Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 07:52 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বীরভূম লোকসভা আসনে নয় যোদ্ধা সম্মুখ সমরে

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 12 2019 9:47PM
বীরভূম লোকসভা আসনে নয় যোদ্ধা সম্মুখ সমরে
সিউড়ি ১২ এপ্রিল(হি.স.) : প্রহর গোনা শুরু। বীরভূম কেন্দ্রে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করলেন মাত্র একজন। ফলে এবারের লোকসভা ভোটে সম্মুখ সমরে নয় যোদ্ধা। তাদের মধ্যে আবার পাঁচজনই সংখ্যালঘু প্রার্থী হওয়ায় ভোট ভাগাভাগিতে কোন রাজনৈতিক দলের অ্যাডভান্টেজ বেশি হবে তাই নিয়ে রাজনৈতিক মহলে জল্পনা তুঙ্গে। বীরভূম লোকসভা কেন্দ্র এবার প্রথম থেকেই নজরকাড়া হয়ে উঠেছে। তৃতীয়বারের জন্য এই কেন্দ্র থেকে প্রার্থী হয়েছেন তৃণমূলের শতাব্দী রায়। অন্যদিকে বিজেপির প্রার্থী দুধকুমার মন্ডল। যুযুধান দুই রাজনৈতিক দলের লড়াই অবশ্য সীমাবদ্ধ নেই শতাব্দী- দুধকুমারের মধ্যেই। কারণ বীরভূম কেন্দ্রের ভোট যুদ্ধে সামিল হয়েছেন আরও ছয়জন। আর তাদের মধ্যে পাঁচজনই সংখ্যালঘু। তারা হলেন ইমাম হোসেন (কংগ্রেস), রেজাউল করিম (সিপিএম), আয়েসা খাতুন (এসইউসিআই), আব্দুল হামিদ (রাষ্ট্রবাদী জনতা পার্টি), মহম্মদ ফিরোজ আলি (ভারতীয় ন্যাশানাল জনতা দল)। এই কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন একমাত্র সিপিএমের ডামি প্রার্থী মতিউর রহমান। জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বসু বলেন, “একজন প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন”। এদিকে প্রার্থীদের নামে শিলমোহর পড়তেই অবশ্য ভোটব্যাঙ্কে গণিতের হিসেব নিকেশ শুরু করে দিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলি। রাজনৈতিক মহলের মতে এই কেন্দ্রে প্রায় তিরিশ শতাংশ সংখ্যালঘু ভোট রয়েছে। কোন রাজনৈতিক দল তাদের কাছে টানতে পারবে তা নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। তৃণমূল অবশ্য প্রকাশ্যেই দাবি করেছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে আদিবাসী সংখ্যালঘু সব মানুষের জন্য একাধিক প্রকল্প করেছে রাজ্য সরকার। তার সুবিধা পাচ্ছেন তারা। আর তাই সংখ্যালঘু ভোট ব্যাঙ্কের বড় অংশই তাদের পক্ষে থাকবে। তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের জেলা সভাপতি কাজি ফরজুদ্দিন বলেন, “বীরভূম কেন্দ্রে পাঁচজন সংখ্যালঘু প্রার্থী। অনেকেই ভাবছেন ভোট বোধহয় ভাগ হবে। কিন্তু তেমনটা নয়। সংখ্যালঘুদের জন্য রাজ্য সরকারের যেসব প্রকল্প রয়েছে তার সুবিধা প্রত্যেকেই পাচ্ছেন। তাই ভোট ভাগাভাগির কোন্ সম্ভাবনা নেই। আমাদের পক্ষেই ভোটাররা থাকবেন”। অন্যদিকে সিপিএম প্রার্থী রেজাউল করিম বলেন, “প্রত্যেক ভোটারই সচেতন। তারা জানেন কোন প্রার্থীকে ভোট দিলে তাদের ভোট নষ্ট হবেনা। আমি কোন বিশেষ শ্রেণির কথা বলব না। তবে গত কয়েক বছরে কেন্দ্রে বিজেপি রাজ্যে তৃণমূলের সরকার দেখেছেন তারা। কিভাবে দেশ ও রাজ্য চলছে তা তারা জানেন। সেই মাপকাঠি থেকেই ভোটারদের কাছে পাবো বলে আশাবাদী আমি”। অন্যদিকে বিজেপি প্রার্থী দুধকুমার মন্ডল বলেন, “হিসেব নিকেশ মুখে বলে লাভ নেই। এরাজ্যের মানুষ দেখেছেন চাকরিতে দুর্নীতি, স্বজনপোষন, মাফিয়ারাজ চলছে। সব মানুষ চাইছেন নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে আরও একবার কেন্দ্রে সরকার প্রতিষ্ঠিত হোক। আর তা করতে হলে দুধকুমার মন্ডলকে জেতাতে ভোটাররা আমাদের পক্ষ্যেই থাকবেন বলেই আশাবাদী”। তবে যূযুধান রাজনৈতিক দলগুলির নেতা ও প্রার্থীরা যাই বলুননা কেন ভোট ভাগাভাগির খেলায় যে লড়াই হবে সমানে সমানে তা প্রায় নিশ্চিত বলেই মত রাজণৈতিক মহলের। হিন্দুস্থান সমাচার/হেমাভ /সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image