Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 08:28 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বিজেপি পাহাড়ের জন্য কিছু করে নি: মমতা

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 12 2019 5:39PM
বিজেপি পাহাড়ের জন্য কিছু করে নি: মমতা
কলকাতা, ১২ এপ্রিল (হি.স): ''বিজেপি পাহাড়ের জন্য কিছু করে নি'', বলে শুক্রবার কার্শিয়াঙে দাবি করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কার্শিয়াঙে একটি নির্বাচনী জনসভায় বক্তব্য পেশ করেন তৃণমূল নেত্রী। তিনি বলেন, ''বিজেপি ভোট পাখি। ওরা ভোটের সময় আসে। আবার ভোট ফুরোলে চলে যায়। আপনাদের সাংসদ সুরিন্দর সিং আলুয়ালিয়ার দেখা পেয়েছিলেন কী? অথচ আমি ৫ বছরে ৩৫ বার দার্জিলিং-এ এসেছি। প্রতি তিন মাসে আমি একবার আসি''। দ্বিতীয় দফায় ১৮ এপ্রিল রাজ্যে রায়গঞ্জ, জলপাইগুডি় এবং দার্জিলিং আসনে ভোটগ্রহণ। তাই, ভোট প্রচারে আজও পাহাড়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল দার্জিলিঙে নির্বাচনী জনসভা করেন মুখ্যমন্ত্রী। সেখানে বিজেপি তথা কেন্দ্র সরকারকে জোরালো আক্র্মণ করেন মুখ্যমন্ত্রী। দার্জিলিং কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী অমর সিংহ রাই। কংগ্রেসের প্রার্থী শঙ্কর মালাকার। বিজেপি প্রার্থী করেছে রাজু বিস্তকে। গতকাল বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ দাবি করেন তাঁদের প্রার্থী রাজু বিস্ত ভূমিপুত্র। আজ এর জবাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ''রাজু বিস্তকে মনিপুর থেকে নিয়ে আসা হয়েছে''। তৃণমূল সুপ্রিমো দাবি করেন, ''আমরা মিলেমিশে সরকার গড়ব। ওরা ৫৪৩ আসনে ১০০ আসনও পাবে না। উত্তর-পূর্বে এনআরসির জন্য কেউ ভোট দেবে না। কর্নাটক, তামিলনাড়ু, ওড়িশা, অন্ধ্রপ্রদেশ কোথাও মানুষ বিজেপিকে ভোট দেবে না । বাংলায় জিরো হয়ে যাবে। বিজেপি কী ভাবে জিতবে ? উত্তরপ্রদেশে ৭৩টা আসন ছিল, এবার অর্ধেকও পাবে না''। নাগরিকপঞ্জি নিয়ে শুক্রবার বিজেপিকে এক হাত নেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বলেন, ''সিটিজেনশিপ বিলে কী আছে? পাঁচ বছরের জন্য প্রথমে আপনাদের বিদেশি বানিয়ে দেবে, তার পর কী হবে, কেউ জানে না। আমরা নাগরিকপঞ্জি কিছুতেই করতে দেব না। অসমে বাঙালিদের তাড়ানোর চক্রান্ত হচ্ছে''। তিনি প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উদ্যেশ্যে বলেন, ''ওরা এখনকার কথা বলেন না, বলছেন ২০৪৭ সালে পাবেন, স্বাধীনতার ১০০ বছর পূর্তিতে। নোটবন্দি করে দেশের মানুষের টাকা লুটে নিয়েছেন চৌকিদার চোর হ্যায়, চৌকিদার চুরি করেছে। নরেন্দ্র মোদী বলেছিলেন, ক্ষমতায় এলে ১৫ লাখ টাকা দেওয়া হবে। সেই টাকা পাওয়া গিয়েছে? যায়নি। আমরা এরকম নই যে, যা বলছি, তা ভুলে যাব। মোদী আসবেন, অমিত শাহ আসবেন চলে যাবেন। কিন্তু সেনাবাহিনী সব সময় থাকবে, তাঁরা আমাদের দেশের গর্ব। সেনার নামে যা হচ্ছে, তা নিন্দনীয় । সেনার জন্য ভোট দিন, এটা আমরা কখনও বলিনি''। তিনি বলেন, ''কার্শিয়াঙে কার পার্কিং হয়েছে, আপনারা আরও পরিকল্পনা করুন, আমরা সব রকম সাহায্য করব। এখানকার যুবক-যুবতীরা পড়াশোনা করতে পারবেন, বাইরের প্রচুর যুবক-যুবতীও পড়তে আসবেন। কার্শিয়াঙে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাস তৈরি করার কাজ শুরু হয়েছে। আপনাদের বাইরে যাওয়ার দরকার নেই। আমি বলেছি, আপনাদের ইউনিভার্সিটি আমরা করে দেব। পাহাড়র মানুষ, আপনারা কতদিন ধরে দাবি করেছেন, একটা কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় চাই। পাহাড়ের দাবিদাওয়াকে বিজেপি কখনওই গুরুত্ব দেয়নি। গতকাল দার্জিলিঙে দেখেছি, প্রচুর পর্যটক এসেছেন। পাহাড়ের প্রচুর উন্নয়ন হয়েছে, প্রচুর পর্যটক আসছেন''। হিন্দুস্থান সমাচার / হীরক/ সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image