Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 05:51 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

দেওয়াল লিখন না মোছায় অন্ডালে বিজেপিকর্মীর বাড়িতে তান্ডব, অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীদের বিরুদ্ধে

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 15 2019 3:50PM
দেওয়াল লিখন না মোছায় অন্ডালে বিজেপিকর্মীর বাড়িতে তান্ডব,  অভিযোগ তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীদের বিরুদ্ধে
দুর্গাপুর, ১৫ এপ্রিল (হি. স.) : নির্বাচনের দিন যতই এগিয়ে ততই অশান্তির আবহে তপ্ত খনি অঞ্চল। হুমকি মত দেওয়াল লিখন না মোছাই বিজেপিকর্মীর বাড়ীতে তান্ডব চালানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূলের বিরুদ্ধে। গুলি চালানোর পাশাপাশি বোমা ছোড়ার অভিযোগ উঠল। ঘটনাকে কেন্দ্র করে চরম উত্তেজনা ছড়ালো পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডালের শীতলপুর ৬ নং পিওর কোলিয়ারী এলাকায়। ঘটনায় জানা গেছে, আক্রান্ত বিজেপিকর্মী উত্তম রাম। বিজেপির পশ্চিম বর্ধমান জেলা কমিটির সদস্য। লোকসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে শীতলপুর ৬ নং কোলিয়ারী এলাকায় প্রচারে ঝড় তুলেছেন উত্তমবাবু। এমনকি তাঁর নেতৃত্বে এলাকায় সংগঠনের প্রসার ঘটছে। দুদিন আগে ওই এলাকায় তৃণমূলের একটি জনসভা হয় ও প্রচার মিছিল হয়। উত্তমের কাকা তথা বিজেপির পশ্চিম বর্ধমান জেলার সহ সভাপতি ঘনশ্যাম রাম জানান," রামনবমীর দিন এলাকায় প্রচারে এসেছিলেন তৃণমূলের বিধায়ক জিতেন্দ্র তিওয়ারী। ওইদিন তার দলের কর্মীদের বিজেপির দেওয়াল লিখন মোছার নির্দেশ দিয়ে যায়। এবং কড়া হুঁশিয়ারী দিয়ে যায়। তারপর থেকে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব থেকে উত্তমের ওপর নানাভাবে হুমকি দিচ্ছিল। প্রাণ সংশয়ের আশঙ্কা করছিল উত্তম। গত পরশু তার বাড়ির দরজা ভাঙার চেষ্টা করে তৃণমূল আশ্রিত দুস্কৃতীরা। আতঙ্কে উত্তম অন্যত্র আত্মগোপন করে। রবিবার রাত্রে চারটি গাড়ীতে জনা তিরিশেক দুস্কৃতী মুখে গামছা বাঁধা অবস্থায় এলাকায় ঢোকে। উত্তমের বাড়ীর সামনে একটি চা ও ডিমের দোকানে ভাঙচুর করে। তারপর ভাইপো উত্তমের বাড়ীতে চড়াও।" উত্তমের দাদা রঞ্জিত রাম জানান," বাড়ীতে ঢুকে সমস্ত জিনিসপত্র ভাঙচুর করে তচনছ করে দেয়। তারপর বাড়ী লক্ষ্য জরে গুলি ও বোমা ছুড়তে থাকে। এলোপাথাড়ি গুলি, বোমাতে আতঙ্কিত হয় পড়ি।" এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌছায় অন্ডাল থানার পুলিশ। এবং ঘটনাস্থল থেকে গুলির খোল ও বোমার নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে যায়। এদিকে উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়। বিজেপির জেলা সহসভাপতি ঘনশ্যাম রাম জানান," বিজেপির প্রভাব বাড়তেই তৃণমূলের পায়ের নীচের মাটি সরছে। আর তাই এভাবে তান্ডব চালাচ্ছে।" যদিও অভিযোগ অস্বীকার করে স্থানীয় তৃণমূল নেতা নরেন চক্রবর্তী জানান," বিজেপির সাংসদকে গত পাঁচ বছরে পাওয়া যায়নি। তাই মানুষ তাকে চাইছে না। সাধারন মানুষের ক্ষোভ আর বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের স্পষ্ট বার্তা আছে কোনরকম হিংসা, অশান্তি করা যাবে না।" অন্যদিকে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। হিন্দুস্থান সমাচার / জয়দেব
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image