Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 06:18 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

ফের উত্তপ্ত বীরভূমের মাড়গ্রাম, গুরুতর আহত এক

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 13 2019 9:42PM
ফের উত্তপ্ত বীরভূমের  মাড়গ্রাম, গুরুতর আহত এক
মাড়গ্রাম, ১৩ এপ্রিল (হি.স.) : ব্যক্তিগত ঝামেলাকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত মাড়্গ্রাম। ঘটনায় গুরুতর এক ব্যক্তি রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। দোকানপাট বন্ধ হয়ে যায়। রামপুরহাট মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সৌম্যজিত বড়ুয়ার নেতৃত্বে বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছান। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এলাকাসূত্রে জানা গেছে, মাড়্গ্রামের হাজাম পাড়ার বাসিন্দা সফিক সেখ বেশ কিছুদিন ধরে এলাকাছাড়া ছিলেন। তাঁর বিরুদ্ধে মাড়গ্রাম-১ পঞ্চায়েতের বর্তমান প্রধানকে প্রাণে মারার অভিযোগ ছিল। শনিবার সকালে মাড়গ্রামের খানখা শরিফমোড়ে তাঁকে কয়েকজন পূর্ব আক্রোশ বশতঃ পথ আঁটকায়। তারপর বেধড়ক মারধর করে তার হাত পা ভেঙে দেয়। আহত সফিক সেখের দাবি, মহবুল সেখ ওরফে ভুট্টো ও সফি মিঞা তাঁকে আক্রমণ করে মারধর করে। যদিও, অভিযোগ অস্বীকার করেন এই দুই ব্যক্তি। মহবুল সেখ তথা মাড়্গ্রাম -১ পঞ্চায়েতের প্রধান জানান, ঘটনার সময় প্রায় আড়াইশো লোক নিয়ে মাড়্গ্রামের হেতে পাড়ায় প্রচার চালাচ্ছিলেন তিনি। এই ঘটনার সঙ্গে কোনভাবেই যুক্ত নন তিনি। অতীতে যারা তাঁর উপর আক্রমণ করেছিলেন তাঁদের ক্ষমা করে দিয়েছেন। সকলের সঙ্গে আমার ভালো সম্পর্ক। পাশাপাশি, তিনি বলেন, মাড়্গ্রাম-২ পঞ্চায়েতের সফি মিঞাও খুব ভালো মানুষ। তিনি মাড়গ্রাম- ২ পঞ্চায়েতের সদস্য। তাঁর স্ত্রী পঞ্চায়েত সমিতির সহ সভাপতি। জানা গেছে, সুজাউদ্দিন সাহেব আগেও প্রধান ছিলেন। এবারও প্রধান হিসেবে অন্যতম দাবিদার ছিলেন তিনি। কিন্তু তাঁর জায়গায় প্রধান হন ভুট্টো সাহেব। সেই থেকেই তাঁদের ঠান্ডা লড়াই। একসময় এই সুজাউদ্দিনের অনুগামী ছিলেন ভুট্টো। বর্তমানে আহত সফিক সেখ তাঁর অনুগামী বলে পরিচিত। যদিও, সুজাউদ্দিন সাহেবের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক ভাল বলে জানান ভুট্টো সাহেব। সুজাউদ্দিন সাহেবও একই কথা বলেন। তিনি জানান, তিনি বাইরে আছেন, এব্যাপারে কিছু জানেন না। উল্লেখ্য, বছর কয়েক আগে, মাড়্গ্রামে গুদাম পাড়ার কাছে রাত্রি ৯টা নাগাদ বোম চার্জ করে ভুট্টোকে প্রাণে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। সেই সময় বাইক থেকে পড়ে যাওয়ার পর, তড়িঘড়ি তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সে যাত্রায় অল্পের জন্য বেঁচে যান তিনি। ১৫ দিন আগে ফের ভুট্টোকে মেরে ফেলার চেষ্টা করা হয়। ভুট্টো জানান, তার মেয়ে পাথর চাপুড়ির আল আমিন মিশনে পড়াশোনা করে। সপ্তাহ অন্তে ভুট্টো সাহেব ও তার স্ত্রী তার সঙ্গে দেখা করতে যেতেন। খুনিদের কাছে খবর ছিল গণপুরের জঙ্গলের কাছে তাদের গাড়ি আটকিয়ে মেরে ফেলা হবে। বিষয়টি জানতে পারায় খুনিদের পরিকল্পনা বানচাল হয়ে যায়। তারপর ভুট্টো সাহেবের বাড়িতে আলোচনার মাধ্যমে সেই সমস্যা মিটেও যায়। কিন্তু সেই সময় সফিক সেখ ছিলেন না। তিনি এলাকায় ফিরতেই এই ঘটনা ঘটে। তিনি এলাকায় ফিরতেই এই ঘটনা ঘটে। হিন্দুস্থান সমাচার/হেমাভ/শুভঙ্কর/
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image