Custom Heading

মোট ২৬ বছরের অভিজ্ঞতা, এয়ার ইন্ডিয়ার সিইও ও এমডি হলেন ক্যাম্পবেল উইলসন
নয়াদিল্লি, ১২ মে (হি.স.): এয়ার ইন্ডিয়ার চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার (সিইও) ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর (এমডি) নিয
ক্যাম্পবেল উইলসন


নয়াদিল্লি, ১২ মে (হি.স.): এয়ার ইন্ডিয়ার চিফ এগজিকিউটিভ অফিসার (সিইও) ও ম্যানেজিং ডিরেক্টর (এমডি) নিযুক্ত হলেন ক্যাম্পবেল উইলসন। বৃহস্পতিবার টাটা সন্স তাঁকে এয়ার ইন্ডিয়ার সিইও ও এমডি নিযুক্ত করেছে। ৫০ বছর বয়সী ক্যাম্পবেলের মোট ২৬ বছরের অভিজ্ঞতা রয়েছে। মোট ১৫টিরও বেশি দেশে কাজের অভিজ্ঞতা রয়েছে উইলসনের। জাপান, কানাডা, হংকংয়ের মতো দেশে কাজ করেছেন তিনি। সিঙ্গাপুরের এসআইএ এয়ারলাইন্সে ম্যানেজমেন্ট ট্রেনি হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন তিনি। কাকতালীয় ভাবে এই এসএইএ এয়ারলাইন্স আবার টাটার ভিস্তারা সহযোগী কোম্পানি।

চলতি বছরের ২৭ জানুয়ারি এয়ার ইন্ডিয়া ফেরে টাটার ঘরে। ওই দিন সম্পন্ন হয় হস্তান্তর প্রক্রিয়া। সাত দশক বাদে ‘মহারাজা’-কে ফিরে পেয়ে উচ্ছ্বসিত টাটা গোষ্ঠীও। এবার এয়ার ইন্ডিয়ার সিইও ও এমডি ঠিক করে ফেলল টাটা গোষ্ঠী। ক্যাম্পবেল উইলসনের কাঁধে দেওয়া হয়েছে বড় দায়িত্ব। গত বছর অক্টোবরে এয়ার ইন্ডিয়াকে ১৮ হাজার কোটি টাকার বিনিময়ে টাটা গোষ্ঠীর অনুসারি সংস্থা টালাস প্রাইভেট লিমিটেডকে বিক্রি করে কেন্দ্রীয় সরকার। এর পর থেকেই শুরু হয়ে যায় বিক্রির সঙ্গে যুক্ত অন্যান্য প্রক্রিয়া। চুক্তি অনুযায়ী, এয়ার ইন্ডিয়ার পাশাপাশি এয়ার ইন্ডিয়া এক্সপ্রেস এবং এয়ার ইন্ডিয়া স্যাটস (‘গ্রাউন্ড হ্যান্ডেলিং’ বা উড়ান বাদে অন্যান্য বিষয় সামলানো হয় যে সংস্থাকে দিয়ে)-এর ৫০ শতাংশ শেয়ারও টাটা গোষ্ঠীর অনুসারি সংস্থার কাছে হস্তান্তর হয়। ২৭ জানুয়ারি শেষ হয় ১০০ শতাংশ শেয়ার হস্তান্তর প্রক্রিয়া এবং সেই সঙ্গে পরিচালন ক্ষমতা সম্পূর্ণ ভাবে তুলে দেওয়া হয় টাটা গোষ্ঠীর হাতে।

হিন্দুস্থান সমাচার / রাকেশ / কাকলি


 rajesh pande