Hindusthan Samachar
Banner 2 मंगलवार, अप्रैल 23, 2019 | समय 07:28 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

মুর্শিদাবাদের মাটি ফের বিয়াল্লিশে-বিয়াল্লিশ জয়ের ডাক তৃণমূল সুপ্রিমো মমতার, নিশানা অধীরকেও

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 15 2019 4:17PM
মুর্শিদাবাদের মাটি ফের  বিয়াল্লিশে-বিয়াল্লিশ জয়ের ডাক তৃণমূল সুপ্রিমো মমতার, নিশানা অধীরকেও
বেলডাঙা, ১৫ এপ্রিল (হি.স.) : অধীর গড় মুর্শিদাবাদে গিয়ে ‘রবিনহুড’কেই নিশানা করলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ‘বাম আর রাম, মাঝে অধীর রাজ চলছে’ বলে কটাক্ষ করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ প্রশ্ন তুললেন কেন বহরমপুরের সাংসদকে এলাকায় দেখা যায় না তা নিয়েও৷ বিয়াল্লিশে-বিয়াল্লিশ যদি চাই তাহলে বহরমপুরও চাই, জঙ্গিপুরও চাই, মুর্শিদাবাদও চাই। সোমবার মুর্শিদাবাদের বেলডাঙার জনসভায় মমতা বলেন, তখন হয়তো তিনি নিজেও জানেন এরাজ্যে তাঁর দল বিয়াল্লিশে ৪২ পাওয়ার ক্ষেত্রে সবচেয়ে বড় বাধা হয়ে উঠতে পারে মুর্শিদাবাদ জেলা। প্রাক্তন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতির খাসতালুক। মুর্শিদাবাদে আগের তুলনায় অনেকটাই শক্তিক্ষয় হয়েছে কংগ্রেসের, অনেক শক্তিশালী হয়েছে তৃণমূল। তবু, লোকসভায় অধীর চৌধুরি যে একটা ফ্যাক্টর, তা মানছেন স্থানীয় তৃণমূল নেতারাও। এদিন বেলডাঙায় তৃণমূল সুপ্রিমো বলেন, রাম, বাম ও কংগ্রেস এক হয়েছে৷ মুর্শিদাবাদ, বহরমপুর এবং জঙ্গিপুরে কংগ্রেসের হয়ে কাজ করছে আরএসএস৷ কেন এই আতাঁত তার কারণও প্রচার সভায় ব্যাখ্যা করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর কথায়, ‘‘আরএসএসের দফতরে গিয়েছিলেন প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়৷ সেই আনুগত্যবোধ থেকেই কংগ্রেসকে সাহায্য করছে আরএসএস৷’’ গোটা বাংলায় কংগ্রেস প্রায় সাইনবোর্ড৷ সেখানে মুর্শিদাবাদ জেলার তিনটি লোকসভা আসনের একটিও তৃণমূলের দখলে নেই৷ সেই আক্ষেপও এদিন শোনা গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখে৷ তিনি বলেন, ‘‘মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সংগঠন বাড়াতে প্রচুর কাজ করেছে৷ এই জেলা থেকে বিধায়ক ও পঞ্চায়েতের সব স্তরে তৃণমূলের জনপ্রতিনিধি রয়েছেন৷ জেলা পরিষদও আমাদের৷ কিন্তু সাংসদ নেই৷ তাই এবার পালটে দিন৷’’ মুর্শিদাবাদ কংগ্রেসের দুর্গ৷ তবু ক্ষমতা কমেছে৷ কিন্তু তাতে কী সুবিধা পাবে জোড়াফুল শিবির৷ জোড় গলায় বলা যাচ্ছে না৷ এই পরিস্থিতিতে তাই জেলায় বিরোধী শিবিরের মসিহাকে আক্রমণ করেই জয় ছিনিয়ে আনতে মরিয়া তৃণমূল সুপ্রিমো৷ বহরমপুরে জয় পেতে একদা অধীর ঘনিষ্ট অপূর্ব সরকারই বাজি মমতার৷ কংগ্রেসকে আক্রমণ করতে গিয়ে এদিন তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘‘বামেদের সঙ্গে আতাঁত রয়েছে কংগ্রেসের৷ ওরা বামেদের তাড়াতে চায়নি৷ বিক্রি হয়ে গিয়েছে সিপিএমের কাছে৷ তাই আমি কংগ্রেস ছেড়ে বেরিয়ে যাই৷ তৃণমূলের আন্দোলনেই রাজ্যে বামেদের পরাজয় হয়েছে৷’’ আত্মবিশ্বাসী মমতার বক্তব্য জোড়াফুলের দাপটেই দিল্লি ছাডা় হবে মোদী সরকার৷ মুর্শিদাবাদে প্রচার, তাই অধীরের বিরুদ্ধে তৃণমূল নেত্রীর সমালোচনার ঝাঁঝ ছিল বেশি৷ এদিন প্রচারে মোদী সরকারের বিরুদ্ধেও সরব হয়ে মমতার ঘোষণা, বাংলায় এনআরসি করতে দেব না৷ কেন খবর থাকা সত্ত্বেও পুলওয়ামা হামলা হল তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন মুখ্যমন্ত্রী৷ মোদী সরকার সেনাদের নিয়ে রাজনীতি করছে বলে অভিযোগ করেন মমতা৷ এছাড়াও, মুর্শিদাবাদ জেলায় তৃণমূল সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের খতিয়ানও দেন মমতা। বিশেষ করে, মুর্শিদাবাদবাসীর দীর্ঘদিনের দাবি মেনে বিশ্ববিদ্যালয় তৈরির কথা এদিন মনে করিয়ে দিয়েছেন মমতা।মূলত কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেও চেনা ভঙ্গিতে বিজেপিকেও নিশানা করেন তৃণমূল নেত্রী। বিজেপি বিরোধিতায় কংগ্রেস যে ব্যর্থ তাও বুঝিয়ে দেন তৃণমূলনেত্রী। তবে, এদিনের জনসভা থেকে মমতা যেভাবে কংগ্রেসকে আক্রমণ করলেন তাতে একটা বিষয় স্পষ্ট, কেন্দ্রীয় স্তরে কংগ্রেস-তৃণমূলের যতই সদ্ভাব থাক, এরাজ্যে কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জমিও ছাড়বে না। হিন্দুস্থান সমাচার/ সঞ্জয়
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image