Custom Heading

ভারতবর্ষে প্রকৃত গণরাজ্য প্রতিষ্ঠাই হোক আমাদের সংকল্প, সাধারণতন্ত্র দিবসের তাৎপৰ্য ব্যাখ্যা করে বলেন আরএসএস-প্ৰধান ভাগবত
আগরতলা, ২৬ জানুয়ারি (হি.স.) : সাধারণতন্ত্র দিবসে ভারতের প্রাচীন গণরাজ্যিক পদ্ধতির প্রসঙ্গ টেনে এনেছে
হোক আমাদের সংকল্প


ভারতবর্ষে প্রকৃত গণরাজ্য প্রতিষ্ঠাই


করে বলেন আরএসএস সরসংঘচালক মোহন ভাগবত


সাধারণতন্ত্র দিবসের তাত্পর্য্য ব্যাখ্যা


আগরতলা, ২৬ জানুয়ারি (হি.স.) : সাধারণতন্ত্র দিবসে ভারতের প্রাচীন গণরাজ্যিক পদ্ধতির প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘের সরসংঘচালক মোহন ভাগবত। তাঁর মতে, ওই পদ্ধতিতে মানুষের মর্যাদাপূর্ণ ব্যবহারের সাহায্যে প্রকৃত অর্থেই জনগণের রাজত্ব প্রতিফলিত হত। তাই বর্তমান প্রজাতান্ত্রিক ব্যবস্থাকেও সেই মর্যাদাপূর্ণ ব্যবহারের সাহায্যে পুষ্ট করার জন্য সওয়াল করেছেন তিনি। সংঘ-প্রধানের পরামর্শ, ভারতবর্ষে প্রকৃত গণরাজ্য প্রতিষ্ঠাই হোক আমাদের সংকল্প। আজ বুধবার ত্রিপুরায় খয়েরপুরে অবস্থিত সেবাধামে ৭৩-তম সাধারণতন্ত্র দিবস উপলক্ষ্যে জাতীয় পতাকা উত্তোলন করে এ কথা বলেন তিনি।

আজ সকালে সমস্ত করোনাবিধি মেনে মোহন ভাগবত জাতীয় পতাকা উত্তোলন করেন। জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার পর সাধারণতন্ত্র দিবসের তাৎপর্য সকলের সামনে তুলে ধরেন তিনি। এদিন সাধারণতন্ত্র দিবসের গুরুত্ব বোঝাতে গিয়ে তিনি ভারতের প্রাচীন গণরাজ্যিক পদ্ধতির প্রসঙ্গ টেনে আনেন। ভাগবত বলেন, ভারতের প্রাচীন গণরাজ্যিক পদ্ধতিতে মানুষের মর্যাদাপূর্ণ ব্যবহারের সাহায্যে প্রকৃত অর্থেই জনগণের রাজত্ব প্রতিফলিত হত। বর্তমান প্রজাতান্ত্রিক ব্যবস্থাকেও সেই মর্যাদাপূর্ণ ব্যবহারের দ্বারাই পুষ্ট করতে হবে। প্রাচীন গণরাজ্যের বিষয়ে বোঝাতে গিয়ে তিনি বৈশালী, লিচ্ছবির প্রসঙ্গ টেনে এনেছেন।

এদিন তিনি বলেন, সাধারণতন্ত্র দিবস উদযাপন একটি ভাবনার স্বরূপ, জাতীয় পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে সেই ভাবের প্রকাশ হয়। তাঁর কথায়, জাতীয় পতাকার গেরুয়া রঙের আবহেই প্রাচীন ভারত থেকে নতুন ভারতের সংস্কৃতি রচিত হয়েছে যুগে যুগে। তাঁর দাবি, গেরুয়া রঙ ভারতের শাশ্বতের পরিচয় যা ত্যাগ, শৌর্য, বীর্যের প্রতীকও বটে। তেমনি, সাদা রঙ শান্তির বার্তা বাহক, যা ভারতের আত্মজ। তিনি বলেন, যুগে যুগে ভারত গোটা বিশ্বকে শান্তির বাঁধনে বাঁধার চেষ্টা করে আসছে। সাথে তিনি যোগ করেন, ভারত সবুজ বনানী তথা প্রকৃতি বান্ধব দেশ। সবুজ প্রকৃতিকে শোষণ করে নয়, ভারতের ঐতিহ্য সবুজ বনানী রক্ষা করে প্রগতির পথে এগিয়ে যাওয়া। তাই, সবুজ রঙ প্রগতি তথা মা লক্ষ্মীর প্রতীক।

সংঘ-প্রধানের মতে, এগিয়ে যাওয়া মানে শুধু ব্যক্তিতান্ত্রিক নয়, হোক সামগ্রিক। সেই সামগ্রিকতা প্রত্যেকের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সকলকে একত্রে নিয়ে চলাই ভারতের ধর্ম। তিনি বলেন, ভারতের এই ধার্মিক মনোভাবই জাতীয় পতাকার মাঝখানের চক্রের মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তাঁর পরামর্শ, সকল রঙের প্রতীকী ব্যবহার আমাদের জীবনের দ্বারা সংকল্পিত করে সারা ভারতবর্ষে প্রকৃত গণরাজ্য প্রতিষ্ঠাই হোক আমাদের সংকল্প।

হিন্দুস্থান সমাচার / সন্দীপ / সমীপ


 rajesh pande