ডল প্রসঙ্গে তিনি বলেন, "আমি যার দল করি সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দল করেন কেষ্ট দা তাই আমাদের মধ্যে কোন বিরোধ নেই। সংসারে থাকলে একটু ঠোকা ঠুকি হয়। তবে প্রার্থী ঘোষনার আগে থেকেই কেষ্ট দার সঙ্গে কথা হয়েছে বার বার। আবার প্রার্থী ঘোষনা হবার পর কেষ্ট দা কোলকাতায় আমাকে বলেছেন তুমি তিন লাখ ভোট পাবে কোন চিন্তা নেই। " হিন্দুস্থান সমাচার /হেমাভ
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image