Custom Heading

খারাপ আবহাওয়ায় পাইলটের বিভ্রান্তির কারণে সিডিএস বিপিন রাওয়াত হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত, উঠে এল তদন্তে
নয়াদিল্লি, ১৪ জানুয়ারি (হি.স) : ‘হেলিকপ্টার ওড়ার সময় আচমকাই আবহাওয়া বদলে যায়। কপ্টার ঢুকে পড়ে মেঘের
খারাপ আবহাওয়ায় পাইলটের বিভ্রান্তির কারণে সিডিএস বিপিন রাওয়াত হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত


নয়াদিল্লি, ১৪ জানুয়ারি (হি.স) : ‘হেলিকপ্টার ওড়ার সময় আচমকাই আবহাওয়া বদলে যায়। কপ্টার ঢুকে পড়ে মেঘের মধ্যে। পাইলট নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেন। আর এই বিভ্রান্তির কারণে দুর্ঘটনা ঘটে।’ সেনাধ্যক্ষ বিপিন রাওয়াতের কপ্টার ভেঙে পড়া নিয়ে শুক্রবার ভারতীয় বিমান বাহিনী প্রথম আনুষ্ঠানিক বিবৃতিতে জানিয়েছে।

এভিয়েশন কথায়, সিএফআইটি ফ্লাইট ক্রুর সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের অধীনে একটি বায়ুযোগ্য বিমানের ভূখণ্ডের সঙ্গে দুর্ঘটনাজনিত সংঘর্ষকে বোঝায়। এই ধরনের দুর্ঘটনায়, অনেক দেরি না হওয়া পর্যন্ত পাইলট বা ক্রু বিপদের আশঙ্কা সম্পর্কে অবগত হন না। পরিস্থিতিগত সচেতনতা হারানো একটি প্রধান কারণ যা সিএফআইটি দুর্ঘটনার দিকে নির্নয় করে, যেমন আগের রিপোর্ট করা হয়েছে।

বিবৃতিতে যোগ করা হয়েছে, "তদন্তকারী দল দুর্ঘটনার সবচেয়ে সম্ভাব্য কারণ নির্ধারণের জন্য সমস্ত সাক্ষীদের জিজ্ঞাসাবাদ করার পাশাপাশি ফ্লাইট ডেটা রেকর্ডার এবং ককপিট ভয়েস রেকর্ডার বিশ্লেষণ করেছে।" এ ধরনের দুর্ঘটনা রোধে কোর্ট অব ইনকোয়ারির সুপারিশগুলো পর্যালোচনা করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত ৮ ডিসেম্বর জেনারেল বিপিন রাওয়াত, তাঁর স্ত্রী মধুলিকা এবং সেনাবাহিনীর আরও ১২ জন অফিসার একটি এম আই ১৭ ভি ফাইভ কপ্টারে উঠেছিলেন। তামিলনাড়ুর কোইম্বাটুরে সুলুর বিমানঘাঁটি থেকে কপ্টারটি উড়ে যায়। দুর্ঘটনায় জেনারেল রাওয়াত, তাঁর স্ত্রী ও ১১ জন সেনা অফিসার ঘটনাস্থলেই মারা যান। একমাত্র বেঁচে গিয়েছিলেন গ্রুপ ক্যাপটেন বরুণ সিং। তিনিও কয়েকদিন বাদে মারা যান।

হিন্দুস্থান সমাচার/সঞ্জয়


 rajesh pande