ঝাড়গ্রামের আবারও শেষ মুহুর্তের প্রচারে বিজেপি
ঝাড়্গ্রাম, ১৫ মে ( হি: স) : গত লোকসভা ভোটে শেষ মুহুর্তে প্রচারে এসে ঝাড়্গ্রাম লোকসভা আসনটি শাসক দলের
ঝাড়গ্রামের আবারও শেষ মুহুর্তের প্রচারে বিজেপি


ঝাড়্গ্রাম, ১৫ মে ( হি: স) : গত লোকসভা ভোটে শেষ মুহুর্তে প্রচারে এসে ঝাড়্গ্রাম লোকসভা আসনটি শাসক দলের কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল বিজেপির প্রার্থী কুনার হেমরম। এবার আবারও শেষ মুহুর্তের প্রচারে আসছেন তিনি। ২০ মে ঝাড়গ্রাম শহরের ঘোড়াধরা স্টেডিয়ামেই তাঁর জনসভা করার কথা। যদিও এদিন দুপুর পর্যন্ত কোন জায়গায় সভা হবে তা নিশ্চিত হয়নি। হলিপ্যাড নিয়ে সমস্যার কারনে এখনো নিশ্চিত হয়নি স্থান। ঝাড়গ্রাম শহরের রাজ কলেজ সংলগ্ন যে হেলিপ্যাড রয়েছে সেখানে একটির বেশি চপার নামতে পারে না। সেক্ষেত্রে নরেন্দ্র মোদীর তিনটি চপার নামবে। আর এই হেলিপ্যাড সংক্রান্ত সমস্যার কারনেই জনসভার স্থান নিশ্চিত করতে সমস্যা হচ্ছে।

তবে জেলা বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে কয়েক দিনের মধ্যেই হলিপ্যাড হয়ে যাবে। বিজেপি নেতৃত্ব চাইছে শহরের ঘোড়াধরা স্টেডিয়ামেই সভা হোক। আর সেই প্রশাসনিক স্তরে কথাবার্তা চলছে বলে বিজেপি দলীয় সূত্রে জানা গিয়েছে। তবে বিকল্প জায়গা হিসেবে জামবনি ফুটবল মাঠের কথা মথায় রাখা হয়েছে। আর সেই জন্য এদিন বিজেপির রাজ্য কমিটির সদস্য সুখময় শতপথি, প্রার্থী প্রণৎ টুডু সহ বিভিন্ন জেলা নেতৃত্বে জামবনি ফুটবল মাঠটি পরিদর্শন করে এসেছেন। জানা গিয়েছে ঘোড়াধরা স্টেডিয়ামে প্রায় চল্লিশ হাজার লোক ধরতে পারে। তাই বিজেপির পক্ষ থেকে জানান হয়েছে নরেন্দ্র মোদির সভা স্থল জন সমুদ্রে পরিণত হবে। উল্লেখ্য এবার ঝাড়গ্রাম আসনের বিজেপি প্রার্থী প্রণৎ টুডু অনেকটাই দেরিতে প্রচার শুরু করেছিলেন। বিজেপির অন্দরে অভিযোগ রয়েছে এখনো বিভিন্ন বিধান সভার অধীন ব্লকের বুথে বুথে দলীয় পতাকা পৌঁছনি,বিভিন্ন মন্ডল গুলিতে বৈঠকও হয় নি।গত লোকসভা নির্বাচনে মাত্র এগারো হাজার ভোটের ব্যবধানে জিতেছিল তাদের প্রার্থী। এবার সেই আসন ধরে রাখতে মোদী ম্যাজিকেই ভর করতে চায় বিজেপি নেতৃত্ব। রাজ্য বিজেপির সদস্য সুখময় শতপথি বলেন ঘোড়াধরা স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রীর সভা করার কথা আছে। বিকল্প হিসেবে জামবনি ফুটবল মাঠের কথা ভাবা হয়েছে।

হিন্দুস্থান সমাচার / গোপেশ




 

 rajesh pande