Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 06:31 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

পণের দাবিতে গৃহবধূকে খুন, দেহ লোপাটের চেষ্টা, ধৃত তিন

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 14 2019 12:17PM
পণের দাবিতে গৃহবধূকে খুন, দেহ লোপাটের চেষ্টা, ধৃত তিন
নরেন্দ্রপুর, ১৪ এপ্রিল (হি.স.) : দুই লক্ষ টাকা পণ না পেয়ে গৄহবধুকে খুনের অভিযোগ স্বামী সহ শ্বশুরবাড়ির লোকেদের বিরুদ্ধে৷ খুনের পর দেহ লোপাটের চেষ্টা পরিবারের৷ তবে এলাকার বাসিন্দাদের তৎপরতায় ধরা পড়ে যায় পরিবারের লোকজন৷ মৃতার নাম অর্পিতা সেন(১৯)। ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার নরেন্দ্রপুর থানার অন্তর্গত রেনিয়া প্রভাত পল্লীতে। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় জনরোষের জেরে অভিযুক্তের বাইকে আগুন ও বাড়িতে ভাঙচুর করে উত্তেজিত জনতা৷ নরেন্দ্রপুর থানায় খুনের অভিযোগ দায়ের করেছেন মৃতার পরিবারের সদস্যরা৷ অভিযোগের ভিত্তিতে মৃতার স্বামী সহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ৷ অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ৪৯৮এ, ৩০৪বি, ৩৪ ধারায় মামলা রুজু করেছে পুলিশ। ধৄতদের রবিবার বারুইপুর মহকুমা আদালতে পেশ করবে পুলিশ। মাত্র এক বছর আগে জয়নগরের বাসিন্দা অর্পিতার সাথে বিয়ে হয় রেনিয়ার বাসিন্দা সঞ্জয় সেনের(৩৩)। দেখাশোনা করেই তাদের বিয়ে হয়। অভিযোগ বিয়ের পর থেকেই পনের জন্য চাপ দেওয়া হত অর্পিতাকে। এমনকি তাকে মারধোর করা হত বলে অভিযোগ ৷ স্বামী ছাড়াও ননদ সাবিয়া বিবি ওরফে বাবলি ও নন্দাই সানোয়ার হোসেন গাজী তার উপর অত্যাচার চালাত বলে অভিযোগ পরিবারের৷ বিয়ের সময় নগদ ৬০ হাজার টাকা ও গয়না নেয় তারা ৷ সম্প্রতি ফের দুই লক্ষ টাকা চাওয়া হয় বলে জানিয়েছেন অর্পিতার বাবা। চৈত্র সংক্রান্তিতে বাপের বাড়িতে যাওয়ার কথা ছিল অর্পিতার। মেয়ের মুখ চেয়ে সাধ্যমত টাকা দেওয়ার কথা জানান তার বাবা৷ কিন্তু তার আগেই শনিবার সকাল থেকেই অর্পিতার উপর অত্যাচার শুরু হয় ৷ তাকে মারধোর করা হয়। এলাকার বাসিন্দারা বিষয়টি জানতে পেরে তারাই উদ্যোগী হয়ে বাড়িতে গিয়ে তখনকার মত বিষয়টি মিটিয়ে দেন। প্রতিবেশীরা চলে গেলে ফের অত্যাচার শুরু হয়৷ বেধড়ক মারে মৃত্যু হয় অর্পিতার। তার সারা শরীরে একাধিক আঘাতের চিহ্ন রয়েছে৷ শনিবার বিকেলের দিকে তার দেহ পাচারের চেষ্টা করা হয় বলে অভিযোগ। সেইসময় স্থানীয় বাসিন্দারা তাতে বাধা দেয়। খবর দেওয়া হয় নরেন্দ্রপুর থানায়৷ গৃহবধূকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগে এলাকায় উত্তেজনা ছড়ালে উত্তেজিত জনতা অভিযুক্তের বাড়ি ভাঙচুরকরে ও বাইকে আগুন লাগিয়ে দেয়। পরে নরেন্দ্রপুর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি সামাল দেয়। মৃতার পরিবার থেকে শুরু করে এলাকার বাসিন্দা সকলেই অভিযুক্তদের চুড়ান্ত শাস্তির দাবি জানিয়েছেন। হিন্দুস্থান সমাচার/প্রসেনজিত/সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image