Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 06:25 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

স্কুল বন্ধ, তবুও সরকারি খাত থেকে উঠছে মিডডে মিলের টাকা - শিক্ষককে শোকজ বিডিওর

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 14 2019 5:51PM
স্কুল বন্ধ, তবুও সরকারি খাত থেকে উঠছে মিডডে মিলের টাকা - শিক্ষককে শোকজ বিডিওর
ক্যানিং, ১৪ এপ্রিল (হি. স.) : স্কুল বন্ধ। তবুও প্রতিদিনের মতোই নিয়ম মেনে সরকারি কোষাগার থেকে সেই স্কুলের মিডডে মিলের খরচ হিসেবে টাকা উঠছে। বিষয়টি সামনে আসতেই স্কুলের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিলেন ক্যানিং ১ ব্লকের বিডিও নিলাদ্রি শেখর দে। দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিংয়ের ডাবু জয়রাম খালি এফ পি স্কুলের ঘটনা। স্কুলে ভোট কেন্দ্র তৈরির জন্য শুক্রবার ডাবু জয়রাম খালি এফ পি স্কুল পরিদর্শনে গিয়েছিলেন সেক্টর অফিসার। সেখানে গিয়ে সেক্টর অফিসার সুমিত ঘোষ দেখেন দুপুর বারোটা দশ নাগাদ বন্ধ স্কুল। সেখান থেকেই সুমিতবাবু ব্লক প্রশাসনের সাথে যোগাযোগ করেন। কিন্তু সরকারি ছুটি না থাকা সত্ত্বেও কেন স্কুল বন্ধ সে সম্পর্কে প্রাথমিক স্কুল শিক্ষা দফতর বা মিডডে মিলের দায়িত্বে থাকা ব্লক প্রশাসনের কাছে কোনও সূচনা ছিল না। শুধু তাই নয়, স্কুল চলছে দাবি করে অন্যান্য দিনের মত শুক্রবার ও স্কুলের দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দেবাশিস সরদার ১৩৯ জন ছাত্রের মিড ডে মিল রান্নার হিসেব এস এম এসের মাধ্যমে জানিয়েছেন। এই ঘটনায় ব্লক প্রশাসনের সন্দেহ তীব্রতর হয়। সরকারি কোষাগারের টাকা তছরুপ হচ্ছে সন্দেহ করে শুক্রবারই ঘটনার তদন্ত করতে ওই স্কুলে তদন্তের জন্য কর্মীদের পাঠান ক্যানিং ১ ব্লক সমষ্টি আধিকারিক নিলাদ্রি শেখর দে। স্থানীয় মানুষজনের কাছে প্রশাসনের তরফ থেকে জিজ্ঞাসাবাদও করা হয়। মাঝেমধ্যেই স্কুল বন্ধ থাকার কথা ও প্রশাসনকে জানান স্থানীয় মানুষজন। এই ঘটনার পর শুক্রবারই ক্যানিং ১ ব্লকের বিডিও অভিযুক্ত শিক্ষককে সাত দিনের মধ্যে কারন দর্শানোর নির্দেশ দেন। এ বিষয়ে বিডিও বলেন, “শুক্রবার স্কুল বন্ধ থাকলেও মিড ডে মিলের জন্য বরাদ্দ চেয়ে এস এম এস পাঠিয়েছেন ওই শিক্ষক। কি কারণে স্কুল বন্ধ করলেন উনি, আর স্কুল বন্ধ থাকলেও কেন পড়ুয়াদের মিডডে মিল দেওয়া হচ্ছে বলে মিথ্যে বলেন তা জানাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন ক্যানিং সার্কেলের স্কুল পরিদর্শক অর্পিতা রায় চৌধুরীও। যদিও এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষকের সাথে বারে বারে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি। এসএমএসেরও কোনও উত্তর তিনি দেননি। হিন্দুস্থান সমাচার/ প্রসেনজিত/ শ্রেয়সী/ কাকলি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image