Hindusthan Samachar
Banner 2 शुक्रवार, अप्रैल 19, 2019 | समय 05:51 Hrs(IST) Sonali Sonali Sonali Singh Bisht

বরাককে বঞ্চিত রেখে এতদিন লুট করেছে কং, এবার উন্নয়ন ঘটাচ্ছে বিজেপি সরকার : সর্বানন্দ

By HindusthanSamachar | Publish Date: Apr 15 2019 9:53PM
বরাককে বঞ্চিত রেখে এতদিন লুট করেছে কং, এবার উন্নয়ন ঘটাচ্ছে বিজেপি সরকার : সর্বানন্দ
সলগই (অসম), ১৫ এপ্রিল (হি.স.) : স্বাধীনতা পরবর্তী সময় থেকে দেশে ভ্রষ্টাচার আর বিভাজনের রাজনীতি করে আসছে কংগ্রেস। পঞ্চান্ন বছরে কংগ্রেস দেশকে শুধু লুট করেছে। আধুনিক যুগের যোগাযোগ ব্যববস্থা থেকে এই অঞ্চলকে সম্পূর্ণ বঞ্চিত রেখেছিল কংগ্রেস সরকার। ২০১৪ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী দেশের দায়িত্ব নিয়ে বরাক উপত্যরকার যোগাযোগ ব্য্বস্থায় বৈপ্লবিক পরিবর্তন এনেছেন। আজ করিমগঞ্জের পাথারকান্দি বিধানসভা এলাকার সলগ‌ই-এ আয়োজিত নির্বাচনি জনসভায় এভাবেই দলীয় প্রার্থী কৃপানাথ মালাহের পালে হাওয়া তুলে গিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। পাথারকান্দি এলাকা থেকে ১ লক্ষ ৩০ হাজার ভোট কৃপানাথ মালাহকে দেওয়ার আহ্বান জানান মুখ্যনমন্ত্রী। জনসভায় উপস্থিত প্রায় দশ হাজার জনতাকে প্রথমে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়ে মুখ্যজমন্ত্রী বলেন, কংগ্রেস তাদের দীর্ঘ শাসনকালে দেশে শুধু বিভাজন আর ভ্রষ্টাচারের রাজনীতি করে গেছে। ভ্রষ্ট কংগ্রেস সরকার বরাক উপত্যেকাকে উন্নয়নের প্রতিটি ক্ষেত্রে বঞ্চিত রেখেছে। সমগ্র দেশের সঙ্গে বরাক উপত্যিকায়‌ও শিক্ষা, স্বাস্থ্যম, যোগাযোগ-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিজেপি সমঅধিকার, সমবিকাশে প্রাধান্য, দিচ্ছে। বরাকের প্রত্যন্ত এলাকার জনগণ আজ ব্রডগেজ রেল‌ওয়ে পরিষেবার মাধ্যমে দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে অনায়াসে যাতায়াত করতে পারছেন। ব্রডগেজ চালুর সম্পূর্ণ কৃতিত্ব প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বলে তাঁর বক্তব্যে টেনে এনেছেন সর্বানন্দ। গুয়াহাটি-শিলচর জাতীয় সড়কের কথা উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আজ থেকে চার বছর আগেও এই সড়কের কী হাল ছিল তা এখানকার মানুষ খুব ভালো করে জানেন। আজকের দিনে ছয় থেকে সাত ঘণ্টায় বরাক থেকে গুয়াহাটি পৌঁছনো যায়। এটাই হল পরিবর্তনকামী বিজেপি সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেগন্দ্র মোদীর বলিষ্ঠ নেতৃত্বে দেশ সর্বক্ষেত্রে বিকাশ ও জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠার দিকে দুর্বারগতিতে এগিয়ে চলছে। সমঅধিকার ও সমবিকাশ প্রতিষ্ঠা করাই হল এই প্রধানমন্ত্রীর মূল লক্ষ্যপ। বলেন, বিজেপি সকলকে নিয়ে এগিয়ে যাওয়ায় বিশ্বাসী। আর কংগ্রেস পঞ্চান্ন বছর ধরে দেশে শুধু জাতি, ধর্ম, বর্ণের নামে বিভাজনের রাজনীতি করে গেছে। তাই দেশের উন্নয়নের স্বার্থে, সমবিকাশের স্বার্থে, এই প্রত্যরন্ত এলাকার নবপ্রজন্মের ভবিষ্যৎ সুনিশ্চিত করতে পুনরায় নরেন্দ্র মোদীকে প্রধানমন্ত্রী পদে আসীন করতে কৃপানাথ মালাহকে বিপুল ভোটে জয়ী করার আহ্বান জানাচ্ছেন বলে উদাত্ত ভাষণে বলেন মুখ্যনমন্ত্রী সর্বানন্দ সনোয়াল। কংগ্রেস এবং এআইইউডিএফ-কে এক‌ই মুদ্রার এ-পিঠ ও-পিঠ বলে কটাক্ষ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, আপাদমস্তক দুর্নীতিতে নিমজ্জিত এই দুই দল সংখ্যা্লঘুদের নিয়ে শুধু রাজনীতি করে আসছে। একমাত্র বিজেপিই সংখ্যা লঘুদের সুরক্ষা দিতে পারে। কারণ বিজেপি সব-কা সাথ সব-কা বিকাশ এই মন্ত্রের উপর ভিত্তি করেই দেশের ১৩০ কোটি জনগণের নিরন্তর সেবা করে চলছে। আজকের সমাবেশে পাথারকান্দির বিধায়ক কৃষ্ণেন্দু পাল তাঁর বক্তব্যেে বরাক উপত্যকা, বিশেষ করে তাঁর নির্বাচন এলাকার সার্বিক উন্নয়নে গুরুত্ব দেওয়ার জন্য মুখ্যতমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। আগামী দিনে পাথারকান্দি-সহ বরাক উপত্যুকার আর্থ-সামাজিক উন্নয়নের ধারা অব্যাাহত রাখতে দলীয় প্রার্থী কৃপানাথ মালাহকে জয়ী করার আহ্বান জানান বিধায়ক। বিজেপির জাতীয় কার্যনির্বাহী পরিষদের সদস্যন মুন স্বর্ণকার তাঁর বক্তব্যে নরেন্দ্র মোদীকে পুনরায় প্রধানমন্ত্রী পদে অধিষ্ঠিত করতে জনসভায় উপস্থিত বিশাল সংখ্যনক জনতাকে কৃপানাথ মালাহের পক্ষে ভোট দানের আর্জি জানান। আজকের নির্বাচনি জনসভায় বক্তব্যে পেশ করেছেন জেলা পরিষদ সদস্য শান্তিলাল সিংহা, হৃষিকেশ নন্দি প্রমুখ। উপস্থিত ছিলেন জেলা বিজেপি সাধারণ সম্পাদক কৃষ্ণ দাস, সঞ্জীব দেবনাথ, রীতা সিংহা, শ্যা ম আঁকুড়া, শঙ্কর লোহার, অনিল তিওয়ারি, অগপ-র সব্বির আহমদ, গোলাবচাঁদ কানু। জনসভা পরিচালনা করেন জয়শঙ্কর চক্রবর্তী। আজ মুখ্যীমন্ত্রী প্রথমে কালীনগরে এক জনসভায় যোগ দিয়ে বিকাল তিনটায় সলগ‌ইয়ের সমাবেশে এসে প্রার্খী কৃপানাথের হয়ে প্রচার করে ফকিরাবাজারে দিনের শেষ নির্বাচনি সভায় বক্তব্যা পেশ করেন। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, মুখ্যযমন্ত্রী আজ জেলা সদর করিমগঞ্জে রাত কাটাবেন। আগামীকাল সকাল দশটায় দুল্লভছড়ায় এক নির্বাচনি জনসভায় অংশ নেবেন তিনি। হিন্দুস্থান সমাচার / জন্মজিৎ / এসকেডি
लोकप्रिय खबरें
फोटो और वीडियो गैलरी
image